২৩ আষাঢ়  ১৪২৭  বুধবার ৮ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

বেলেঘাটা আইডির চিকিৎসক করোনায় আক্রান্ত! ভুয়ো পোস্ট করে গ্রেপ্তার যুবতী

Published by: Sulaya Singha |    Posted: March 28, 2020 11:03 am|    Updated: March 28, 2020 11:36 am

An Images

অর্ণব আইচ: বেলেঘাটা আইডির চিকিৎসক ডক্টর যোগীরাজ রোগীদের সেবা করতে করতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এই ভুয়ো তথ্যটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করার অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হল চন্দ্রিমা ভৌমিক নামের এক যুবতীকে।

দেশজুড়ে করোনার আবহে বেলেঘাটা আইডির এমন খবরে চিন্তা বাড়ে শহরবাসীর। খবরের সত্যতা যাচাই না করে অনেকেই এই পোস্টটি শেয়ার করতে থাকেন। ফলে তৈরি হয় বিভ্রান্তি। শুক্রবার রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফে নিশ্চিত করা হয়, বেলেঘাটা আইডির কোনও চিকিৎসক COVID-19-এর কবলে পড়েননি। এই তথ্য সম্পূর্ণ মিথ্যে। নেটদুনিয়ায় এভাবে ভুয়ো খবর ছড়িয়ে অকারণ বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা হচ্ছে। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে এফআইআর করে রাজ্য সরকার। যার প্রোফাইল থেকে এই ভুয়ো খবর ছড়িয়েছে, তাকে চিহ্নিত করে খুঁজে বের করার দায়িত্ব দেওয়া হয় সাইবার ক্রাইমকে। আর শনিবারই তাঁকে গ্রেপ্তার করা হল। জানা গিয়েছে, ২৯ বছরের চন্দ্রিমার বাবা কিঙ্কর কুমার ভৌমক আবার নিজেও ডাক্তার কর্মরত। ভুয়ো খবর ছড়ানোর অভিযোগ তুলে চন্দ্রিমার বিরুদ্ধে মামলা রুজু করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রীর দেখানো পথেই সাংসদ, সচেতনতার প্রচারে চেতলা বাজারে নুসরত]

শুক্রবারই সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল-এ খবরটি প্রকাশিত হয়। যেখানে একটি স্ক্রিনশট ব্যবহার করা হয়েছিল। সেই স্ক্রিনশটটিতে নাম ছিল চন্দ্রিমা ভৌমিকের। এরপরই ‘সংবাদ প্রতিদিন’-এর অফিসে ফোন করেন তিনি। দাবি করেন, তিনি এই তথ্য অন্যত্র পেয়ে শেয়ার করেছেন। সত্যিটা জানার পর তা মুছেও ফেলেছিলেন। এমনকী এই কাণ্ড ঘটানোর জন্য তিনি দুঃখও প্রকাশ করেন। তবে শনিবারই জানা গেল, এই কাজ তিনিই করেছিলেন।

FB-post

করোনা নিয়ে নানা ধরনের ভুয়ো খবর ঘোরা-ফেরা করছে সোশ্যাল দুনিয়ায়। ঘরবন্দি মানুষের একাংশ তার সত্যতা যাচাই না করেই ফরোয়ার্ড করে দিচ্ছেন। আর তাতেই মুহূর্তে ভুয়ো খবর ছড়িয়ে পড়ে বিভ্রান্তি তৈরি হচ্ছে। বাড়ছে আতঙ্ক। এর জন্য কড়া পদক্ষেপও নিচ্ছে সোশ্যাল সাইটগুলি। এমনকী, গুজব না ছড়ানোর জন্য দেশবাসীকে বারবার অনুরোধ জানাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী-মুখ্যমন্ত্রীরা। কিন্তু তাতেও সম্পূর্ণভাবে এই ‘ভুয়ো অভিযান’ রোখা যাচ্ছে না। সেই জন্যই শুক্রবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, এভাবে যাতে গুজব ছড়ানোর সাহস কারও না হয়, তার জন্য অভিযুক্তর বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

[আরও পড়ুন: লকডাউনে সঞ্চিত খাবার শেষ, অভুক্ত বৃদ্ধার বাড়িতে রসদ পৌঁছে দিল কলকাতা পুলিশ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement