২৫ কার্তিক  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১২ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৫ কার্তিক  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১২ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রেড রোডে পুজো কার্নিভাল দেখে মুগ্ধ হয়েছিলেন তিনি। গোটা বিষয়টা সুন্দরভাবে সামলানোর জন্য মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসায় পঞ্চমুখ হয়েছিলেন। কিন্তু চারদিন পর ১৮০ ডিগ্রি ঘুরে উলটো সুর রাজ্যপালের গলায়। মঙ্গলবার জগদীপ ধনকড় ভাষাভবনে বিস্ফোরক অভিযোগ তুললেন রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে। তাঁর অভিযোগ, কার্নিভালের দিন তাঁকে অপমান করা হয়েছে। তাঁর চোখে জল চলে এসেছিল। এতটাই ব্যথিত ছিলেন যে এতদিন পর মুখ খুলতে বাধ্য হচ্ছেন তিনি। তাঁর মন্তব্যে ফের একবার রাজ্য-রাজভবন সংঘাতের বাতাবরণ সৃষ্টি হয়েছে।

এদিন রাজ্যপাল বলেন, কার্নিভালের দিন তাঁকে ডেকে অপমান করা হয়েছে। ইচ্ছাকৃতভাবে করা হয়েছে। চার ঘণ্টা তিনি সপরিবারে উপস্থিত থাকলেও কোথাও তাঁকে দেখানো হয়নি। তাঁর উপর সেন্সরশিপ করা হয়েছিল বলে অভিযোগে সরব হয়েছেন জগদীপ ধনকড়। এই ঘটনায় যথেষ্ট অপমানিত বোধ করেছেন তিনি। শুধু তাই নয়, কার্নিভালের সময় তাঁর জন্য আলাদা মঞ্চ তৈরি করে তাঁকে বসানো হয়েছিল। সব ঘটনাতেই তিনি ব্যথিত বলে জানিয়েছেন রাজ্যপাল।

[আরও পড়ুন: জিয়াগঞ্জ হত্যাকাণ্ডের তদন্তে যবনিকাপাত, গ্রেপ্তার মূল অভিযুক্ত]

ধনকড় বলেন, তিনি এরাজ্যের মানুষকে জানাতে চান সেদিন তাঁর সঙ্গে কী ব্যবহার করা হয়েছিল। তাঁর চোখে জল চলে এসেছিল এই অপমানে। তিনি রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান। প্রথম নাগরিক। আর তাঁর সঙ্গেই এমন ব্যবহার করা হল কেন? প্রশ্ন রাজ্যপালের। গোটা সময়টা তিনি যে উপস্থিত ছিলেন, সেটা কোথাও দেখানো হয়নি। ব্ল্যাক আউট করে রাখা হয়েছিল বলে তোপ দেগেছেন তিনি। এদিন যেভাবে চাঁচাছোলা ভাষায় তিনি সরকারের বিরুদ্ধে একরাশ ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন তাতে অস্বস্তিতে শাসকদল। রাজ্য-রাজভবন সংঘাত ফের একবার প্রকট হয়ে উঠেছে। যদিও সেটিনের ব্যবস্থাপনার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর প্রশংসা শোনা গিয়েছিল তাঁর গলায়। তার চারদিন পর উলটো সুর রাজ্যপালের।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং