২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

স্টাফ রিপোর্টার: একুশে জুলাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডাকে তৃণমূলের সভায় যোগ দিতে উত্তরবঙ্গ থেকে কলকাতামুখী হচ্ছেন কর্মী-সমর্থকরা৷ শুক্রবার সকালেই হাওড়া ও শিয়ালদহ স্টেশনে ট্রেন থেকে নামেন এঁরা। দূরদূরান্ত থেকে কর্মীরা আসতে শুরু করেছেন। সল্টলেক, গীতাঞ্জলি স্টেডিয়াম, নেতাজি ইন্ডোর-সহ বেশ কিছু জায়গায় তৃণমূলের পক্ষ থেকে এঁদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে। হ্যাঙার টাঙানো হয়েছে।

[আরও পড়ুন: রাজ্য-রেলমন্ত্রক সমন্বয়ে জোর দিতে অ্যাডভাইজার নিযুক্ত, বাংলার দায়িত্বে মহিলা]

তৃণমূলের ২৬তম শহিদ দিবস উপলক্ষ্যে ধর্মতলায় মঞ্চ বাঁধার কাজও প্রায় শেষ। সেখানে বিভিন্ন নেতারা মঞ্চ বাঁধার কাজ তদারকি করছেন। ভিড় সামাল দিতে মূলত পূর্ব রেল ও দক্ষিণ পূর্ব রেল কতৃর্পক্ষ নিজেদের মধ্যে বৈঠকে বসছেন। ভিড় সামলেও কীভাবে ট্রেন চলাচল সচল রাখা যায়, সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন তাঁরা।
শিয়ালদহ স্টেশনে বাড়তি একশো আরপিএফ ও হাওড়ায় ১৫০ আরপিএফ জওয়ানকে মোতায়েন করা হচ্ছে। এছাড়াও বেশ কয়েক প্লেটুন জিআরপি কর্মীও থাকবেন। সল্টলেক স্টেডিয়ামে দায়িত্ব থাকছে সুজিত বসুর উপর, গীতাঞ্জলি স্টেডিয়ামে দেখভাল করবেন বরো চেয়ারম্যান সুশান্ত ঘোষ ও বড়বাজার এলাকার জন্য সৌম্য বক্সি। বিভিন্ন এলাকায় যান নিয়ন্ত্রণের জন্য নানা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। রদবদল ঘটানো হচ্ছে যান চলাচলে।

[আরও পড়ুন: রোজভ্যালি কাণ্ডে তলব, ইডির দপ্তরে পৌঁছলেন প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়]

আগামী রবিবার সকাল থেকেই শহরের বিভিন্ন রাস্তায় ‘একমুখী ট্রাফিক’ ব্যবস্থায় গাড়ি চালিয়ে শহরকে সচল রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে লালবাজার। পাশাপাশি কোন কোন রাস্তায় ধর্মতলামুখী গাড়িগুলিকে পার্কিং করা হবে সেটিও নির্দিষ্ট করে দিয়েছে পুলিশ। সকাল থেকে শহরে প্রবেশের চারটি জায়গায় জেলা পুলিশের সঙ্গে যৌথ ক্যাম্পে থাকছে কলকাতা পুলিশ। ভোর থেকেই শহরের রাস্তায় নামছেন প্রায় পাঁচ হাজার পুলিশকর্মী। জনসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে আসা হবে ওল্ড কোর্ট হাউস এবং ওয়াটারলু স্ট্রিট ধরে। পাশাপাশি জনসভার উপর আকাশপথে সর্বক্ষণ নজর রেখে যাবে কলকাতা পুলিশের আকাশযান ‘দুর্দান্ত’। এবারের ২১ জুলাইয়ের জনসভা পড়েছে রবিবার। রবিবার-সহ ছুটির দিনগুলিতে শহরের বিভিন্ন রাস্তায় একমুখী ট্রাফিক ব্যবস্থা তুলে দেওয়া হয়। ওই সমস্ত রাস্তা দিয়ে ছুটির দিনে যান চলাচল করে দ্বিমুখী ট্রাফিক ব্যবস্থার মাধ্যমে। শনিবার রাত দশটা থেকেই ট্রাফিকের পাঁচটি দল রাস্তায় নামবে ধর্মতলা চত্বরে। রবিবার ভোর চারটে থেকে রাস্তায় নামবেন ট্রাফিক পুলিশের কর্মীরা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং