BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফের সক্রিয় রাজনীতিতে! দিল্লিতে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বৈঠকে যোগ দিতে পারেন শোভন

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: July 22, 2020 10:17 pm|    Updated: July 22, 2020 10:17 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অন্তত বছর খানেক মূলস্রোতের রাজনীতি থেকে দূরে। বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পরও কোনও সভা-সমাবেশ, কর্মসূচিতে তাঁকে দেখা যায়নি। করোনা পরিস্থিতিতে আরওই তিনি এসব থেকে দূরে। কিন্তু আবার রাজনীতিতে সক্রিয় হতে চলেছেন কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় (Sovan Chatterjee)। দিল্লিতে হাইকমান্ডের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে যোগ দিতে পারেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী। এমনটাই তাঁর ঘনিষ্ঠ সূত্রে খবর। ইতিমধ্যেই দিল্লিতে গিয়েছেন বঙ্গ বিজেপির নেতারা। আজ, ২২ জুলাই কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সঙ্গেও বৈঠকও শুরু হয়েছে। সপ্তাহভর সেই বৈঠক চলবে কয়েক দফায়। জানা গিয়েছে, ২৩-২৮ জুলাইয়ের মধ্যে দিল্লিতে যেতে পারেন শোভনবাবু। কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে থাকতে পারেন তিনি।

সূত্রের খবর, শোভনবাবু রাজ্যের দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় (Kailash Vijayvargiya) ও অরবিন্দ মেননদের (Arvind Menon) জানিয়েছেন, তাঁর শ্বাসকষ্টের সমস্যা রয়েছে। কোনও কারণে যদি তিনি ২৮ জুলাই দিল্লি যেতে না পারেন তাহলে ভারচুয়ালই তিনি বৈঠকে যোগ দেবেন। তবে, নেতৃত্ব চাইছে বঙ্গ রাজনীতিতে ফের সক্রিয় হোন শোভনবাবু। তাই দিল্লিতে সশরীরে হাজির থাকতে না পারলেও ভারচুয়াল বৈঠকে তিনি উপস্থিত থাকুন, তাও চলবে। উল্লেখ্য, এদিন দিল্লি গেলেন বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh), কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহারা (Rahul Sinha)। দিলীপ ঘোষ বলেন, “এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব রাজ্যে আসতে পারছেন না। কিন্তু বৈঠক জরুরি। রাজ্যের সার্বিক অবস্থা তুলে ধরতে প্রদেশ নেতৃত্বদের সঙ্গে বৈঠকে যোগ দিতেই দিল্লি যাওয়া।” প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার তৃণমূল কংগ্রেসের শহিদ স্মরণ ভারচুয়াল সমাবেশের দিনই দিল্লি উড়ে যান জাতীয় কর্মসমিতির সদস্য মুকুল রায় ও বিজেপি নেতা সব্যসাচী দত্ত।

[আরও পড়ুন: ‘তৃণমূল ওর উপর চাপ দিতে শুরু করেছিল’, মেহতাবের দলত্যাগ প্রসঙ্গে সাফাই দিলীপের]

Sovon-Dilip

প্রসঙ্গত, গত বছর ১৪ আগস্ট বিজেপিতে যোগ দেন শোভন চট্টোপাধ্যায় ও তাঁর বন্ধু বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে সেদিন যোগ দেওয়ার পর কলকাতায় দু’জনকে বঙ্গ নেতৃত্ব সংবর্ধনা দেন। কিন্তু সেই শেষ। তারপর থেকে দলের কোনও কর্মসূচি, সভা-সমাবেশে দেখা যায়নি শোভনবাবুকে। বেশ কয়েকবার দলের অন্দরে তাঁকে নিয়ে সংঘাতের পরিবেশ তৈরি হয়। কিন্তু বরাবরই নীরবতা বজায় রেখেছেন শোভনবাবু। থবে দলের সঙ্গে যোগাযোগও বন্ধ করেননি। গত বছরই সবাইকে চমকে দিয়ে ভাইফোঁটার দিন মুখ্যমন্ত্রীর কালীঘাটের বাড়িতে হাজির হন শোভনবাবু ও বৈশাখীদেবী। তা নিয়ে কম জলঘোলা হয়নি। এদিন তাঁর দিল্লিতে হাইকমান্ডের বৈঠকে যোগ দেওয়ার খবরে ফের দলের সঙ্গে তাঁর দূরত্ব কমার ইঙ্গিত মিলছে।

[আরও পড়ুন: একুশে বাংলা দখলে মরিয়া বঙ্গ বিজেপি, করোনা আবহেই শাহের ডাকে দিল্লি গেলেন দিলীপরা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement