৪ আশ্বিন  ১৪২৬  রবিবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

রূপায়ণ গঙ্গোপাধ্যায়: বুথ থেকে জেলাস্তরে দলের সভাপতি নির্বাচনের ক্ষেত্রে গোপন ব্যালটে ভোটাভুটি নয়। সর্বসম্মতির ভিত্তিতেই সভাপতি নির্বাচন করতে হবে। এমনই বার্তা বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতাদের। সেপ্টেম্বর মাস থেকে শুরু হচ্ছে দলের সাংগঠনিক নির্বাচনপর্ব। রাজ্যজুড়ে দলের সমস্ত বুথ ও মণ্ডল কমিটির সভাপতিদের নির্বাচন হবে সেপ্টেম্বরে। এরপর অক্টোবরে জেলা সভাপতিদের নির্বাচনপর্ব সম্পন্ন হবে। নভেম্বরে হবে রাজ্য সভাপতি নির্বাচন। একেবারে বুথ থেকে কেন্দ্রীয়স্তর পর্যন্ত দলের সাংগঠনিক নির্বাচনপর্বে সহমতের ভিত্তিতে সভাপতিদের নির্বাচনের যে নির্দেশিকা এসেছে তা থেকে স্পষ্ট, সাংগঠনিক নির্বাচনে কোনওরকম গোষ্ঠীদ্বন্দ্বকে বরদাস্ত করা হবে না।

২০২১-এর বিধানসভা ভোটকে সামনে রেখে দলের সংগঠনকে গুছিয়ে নিতে চায় বঙ্গ বিজেপি। বিধানসভা ভোটের আগে বুথ থেকে জেলা ও রাজ্যস্তরে দক্ষদের হাতে দলের বিভিন্ন দায়িত্ব দিয়ে সংগঠনকে শক্ত ভিতের উপর দাঁড় করাতে চাইছেন দিলীপ ঘোষ, সুব্রত চট্টোপাধ্যায়রা। আগামীদিনে রাজ্যে শাসকদলের সঙ্গে সমানে সমানে টক্কর দিতে হলে একেবারে বুথ থেকে দলের সংগঠন শক্তিশালী করা দরকার। সেই লক্ষেই এগোতে চাইছে গেরুয়া শিবির। তাই আগামী রাজ্য কমিটির বৈঠকের আগে দলের রাজ্য নেতৃত্বেও বড়রকমের রদবদল হতে চলেছে।

সাংগঠনিক রদবদলের পাশাপাশি আগস্ট মাসজুড়ে লাগাতার আন্দোলন ও বিভিন্ন ইস্যুতে প্রচার কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার রাতে দলের কোর কমিটির বৈঠক হয়। সেখানে ঠিক হয়েছে, কাশ্মীর নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার যে পদক্ষেপ নিয়েছে তার স্বপক্ষে প্রচার চালানো হবে। দেশের স্বার্থে মোদি সরকারের এই ইতিবাচক পদক্ষেপকে সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরতে ২৪ আগস্ট পর্যন্ত রাজ্যজুড়ে প্রচার কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। এই ইস্যুটাকে সামনে রেখে দলের যুব সংগঠন যুবমোর্চা বড় কর্মসূচিও নিতে চলেছে বলে জানিয়েছেন রাজ্য বিজেপির অন্যতম সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং