৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২০২১ এর ভোট এখনও দেরি। কিন্তু সেই বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতিতে এখন থেকেই রাজ্য নেতাদের নেমে পড়ার নির্দেশ দিলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। শনিবার আইসিসিআর অডিটোরিয়ামে বিধানসভা ভোটের প্রস্তুতি বৈঠক ছিল। আর সেই বৈঠক থেকেই ২৯৪টি বিধানসভা কেন্দ্রভিত্তিক আলাদা আলাদা রিপোর্ট তৈরির কথা বললেন কৈলাস বিজয়বর্গীয়, অরবিন্দ মেননরা। ২৯৪টি বিধানসভা কেন্দ্রে প্রার্থীদের নাম বাছাইয়ের কাজ শুরু করার কথা বলা হয়েছে। তেমনই বিধানসভাভিত্তিক আলাদা আলাদা ইস্যু কি রয়েছে সেটা নিয়েও রিপোর্ট তৈরি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রাজ্য নেতাদের।

[ আরও পড়ুন: বিজেপি দপ্তরে গিয়ে লকেটের সঙ্গে দেখা হাসিন জাহানের, তুঙ্গে যোগদান জল্পনা ]

লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় বিপুল সাফল্য এসেছে। সেই রেশ আগামী বিধানসভা নির্বাচনে ধরে রেখে এ রাজ্যে ক্ষমতা দখলই লক্ষ্য গেরুয়া শিবিরের। তাই সংগঠন গুছিয়ে নেওয়ার দিকে নজর দেওয়ার পাশাপাশি বিধানসভাকেন্দ্রিক ভোট সংক্রান্ত সমস্ত কাজই এখন থেকে শুরু করে দিতে চাইছে তারা। যোগ্য প্রার্থী বাছাই থেকে রণকৌশল, সব কিছু নিয়ে জেলায় জেলায় কমিটি করার কথা বলা হয়েছে। বিভিন্ন জেলায় সামনেই পুরসভার ভোট রয়েছে। সেই ভোটে ভাল ফল যাতে হয় সেজন্যও কমিটি করার কথা বলা হয়েছে দলের সংশ্লিষ্ট জেলা কমিটিগুলিকে। দলের সাংগঠনিক নির্বাচনপর্ব মিটে গেলে পুজোর পর থেকেই মাঠে-ময়দানে নেমে পড়বে বঙ্গ বিজেপি। তার আগে বুথকে শক্তিশালী করে নিতে হবে।

[ আরও পড়ুন: গণেশ পুজোর জলসায় গায়িকাকে ধর্ষণের চেষ্টা, কাঠগড়ায় মাণিকতলার তৃণমূল নেতা ]

এদিকে, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল থেকে বিজেপিতে যোগদানের হিড়িক চলছে। এই পরিস্থিতিতে দলের মধ্যে নতুন ও পুরনোদের মধ্যে একটা দ্বন্দ্ব সামনে আসছে বলে দলীয় সূত্রে খবর। এই জায়গাতেও রাশ টানতে চেয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি এদিন বৈঠকে বলেছেন, দলে নতুন-পুরনোদের নিয়ে কাজ করাটাই বড় চ্যালেঞ্জ। দলের নেতা-কর্মীদের সংগঠিতভাবে চলার বার্তা দিয়েছেন দিলীপবাবু। বলেছেন, বিভিন্ন পার্টি থেকে অভিজ্ঞ রাজনীতিকরা বিজেপিতে আসছেন। তাঁদের যোগ্য সম্মান দিয়ে কাজে লাগানো হবে। নতুন-পুরনো সকলকে নিয়ে এগোতে হবে। একইসঙ্গে দলীয় কর্মীদের তিনি এই বার্তাও দিয়েছেন যে, দল বাড়ছে। বেশি লোক নিয়ে কাজ করার অভ্যাস করুন। মানসিকতায় পরিবর্তন আনতে হবে। মন বড় করতে হবে। আর অন্য দল থেকে যঁারা বিজেপিতে আসছেন, তাঁদের সকলের সঙ্গে মিলে সাবলীলভাবে কাজ করতে হবে। পরামর্শ বিজেপির রাজ্য সভাপতির। দলের দুই কেন্দ্রীয় নেতা কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও অরবিন্দ মেননও সকলকে সংঘবদ্ধভাবে চলার বার্তা দিয়েছেন। বাংলায় বিজেপির সদস্য সংখ্যা এখনও পর্যন্ত ৯০ লক্ষ ছাড়িয়ে গিয়েছে। এটা এক কোটি করতেই হবে। তাহলেই ২০২১-এ বাংলায় পরিবর্তন সম্ভব বলে মনে করছেন দিলীপ ঘোষ।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং