BREAKING NEWS

১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  সোমবার ৪ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

বেহালায় অশান্তির ঘটনায় কড়া পদক্ষেপ তৃণমূলের, অভিযুক্ত যুব নেতাকে বহিষ্কার করল দল

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: April 14, 2022 3:27 pm|    Updated: April 14, 2022 4:03 pm

TMC suspended accussed youth leader of Behala after the incident of bombing and chaos | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চড়ক মেলা নিয়ে বেহালায় অশান্তির জেরে অভিযুক্ত দলীয় সদস্যের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিল তৃণমূল (TMC)। বহিষ্কার করা হল যুব তৃণমূল নেতা বাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। যদিও অশান্তির পর থেকে এখনও পলাতক অভিযুক্ত যুব তৃণমূল সভাপতি। এদিকে, বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই এ নিয়ে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে বেহালায়। বেহালা পূর্বের তৃণমূল বিধায়ক রত্না চট্টোপাধ্যায়ের (Ratna Chatterjee) বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখান অভিযুক্তের বাড়ির সদস্যরা। ঘটনার গুরুত্ব আন্দাজ করে এদিন রত্নাদেবীকে ফোন করে বিস্তারিত তথ্য জানতে চান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সূত্রের খবর, অন্যায়ের যথাযথ শাস্তি হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।

ঘটনার সূত্রপাত মঙ্গলবার। বেহালার (Behala)চড়কতলায় যেখানে মেলা হয়, সেই মাঠের দখল কার হাতে থাকবে, তা নিয়ে শুরু হয় চাপানউতোর। ১২১ নং ওয়ার্ড এলাকায় দুই গোষ্ঠীর মধ্যে বচসা, হাতাহাতি থেকে সংঘর্ষ শুরু হয়। রাতের দিকে চলে বোমাবাজি। ভাঙচুর হয় তৃণমূলের একটি পার্টি অফিস। এরপর অশান্তি আরও চরমে ওঠে। এলাকায় দিনভর জারি ছিল উত্তেজনা। তারপর থেকেই বেপাত্তা বেহালার ১২১ নং ওয়ার্ডের যুব তৃণমূল সভাপতি বাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার সকালে অভিযুক্ত বাপনকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয় তৃণমূল।

[আরও পড়ুন: ‘ইমরান ভাল কমেডিয়ান, কপিল শর্মার শোয়ে যোগ দিক’, খোঁচা প্রাক্তন স্ত্রী রেহামের]

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ফের অশান্ত হয়ে ওঠে বেহালার চড়কতলা। স্থানীয় বিধায়ক রত্না চট্টোপাধ্যায়ের বাড়ি ও কার্যালয়ের সামনে সকাল থেকে বিক্ষোভ দেখান দলের একাংশ। রত্নাদেবী সেসময় এলাকায় জনসংযোগের কাজে ব্যস্ত ছিলেন। তখনই একদল মহিলা এসে তাঁর কাছে জানতে চান, কেন বাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে অভিযুক্ত হিসেবে চিহ্নিত করা হচ্ছে, কেনই বা তাঁকে বহিষ্কার করা হল। তাঁদের সঙ্গে কথা বলেন রত্নাদেবী। পরে তিনি জানান, যাঁরা তাঁর অফিসে বিক্ষোভ দেখান, তাঁরা অভিযুক্তের পরিবারের সদস্য। তিনি বলেন, বিষয়টি তদন্তের আওতায়। প্রকৃত দোষী শাস্তি পাবেই। পলাতক বাপনকে বহিষ্কার করা হলেও কেন ঘটনার ২ দিন পরও গ্রেপ্তার গেল না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

[আরও পড়ুন: রাস্তায় দাঁড়িয়েই শিশুকে পড়াতে ব্যস্ত কলকাতার ট্রাফিক সার্জেন্ট! ভাইরাল ‘শিক্ষক পুলিশ’]

এরপর ঘটনার গুরুত্ব বুঝে রত্না দেবীকে ফোন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee)। ঘটনার বিস্তারিত জানতে চান। সূত্রের খবর, ঘটনায় প্রকৃত দোষী অবশ্যই যথাযথ শাস্তি পাবে, এমনই আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। এলাকায় শান্তি বজায় রাখতে দ্রুত স্থানীয় প্রশাসনকে পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেন।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে