BREAKING NEWS

১৪ মাঘ  ১৪২৮  শুক্রবার ২৮ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

কার দখলে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়? টানটান উত্তেজনায় ভোট শুরু বামেদের গড়ে

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: February 19, 2020 11:53 am|    Updated: February 19, 2020 11:54 am

Students body poll in Jadavpur University, no violence reported yet

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: টানটান উত্তেজনায় শুরু যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের (Jadavpur University) ছাত্র সংসদ নির্বাচন। প্রায় ৩ বছর পর বামেদের গড় হিসেবে পরিচিত এই বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রভোটের অনুমতি দিয়েছে রাজ্য সরকার। বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগে শুরু হয়েছে ভোটগ্রহণ। আগামিকাল অর্থাৎ বৃহস্পতিবার নির্বাচনের ফলপ্রকাশ হবে।

Jadvpur-University-Vote
যাদবপুরে বামপন্থীদের প্রচার। ছবি সৌজন্যে: ফেসবুক

ছাত্র সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে সোমবার থেকেই সাজো-সাজো রব শুরু হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে। মঙ্গলবার বিকেলের মধ্যে ক্যাম্পাসগুলি ছেয়ে গিয়েছে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের পোস্টার ও ব্যানারে। এই প্রথমবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাচনের কেন্দ্রীয় প্যানেলে প্রার্থী দিয়েছে আরএসএসের ছাত্র সংগঠন এবিভিপি (Akhil Bharatiya Vidyarthi Parishad)। প্রার্থী দিয়েছে তৃণমূলের ছাত্র সংগঠন টিএমসিপি এবং একাধিক বামপন্থী ছাত্র সংগঠন। প্রার্থী দিয়েছে নকশালপন্থী সংগঠনগুলিও। কলা, বিজ্ঞান এবং ইঞ্জিনিয়ারিং, তিনটি ফ্যাকাল্টিতেই একসঙ্গে হচ্ছে নির্বাচন। এর মধ্যে সায়েন্স বাদে বাকি দুই ফ্যাকাল্টিতে প্রার্থী দিয়েছে এবিভিপি। ইতিমধ্যেই, পড়ুয়াদের শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে আহ্বান জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। তিনি একটি বিবৃতি দিয়ে বলেছেন, যাদবপুরের ঐতিহ্য যেন ক্ষুণ্ন না হয়।

[আরও পড়ুন: দিল্লির হার থেকে শিক্ষা! বাংলা ও বিহার দখলে নয়া ছক বিজেপির]

 
যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাচন অবশ্য শুধু ছাত্রদের নির্বাচন হিসেবে পরিগণিত হয় না। জেএনইউ, জামিয়ার মতো এই বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্বাচনেও নজর থাকে গোটা দেশের। সম্প্রতি, CAA, NRC’র মতো ইস্যুতে প্রতিবাদে শামিল হয়েছেন যাদবপুরের পড়ুয়ারা। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ঢুকতে গিয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়েছেন খোদ কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। স্বাভাবিকভাবেই, এইসব ইস্যুও ঢুকে যাবে এবারের ছাত্র সংসদ নির্বাচনে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণত বাম এবং অতিবামপন্থী বা নকশালপন্থীদের গড় হিসেবে পরিচিত। সেখানে সংঘের ছাত্র সংগঠন এবিভিপি যদি দাঁত ফোটাতে পারে তাহলে তা বিরাট বড় সাফল্য হিসেবে পরিগণিত হবে।

Babul-Supriyo
যাদবপুরে বাবুল সুপ্রিয়কে ঘিরে উত্তেজনা

[আরও পড়ুন: ‘তাপস পালের মৃত্যুর জন্য দায়ী CBI’, বিস্ফোরক অভিযোগ তৃণমূল সাংসদের]

এবছর বাড়তি নজর থাকবে এসএফআইয়ের (SFI) দিকেও। কারণ, গত নির্বাচনে আর্টস ফ্যাকাল্টি দখল করলেও এবছর ভোটের আগে আগে সাংগঠনিক স্তরে বড়সড় ধাক্কা খেয়েছে বামপন্থী ছাত্র সংগঠনটি। যৌন কেলেঙ্কারির অভিযোগে পদ ছা়ড়তে হয়েছে নেতৃস্থানীয় বেশ কয়েকজনকে। কেউ কেউ স্বেচ্ছায় ছেড়েছেন সংগঠন। এই পরিস্থিতিতে এসএফআই নিজেদের শক্তি ধরে রাখতে পারে কিনা, সেটাও লক্ষ্যনীয় বিষয়।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে