১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  রবিবার ২ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পুলিশকর্তাদের বদলিতে ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী, কমিশনকে কড়া চিঠি রাজ্যের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 6, 2019 3:58 pm|    Updated: April 17, 2019 1:40 pm

WB CM Mamata Banarjee angry over transfer of Police officers

ধ্রুবজ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায়: ভোটের মুখে চার পুলিশকর্তার বদলি নিয়ে চরম ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী। কমিশনে চিঠি দিচ্ছে রাজ্য সরকার। রাজ্যের তরফে জানানো হয়েছে, কমিশন সরকারকে এ নিয়ে আগে থেকে কিছু জানায়নি। নতুন কাউকে দায়িত্ব দেওয়া হলে, তার নামও চায়নি কমিশন। যার জেরে চরম ক্ষুব্ধ নবান্নের তরফে কড়া চিঠি দেওয়া হচ্ছে কমিশনে। এদিকে, রাজ্যে প্রথম দফা নির্বাচনের আগেই ফের রাজ্যে আসতে পারেন কমিশন নিযুক্ত বিশেষ কেন্দ্রীয় পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে।

[আরও পড়ুন: অস্বস্তি বাড়ল রাজীব কুমারের, হেফাজতে নিতে চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ সিবিআই]

কলকাতা ও বিধাননগরের পুলিশ কমিশনারকে শুক্রবারই সরিয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। কলকাতার পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মার জায়গায় আনা হয়েছে রাজেশ কুমারকে। তিনি আজই দায়িত্ব নেবেন। বিধাননগরের সিপি জ্ঞানবন্ত সিংয়ের জায়গায় আনা হচ্ছে এন রমেশবাবুকে। শুক্রবার রাতে নির্বাচন কমিশন সূত্রে এই খবর জানা গিয়েছে। এ নিয়ে একটি নোটিস জারি করেছে কমিশন। জ্ঞানবন্ত সিং অনেকদিন বিধাননগরের সিপি পদে ছিলেন। কিন্তু অনুজ শর্মাকে সদ্য কলকাতার সিপি করা হয়েছিল। ফলে তাঁকে কেন বদলি করা হল তা স্পষ্ট নয়।

[আরও পড়ুন: কমিশনার পদে মুকুল রায় ‘ঘনিষ্ঠ’ রাজেশ কুমার, কেন্দ্রের কলকাঠি দেখছে তৃণমূল]

সরানো হয়েছে বীরভূম ও ডায়মন্ড হারবারের পুলিশ সুপারকেও। বীরভূমে নতুন পুলিশ সুপার হলেন আভান্যু রবীন্দ্রনাথ। ডায়মন্ড হারবারে শ্রীহরি পাণ্ডে। এর পরই এই চার পুলিশকর্তার বদলি নিয়ে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে নবান্ন। পরিষ্কার জানিয়ে দেয়, কমিশন কোনও আলোচনা ছাড়াই এই কাজ করেছে। তার জন্যই চিঠি দেওয়া হচ্ছে কমিশনকে।

সুত্রের খবর, রাজ্যের আরও বেশ কয়েক জন আধিকারিকের বিরুদ্ধে রিপোর্ট তলব করেছে কমিশন। বেশ কয়েক জন জেলা আধিকারিকের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ জমা পড়েছে কমিশনের দপ্তরে। পাশাপাশি কমিশনের নির্দেশ কার্যকরের ক্ষেত্রে প্রশাসনিকস্তরে অনিহার অভিযোগও উঠছে তাঁদের বিরুদ্ধে। এদিকে প্রথম দফার ভোট প্রস্তুতি প্রায় শেষ। ঠিক হয়েছে আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহার এই দুই কেন্দ্রে শুধুমাত্র স্পর্শকাতর এলাকাগুলিতে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন রাখা হবে। অপেক্ষাকৃত শান্তিপূর্ণ এলাকাগুলিতে রাজ্য পুলিশের সশস্ত্র বাহিনীর উপর সুরক্ষার ভার দেওয়া হবে। রাজ্যের অতিরিক্ত সিইও সঞ্জয় বসু বলেন, “সব বুথে সশস্ত্র বাহিনী থাকবে।”

[আরও পড়ুন: ভোটের মুখে রদবদল, সরানো হল কলকাতা এবং বিধাননগরের পুলিশ কমিশনারকে]

এদিকে কোচবিহারে নির্বাচন পর্বে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নজরদারির ভার শুক্রবারই নির্বাচন কমিশন সঁপেছে দুই পুলিশ কর্তার হাতে। অলোক কুমার রায় ও কে জগদেশন নামে ওই দুই আইপিএস কমিশনের হয়ে সেখানে পুলিশ পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব পালন করবেন। পশ্চিমবঙ্গের কোনও নির্বাচনী কেন্দ্রের ভোট নজরদারিতে এই প্রথম একাধিক পুলিশ পর্যবেক্ষক নিয়োগ করা হল।

ছবি: পিন্টু প্রধান

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে