BREAKING NEWS

১৬ আষাঢ়  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

অনলাইনে সবচেয়ে জনপ্রিয় কোন খাবার? নাম শুনলেই জিভে জল আসবে

Published by: Paramita Paul |    Posted: February 3, 2020 7:40 pm|    Updated: February 3, 2020 7:55 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জন্মদিনে বন্ধুদের ট্রিট দিতে হোক কিংবা অফিস ফেরত প্রবাসীর রাতের খাবার, সবেতেই ভারতীয়দের প্রথম পছন্দ বিরিয়ানি। শুধুমাত্র ভারতে নয়, গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে রয়েছে এই পদের প্রেমিক। আর তাই জনপ্রিয়তার প্রতিযোগিতায় গোটা দেশের তাবড়-তাবড় পদকে মাত দিয়েছে বিরিয়ানি। সাম্প্রতিক এক সমীক্ষায় উঠে এসেছে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য।

লম্বা-লম্বা চাল, সঙ্গে মাংসের টুকরো। তার সঙ্গে আরও এক টুকরো আলু। কোনও কোনও ক্ষেত্রে যোগ্য সঙ্গত করে গোটা ডিমও। স্বাদ-গন্ধ যে কোনও মানুষের মন ভুলিয়ে দিতে সক্ষম। একবার যে এই স্বাদ নিয়েছে, সে এই পদের প্রেমে পড়তে বাধ্য। সেমশ্রু সংস্থার সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, গোটা বিশ্বে অনলাইনে সবচেয়ে বেশিবার সার্চ হয়েছে বিরিয়ানির নাম। তবে মাটন বিরিয়ানি প্রেমীদের হারিয়ে দিয়েছে চিকেন বিরিয়ানি। সমীক্ষার ফল বলছে, ২০১৯ সালের ফি মাসে অনলাইনে বিরিয়ানি সার্চ হয়েছে গড়ে ৪.৫৬ লাখ।

[আরও পড়ুন : সকালে চায়ের সঙ্গে ‘টা’ চাই? চোখ বুলিয়ে নিন একবার]

জনপ্রিয় খাবারের তালিকায় চিকেনেরই জয়জয়কার। দূর-দূর পর্যন্ত মাটনের নাম গন্ধ নেই। প্রথমে রয়েছে চিকেন বিরিয়ানি। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে বাটার চিকেন। তবে তৃতীয় পদটি জিতে নিয়েছেন নিরামিষাশিরা। তৃতীয় স্থানে রয়েছে সিঙারা বা সামোশা। এরপর রয়েছে চিকেন টিক্কা মশালা, তন্দুরি চিকেন, ধোসা, নান, ডাল মাখানি-সহ একাধিক পদ।সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে দ্বিতীয় স্থানে থাকা বাটার চিকেনের প্রেমিকের সংখ্যাও কম নয়। ফি মাসে তাকে গড়ে খুঁজেছেন সাড়ে চার লাখ জন। জনপ্রিয়তার দৌড়ে পিছিয়ে নেই সিঙারাও। তার প্রেমিকের সংখ্যা নেহাতই কম নয়। মাসে গড়ে সামোসা সার্চ হয়েছে ৩.৯ লাখ।

[আরও পড়ুন : হোমিওপ্যাথির পর এবার আয়ুর্বেদ, করোনা মোকাবিলায় কাজ করবে ঘরোয়া টোটকা!]

এ প্রসঙ্গে সেমশ্রু সংস্থার জনসংযোগ আধিকারিক ফার্নান্দো অ্যাঙ্গুলো জানিয়েছেন, গোটা বিশ্বে ভারতীয়রা ছড়িয়ে রয়েছেন। তাঁদের অধিকাংশই পাঞ্জাবি বংশোদ্ভুত। যারা যেখানেই থাকুক না কেন, তাঁরা নিজেদের খাবার পছন্দ করেন। তাই ভারতীয় খাবারের চাহিদা তুঙ্গে। নতুন যারা রেস্তরাঁ খুলছেন তাঁদের এই সমীক্ষার রিপোর্ট সাহায্য করবে বলে মনে করছেন ওয়াকিবহাল মহল।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement