BREAKING NEWS

১০  আশ্বিন  ১৪২৯  শুক্রবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

Durga Puja 2022: দুর্গাপুজোয় প্রথমবার হরিহরনের গান, সুবর্ণ জয়ন্তীতে বিশেষ চমক বেহালার এই ক্লাবের

Published by: Sayani Sen |    Posted: August 18, 2022 7:45 pm|    Updated: August 18, 2022 8:15 pm

Veteran singer Hariharan will sing the theme song for Behala Debdaru Fatak Puja Committee । Sangbad Pratidin

সুলয়া সিংহ: একে তো দুর্গাপুজো (Durga Puja 2022) পেয়েছে ইউনেস্কোর স্বীকৃতি। তার উপর আবার পুজোর সুবর্ণ জয়ন্তী বলে কথা। সব মিলিয়ে এবার মাতৃ আরাধনার আয়োজনে যে বিশেষ জাঁকজমক থাকবে, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। তবে শুধু প্রতিমা কিংবা মণ্ডপ নয়। পুজোর থিম সংয়ের মাধ্যমেও যে আমজনতাকে তাক লাগিয়ে দেওয়া যায়, তাই প্রমাণ করতে চলেছে বেহালা দেবদারু ফটক পুজো কমিটি। কারণ, এবার তাদের থিম সং গাইবেন হরিহরন শুভ্রমনি। এই প্রথমবার দুর্গাপুজোর থিম সং গাইছেন শিল্পী।

পুজো প্রায় দোরগোড়ায়। জোরকদমে চলছে পুজো প্রস্তুতি। ইতিমধ্যেই বেহালার দেবদারু ফটকে খুঁটিপুজো হয়ে গিয়েছে। বাঁশ বাঁধার কাজ চলছে মাঠে। তুঙ্গে পুজো প্রস্তুতি। মণ্ডপসজ্জায় ব্যস্ত বহু শিল্পী। প্রতিমা গড়ার কাজও চলছে জোরকদমে। এবার বেহালার দেবদারু ফটকের পুজোর থিম ‘আগ্রাসন’। থিম ভাবনাকে মণ্ডপে ফুটিয়ে তুলতে বদ্ধপরিকর শিল্পীরা।

[আরও পড়ুন: পাইলট কার ব্যবহারে ‘না’, নতুন মন্ত্রীদের সতর্ক থাকার নির্দেশ মমতার]

থিমের সঙ্গে মানানসই হবে প্রতিমা। শিল্পী পূর্ণেন্দু দে’র হাতের ছোঁয়ায় সাজছে মণ্ডপ ও প্রতিমা। এই প্রথমবার কোনও পুজো কমিটির জন্য বাংলায় গান গাইছেন বিখ্যাত বলিউড শিল্পী হরিহরন শুভ্রমনি। পুজো কমিটি সূত্রে খবর, সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহে গান রেকর্ডের সম্ভাবনা। গান রেকর্ডের জন্য কলকাতায় আসতে পারেন হরিহরন। আবার মুম্বইতেও গান রেকর্ড করতে পারেন শিল্পী। এ বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। থিম সংয়ে সুর দেবেন পণ্ডিত বিক্রম ঘোষ। আলোক নির্দেশনায় পিনাকি গুহ।

Behala-Debdaru-Fatak

কলকাতা শহরজুড়ে যাঁরা মণ্ডপে মণ্ডপে ঘুরে প্রতিমা দর্শন করতে ভালবাসেন তাঁদের বেহালা দেবদারু ফটকের দিকে বিশেষ নজর থাকে। প্রতি বছরই দর্শনার্থীদের জন্য কিছু না কিছু চমক রাখেন পুজো উদ্যোক্তারা। গত বছর পাড়ার পুজোকে থিমের মাধ্যমে মণ্ডপে ফুটিয়ে তুলেছিলেন উদ্যোক্তারা। কারণ, তাদের থিম ছিল ‘আমার পাড়া, আমার পুজো’। তার ঠিক আগের বছর অর্থাৎ ২০২০ সালে করোনার সময় অভিনব উদ্যোগের মাধ্যমে নজির গড়েছিলেন পুজো উদ্যোক্তারা। সংক্রমণের আশঙ্কা এড়াতে সন্তোষ মিত্র স্ক্যোয়ারের পর দর্শকদের জন্য দরজা বন্ধ করে দেয় এই পুজো কমিটি। এবার সুবর্ণ জয়ন্তীতে দেবদারু ফটকের ভাবনা দর্শকদের মন টানবে বলেই আশা ক্লাব কর্তৃপক্ষের।

[আরও পড়ুন: হাই কোর্টে সাময়িক স্বস্তি অনুব্রতকন্যার, হাজিরার নির্দেশ প্রত্যাহার বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে