BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৫ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

অরূপ বিশ্বাসের ‘ভাইপো’ বলে পরিচয় দিয়ে উঠতি মডেলকে কুপ্রস্তাব, মন্ত্রীর FIR’এ গ্রেপ্তার যুবক

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: October 6, 2020 11:38 am|    Updated: October 6, 2020 11:45 am

An Images

কৃষ্ণকুমার দাস: রাজ্যের পূর্তমন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের (Arup Biswas) ‘ভাইপো’ পরিচয়ে টলিউডে মহিলা মডেলদের কাজ পাইয়ে দেওয়ার টোপ ও ভয় দেখিয়ে তোলাবাজির অভিযোগে গ্রেপ্তার হল এক যুবক। শুধু তাই নয়, মন্ত্রীর ভাই স্বরূপ বিশ্বাসের ছেলে বলে নিজেকে পরিচয় দিয়ে একাধিক মহিলা ও তরুণী মডেলের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরি করেছে বলে অভিযুক্ত যুবক দাবি করেছে। প্রতারনার ফাঁদে পড়া এমনই এক উঠতি অভিনেত্রী-মডেল ওই প্রতারক যুবকের ছবি দিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করতেই তা মন্ত্রীর নজরে আসে। তারপরই স্বয়ং মন্ত্রী এফআইআর দায়ের করেন রিজেন্ট পার্ক থানায়। সোমবার রাতে ওই এলাকা থেকে রণজিৎ বিশ্বাস ওরফে আকাশ নামে যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

টলিউডের কয়েকজন কলাকুশলী ও ফটোগ্রাফারের সঙ্গে পরিচয় ছিল রিজেন্ট পার্কের ২৭ বাবুরাম ঘোষ রোডের রণজিতের। নিজের প্রোফাইলে মডেলদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ছবি দিয়েছিল সে। শুধু তাই নয়, অভিনয় ও মডেলিংয়ে ইচ্ছুক মেয়েদের প্রলোভিত করতে বিভিন্ন নামে ফেসবুকে আটটি অ্যাকাউন্ট খুলেছিল রণজিৎ।

[আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশকে বুড়ো আঙুল, নার্সিংহোমের বিলের বোঝায় নাজেহাল করোনা রোগীর পরিবার]

ঝাড়গ্রাম থেকে কলকাতায় এসে মডেলিংয়ে কাজ শুরু করা এমনই এক মডেল কাম অভিনেত্রীর সঙ্গে কিছুদিন আগে ফেসবুকে আকাশ বিশ্বাসের পরিচয় হয়। কাজ পাইয়ে দেবে বলে তাঁর কাছে ১০ হাজার টাকা চায় আকাশ ওরফে রণজিৎ। কিন্তু অপেক্ষার পরও কাজ না পেয়ে মেয়েটি টাকা ফেরৎ চায়। সেই টাকা আকাশ ফেরৎ দিতে অস্বীকার করলে সেখান থেকেই বিবাদের সূত্রপাত।

হোয়াটসঅ্যাপে তিনটি মেয়ের নানা মডেলিংয়ের ছবি দিয়ে তাঁর সঙ্গে শারিরীক ঘনিষ্ঠতার ইঙ্গিত দেয়। দাবি করে, “এই তিনটি মেয়ে কাজের আগেই ব্যক্তিগতভাবে আমার ঘনিষ্ঠ হয়েছিল।” চাইলে, জেদ করলেই সে এমন অনেক ‘এনজয়’ করতে পারে বলেও অশালীন ভাষায় হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটে সে জানায়। ওই অভিনেত্রীকে মেসেজে সে বলে, “সে আমি তো চাইলে তোমার সঙ্গেও এনজয় করতে পারি।”

কিন্তু ঝাড়গ্রামের ওই মডেল তরুণী কুপ্রস্তাবে রাজি না হয়ে পালটা হুঁশিয়ারি দিয়ে বলে, “নিজেকে কি আমার সৃষ্টিকর্তা ভাব?” তখনই রণজিৎ ওরফে আকাশ ধমক দিয়ে ভয় দেখিয়ে বলে,“ক্ষমতা থাকলে টালিগঞ্জের ইন্ডাস্ট্রিতে পা দিয়ে দেখাও। এই ইন্ট্রাস্ট্রির সভাপতি স্বরূপ বিশ্বাস আমার বাবা।” এখানেই থামেনি, পরের মেসেজে জানায়, “টালিগঞ্জের বিধায়ক, মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস আমার কাকু।” চাপে পড়ে এরপর ওই অভিনেত্রী প্রতারক আকাশের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজে কথাবার্তার স্ক্রিন-শট ও ছবি দিয়ে ফেসবুকে নিজের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে।

টলিউডের ওই উঠতি অভিনেত্রী ফেসবুকে লেখেন, “মানসিকভাবে অত্যাচারিত হবার কারণের জন্য দায়ী কিছু কথাবার্তা আপনাদের সাথে শেয়ার করছি। আমার এই পোষ্ট অন্তত কিছু মানুষকে মিথ্যে প্রতিশ্রুতি/প্রতারণার হাত থেকে রেহাই দেবে বলে আমার মনে হয়।” বিষয়টি এরপর পূর্তমন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের নজরে আসতেই ভুয়ো পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করা ওই যুবকের বিরুদ্ধে নিজের পরিবারের সুনাম নষ্ট হওয়ার অভিযোগ এনে রিজেন্ট পার্ক থানায় এফআইআর করেন। পুলিশ রাতেই রণজিৎকে পালটা টোপ দিয়ে গ্রেপ্তার করে।

[আরও পড়ুন: ১০৫ দিন ধরে কোভিড পজিটিভ মা, পরিবারকে ৫ লক্ষ টাকা ফেরত দিল হাসপাতাল]

উল্লেখ্য, মন্ত্রীর ভাই স্বরূপ বিশ্বাসের দুই শিশু কন্যা রয়েছে। আর এই মুহূর্তে টলিউডে কার্যত অভিভাবক হিসাবে সমস্ত শিল্পী কলাকুশলীদের পাশে থাকেন পূর্তমন্ত্রী। স্বভাবতই তাঁর নাম ভাঙিয়ে রাজ্যের এক উঠতি অভিনেত্রীকে প্রতারণা করায় যথেষ্ট ক্ষুব্ধ অরূপ বিশ্বাস পুলিশকে কড়া ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন। ধৃত যুবককে আজই আলিপুর আদালতে পাঠাচ্ছে পুলিশ। তদন্ত করে পুলিশ দেখছে, আর কোন কোন মডেল ও উঠতি অভিনেত্রীকে এভাবে প্রতারিত করেছে ধৃত রণজিৎ। খতিয়ে দেখা হচ্ছে এর পিছনে কোনও চক্র জড়িত আছে কিনা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement