১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৫  রবিবার ১৮ নভেম্বর ২০১৮ 

মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও দীপাবলি ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৫  রবিবার ১৮ নভেম্বর ২০১৮ 

BREAKING NEWS

সন্দীপ চক্রবর্তী: কেন্দ্র আগেই দায় ঝেড়ে ফেলেছে। গতকালই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ জানিয়ে দিয়েছিলেন, পেট্রল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ করা কেন্দ্রের পক্ষে সম্ভব নয়। রবিশংকরের ঘোষণার দিনই অবশ্য বড় সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছিল অন্ধ্রপ্রদেশ সরকার। মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু না/ডু জানিয়ে দিয়েছিলেন, অন্ধ্রপ্রদেশে পেট্রল-ডিজেলের উপর দাম ২ টাকা করে কমানো হল। আজ রাজস্থান সরকারও এই একই সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছেন। স্বাভাবিকভাবেই চাপ বাড়ছিল রাজ্যের উপর। অবশেষে সাধারণ মানুষকে স্বস্তি দিতে বড় ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নবান্নে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিলেন পেট্রল ও ডিজেলে লিটার প্রতি ১ টাকা করে দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার।

[রামের পর বলরাম, বাংলায় বাজিমাতে নয়া উৎসব বিজেপির]

কেন্দ্রের জ্বালানি নীতির সবচেয়ে বড় সমালোচক ছিলেন তিনিই। কেন বারবার পেট্রোপণ্যের দাম বাড়াচ্ছে কেন্দ্র তা নিয়ে বারবার প্রশ্ন তুলেছেন তৃণমূলনেত্রী। পালটা হিসেবে বিজেপি প্রশ্ন তুলছিল অন্য রাজ্যের পথে ধরে এরাজ্যেও কমানো হোক জ্বালানির মূল্য। সিপিএম-বিজেপি একযোগে দাবি অভিযোগ তুলছিল জ্বালানির দাম নিয়ে দ্বিচারিতা করছেন তৃণমূলনেত্রী। বিরোধীদের সমালোচনার যোগ্য জবাব দিয়ে, স্বস্তির খবর ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “পশ্চিমবঙ্গের মতো ঋণের দায় বইতে হয় না কোনও রাজ্যকে। তা সত্ত্বেও অধিকাংশ রাজ্য পেট্রোপণ্যের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি। যে রাজ্যগুলিতে সামনে নির্বাচন শুধু তারাই দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রাজ্যের মানুষের কথা ভেবে, “সাধারণের সমস্যার যাতে কিছুটা সুরাহা হয় সেকথা ভেবে রাজ্যে দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।”

[বিজেপিকে রুখতে সোশ্যাল মিডিয়ায় কর্মীদের আরও সক্রিয় হওয়ার নির্দেশ অভিষেকের]

এদিন সিদ্ধান্ত ঘোষণার পর মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “গত তিন বছরে রাজ্য সেলস ট্যাক্স বা সেস কিছুই বাড়ায়নি। পেট্রল বিক্রি করে কেন্দ্রের আয় ৩৮০ শতাংশ বেড়েছে। কেন্দ্রের সেস কমানো উচিত, সেলস ট্যাক্স কমানো উচিত। আমরা সেস থেকে কোনও অংশ পাই না।” অর্থাৎ, একাধারে দাম কমানোর পাশাপাশি কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকে চ্যালেঞ্জ ছুড়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। ঘুরিয়ে মমতার বার্তা কেন্দ্রেরও দাম কমানো উচিত। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আজও কলকাতায় পেট্রলে লিটার প্রতি ১৫ পয়সা, এবং ডিজেলে লিটার প্রতি ১৪ পয়সা দাম বাড়ানো হয়েছে। আন্তর্জাতিক বাজারে অশোধিত তেলের দামও নতুন করে বেড়েছে ৫০ সেন্ট। বর্তমানে অশোধিত তেলের দাম ৭৭.৮৭ ডলার। তাই মুখ্যমন্ত্রী তেলের দামে স্বস্তি দিলেও আগামিদিনে তাতে আদৌ মানুষের কতটা উপকারে আসবে তা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যাচ্ছে।

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং