২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দিলীপের ‘স্বাধীন ভারত অমর রহে’ মন্তব্য যুক্তিপূর্ণ, কারণ ব্যাখ্যা করলেন রাজ্যপাল

Published by: Sayani Sen |    Posted: August 16, 2020 4:55 pm|    Updated: August 16, 2020 4:55 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিতর্ক যেন কিছুতেই পিছু ছাড়ে না তাঁর। বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ (Dilip Ghosh) বারবার তাঁর মন্তব্যের মাধ্যমে নিজেকে বিতর্কে জড়ান। স্বাধীনতা দিবসেও তার ব্যতিক্রম হয়নি। “স্বাধীন ভারত অমর রহে” বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। আর সেই মন্তব্য নিয়ে সরগরম রাজনীতির অন্দরমহল। সব জায়গাতেই চলছে জোর আলোচনা। যদিও এই মন্তব্য নিয়ে সমালোচনার কোনও পালটা জবাব দেননি বিজেপি সাংসদ। তবে দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান তথা রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়।

রবিরার রাজভবনে সাংবাদিক বৈঠক করে রাজ্যপাল দিলীপ ঘোষের মন্তব্য প্রসঙ্গে বলেন, “স্বাধীন ভারত অমর রহে একথা নিয়ে আপত্তি কোথায়? গণতন্ত্র অমর থাকুক এটাই বলেছেন। আমি কোনও আপত্তি দেখছি না।” রাজনৈতিক মহলের মতে, রাজ্য সরকারের সঙ্গে রাজ্যপালের সম্পর্ক কখন ভাল আর কখন যে খারাপ, তা বোঝা দায়। রাজভবন ও নবান্নের মধ্যে কখনও টুইটযুদ্ধ আবার কখনও পত্রবোমা আদানপ্রদান চলতেই থাকে। ঠিক তেমনই চা চক্রেও একসঙ্গে রাজ্যপাল ও মুখ্যমন্ত্রীকে দেখা গিয়েছে। বারবার শাসকদলের তরফে অভিযোগ করা হয়েছে, রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় (Jagdeep Dhankhar) কার্যত বিজেপির একজন হিসাবে এ রাজ্যে কাজ করেন। তাই তিনি রাজ্য সরকারের কোনও কাজই প্রশংসার চোখে দেখেন না। পরিবর্তে তিনি সব সময় সমালোচনা করেন বলেই দাবি রাজ্য সরকারের। দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের সাফাই দেওয়া নিয়ে সেই অভিযোগেই যেন সিলমোহর পড়ল বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। যদিও তৃণমূলের তরফে এ বিষয়ে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

[আরও পড়ুন: ৩০ বছরের ছায়াসঙ্গীর প্রয়াণ, দিলীপ গিরিকে হারিয়ে নিঃসঙ্গ বিমান বসু]

উল্লেখ্য, আপাতত শিলিগুড়িতেই রয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। শনিবার ৭৪তম স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সেখানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন তিনি। বক্তৃতা দেওয়ার সময়ই “স্বাধীন ভারত অমর রহে” বলে মন্তব্য করে বসেন দিলীপ। এছাড়াও জুতো পরে জাতীয় পতাকাও উত্তোলন করেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি। স্বাধীনতা দিবসের জোড়া ঘটনায় আপাতত বিতর্কে দিলীপ ঘোষ।

[আরও পড়ুন: দীর্ঘ পরিশ্রম সার্থক, প্রধানমন্ত্রীর হেলথ আই-কার্ড প্রকল্পের নেপথ্যে মেডিক্যাল কলেজের প্রাক্তনী]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement