BREAKING NEWS

৩১ আশ্বিন  ১৪২৮  সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

গর্ভবতী মহিলারাও এবার নিশ্চিন্তে নিতে পারেন করোনা টিকা, জানাল জাতীয় উপদেষ্টা কমিটি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: May 13, 2021 1:54 pm|    Updated: May 13, 2021 1:55 pm

Corona News: National Immunization Technical Advisory Group says that pregnant and lactating women will be eligible to get vaccines | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের (Pregnant women) জন্য সুখবর।এবার করোনার টিকা নিতে পারবেন তাঁরাও। ছাড়পত্র দিল জাতীয় টিকাকরণ উপদেষ্টা কমিটির (NITAG)। বলা হয়েছে, সদ্য মা হয়েছেন যাঁরা, তাঁরাও টিকা নিতে পারবেন। এতে কারও সমস্যা হবে না। প্রথম ডোজের নির্দিষ্ট সময় পর আবার দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া যাবে। এই খবরে স্বভাবতই খুশি অন্তঃসত্ত্বা মহিলারা। কারণ, এতদিন করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার তালিকা থেকে তাঁদের বাদ দেওয়া হয়েছিল, একাধিক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কথা ভেবে। কিন্তু এবার NITAG’র তরফে তাঁদের টিকাকরণে অনুমোদন মিলল।

অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় নারী শরীরে একাধিক পরিবর্তন আসে। তাই অনেক রকমের সাবধানতা অবলম্বন জরুরি। এই অবস্থায় কোভিড (COVID-19) সংক্রমণ হলে, তা মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে। এসব সত্ত্বেও এতদিন তাঁদের টিকাকরণের আওতা থেকে বাদ রেখেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। একই নিয়ম প্রযোজ্য ছিল সদ্য মা হওয়া মহিলাদের ক্ষেত্রেও। কিন্তু সম্প্রতি করোনা সংক্রমণের ভয়াবহতা বাড়তে থাকায় তা রুখে দেওয়াই অগ্রাধিকার বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। একাধিক পরীক্ষানিরীক্ষার পর তাঁদের পরামর্শ, নির্ভয়ে করোনা টিকা (Corona vaccine) নিতে পারেন গর্ভবতী ও অন্তঃসত্ত্বা মহিলারা। যাঁরা সদ্য সন্তানের জন্ম দিয়েছেন, তাঁরাও প্রসবের পর যে কোনও সময় চাইলে, নিতে পারেন কোভিড ভ্যাকসিন। এই দুই ক্ষেত্রেই আর কোনও ঝুঁকি নেই।

[আরও পড়ুন: শিশুর শরীরে করোনার লক্ষণ কী? কীভাবে সতর্ক থাকবেন? গাইডলাইন দিল স্বাস্থ্যদপ্তর]

এদিন জাতীয় টিকাকরণ পরামর্শদাতা কমিটির তরফে আরও একটি বিষয় জানানো হয়েছে। যাঁরা কোভিড জয় করে সুস্থ হয়ে উঠেছেন, তাঁদের ৬ মাসের মধ্যে টিকা নেওয়ার প্রয়োজন নেই। তারপর প্রয়োজন বুঝে তা নিতে পারেন। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনা প্রতিরোধের সময় যে অ্যান্টিবডি শরীরে তৈরি হয়, তার স্থায়িত্ব অন্তত ৬ মাস। তাই ওই সময়ের মধ্যে করোনা টিকা না নিলেও শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা অক্ষুণ্ণ থাকবে। কিন্তু সমস্যা আপাতত একটাই, একেই দেশে টিকার সংকট। তার উপর যদি গর্ভবতী এবং সদ্য মায়েদের টিকাদান শুরু হয়, তাহলে তার পর্যাপ্ত জোগান দরকার। তা কোথা থেকে আসবে? NITAG’র নতুন পরামর্শের পর আপাতত সেটাই চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে।

[আরও পড়ুন: গুজরাট-মহারাষ্ট্রে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে কালো ছত্রাক, কেন বাড়ছে এই সংক্রমণ?]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement