BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বুধবার ২ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সাবধান! ঠান্ডা লাগলে শিশুকে এই চার ধরনের খাবার একদম দেবেন না

Published by: Suparna Majumder |    Posted: November 10, 2020 6:21 pm|    Updated: November 10, 2020 6:21 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আবহাওয়া পালটাচ্ছে। খোলা আকাশের নিচে দাঁড়ালেই টের পাওয়া যাচ্ছে হিম। ত্বকে ধরতে শুরু করেছে টান। এই সময় সাবধান থাকা আগে যতটা না প্রয়োজন ছিল, তার থেকেই বেশি প্রয়োজন এই করোনা (CoronaVirus) পরিস্থিতিতে। বিশেষ করে আপনার বাড়ির খুদেটির ক্ষেত্রে। এই সময় বাচ্চাদের বেশি ঠান্ডা লাগে। তাই সাবধান থাকা আবশ্যক। সবেচেয়ে বেশি খেয়াল রাখবেন খাবারের ক্ষেত্রে। কারণ তার উপরেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও সুস্বাস্থ্য নির্ভর করে। ঠান্ডা লাগলে শিশুকে কয়েকটি খাবার একেবারেই দেবেন না।

১) মাংস ঠান্ডা লাগলে শিশুকে যত কম মাংস খেতে দেবেন, ততই ভাল। মাটন বা চিকেন, কোনওরকম মাংসই নয়। কারণ মাংসে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন থাকে যাতে গলার ভিতরে মিউকাসের সৃষ্টি হতে পারে। এতে শিশুর অস্বস্তি বাড়বে। আর ভবিষ্যতে অসুস্থতা বাড়তে পারে। অর্গ্যানিক মিট কিংবা মাছ বেশি করে খাওয়াতে পারেন।

২) মিষ্টি জাতীয় খাদ্য- চকোলেট, ক্যান্ডি, মিষ্টি আপনার শিশুর সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করে। বিশেষ করে ঠান্ডার সময়। বেশি মিষ্টতা রক্তে হোয়াইট ব্লাড সেলস তৈরির গতি কমিয়ে দেয়। এর ফলে শিশুর শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা। খুব সহজেই সংক্রমণ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

[আরও পড়ুন: দীপাবলি, ভাইফোঁটার বিশেষ মিষ্টি নিরাপদ তো? মান যাচাই করে পাশমার্ক দেবে কলকাতা পুরসভা]

৩) প্যাকেটজাত খাদ্য – অত্যাধুনিক শপিং কমপ্লেক্সের সৌজন্যে এখন বাঙালির ঘরে ঘরে পৌঁছে গিয়েছে ফ্রেঞ্চ ফ্রাইজ, নাগেটস, সসেজের মতো রেডিমেড প্যাকেটজাত খাবার। শিশু যত এই ধরনের খাবার বেশি খাবে ততই গলায় মিউকাস তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা বাড়বে এবং সালাইভা গাঢ় হতে থাকবে।

French-Fry

৪) দুগ্ধজাত খাবার – দুধ এমনিতে উপকারী কিন্তু সবার ক্ষেত্রে নয়, আর সবসময় নয়। শীতের সময় শিশুর খাবারে চিজ, ক্রিম বন্ধ করে দিন। তেমন হলে দুধের পরিমাণও কমিয়ে দিন। মরশুমের শাকসবজি ও ফল খাওয়ান বেশি করে। বিশেষ করে এমন খাবার যাতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ‘C’ রয়েছে। এতে শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।

[আরও পড়ুন: স্বাস্থ্যের কথা ভেবে এই খাবারগুলি খাচ্ছেন? অজান্তেই নিজের ক্ষতি করছেন না তো]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement