৪ ভাদ্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৪ ভাদ্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

অন্দরের সাজ, আলোর ব্যবহার, ঘরদোরের নকশা-কারুকাজের… গৃহসজ্জার জন্য এগুলি জরুরি। জেনে নিন ডাইনিং রুম কীভাবে সাজাবেন।

  • পুজো এলেই একটু চলো পালটাই চলো পালটাই মন শুরু করে। চেনা ঘরকে যেন মনে হয় কতদিনের পুরনো, একটু নতুন কিছু হলে ভাল হয়। আসলে উৎসবের আমেজ এই বদলটা চায়। পুজো মানেই তো দুর্গা, লক্ষ্মী, কালীপুজো নয়, বাড়িতে অতিথি অভ্যাগত, পেটপুজোও। তাই বাড়ির খাওয়ার ঘরটা একটু উৎসবের রঙে রাঙিয়ে নিলে বেশ হয়।
  • পুজো মানেই রেনোভেশন, এমনটা সবসময় ভাবা বা পেরে ওঠা সম্ভব হয় না। কিন্তু চেনা জায়গায় টুকরোটাকরা রদবদল ঘটিয়ে একটা নতুন কিছু গড়ে তুলতেই পারি।
  • ডাইনিং রুমে দেওয়ালের রং-ই হল আসল। যত ভাইব্রেন্ট কালার হবে, কনট্রাস্ট শেড হবে তত বেশি অ্যাম্বিয়েন্সে একটা উজ্জ্বল ফ্লেভার থাকবে।
  • যদি রং করাতে চান, তবে রঙের ক্ষেত্রে কনট্রাস্ট শেড ব্যবহার করুন- যেমন, গ্রে আর ব্লু। কোনও একটা বোল্ড রঙের সঙ্গে অন্য রঙের হালকা মিশেল।

বাড়ির দেওয়ালে টাঙানো ছবির যত্ন নেবেন কীভাবে? ]

  • রং করার সুযোগ বা রেস্ত না থাকলে কোনও একটা দেওয়াল আলাদা করে ডেকরেট করে তুলতে পারেন। পেন্ট করতে পারেন বা ওয়ালপেপার লাগিয়ে নিতে পারেন। ওয়ালপেপারে এখন অনেক বৈচিত্র। একটু থিম্যাটিক ওয়ালপেপার হলে ভাল হয়।
  • রংবদল করতে পারছেন না? কোনও চাপ নেই। দেওয়ালগুলো ভাল করে মুছে পরিষ্কার করে কোনও একটা দেওয়ালে মিনিয়েচার পেন্টিং হ্যাঙ্গিং পট র‌্যাক বা নানারকম ইউনিক ওয়াল পিস কালেকশন দিয়ে ডেকরেট করতে পারেন।
  • ইন্ডোর প্লান্ট ঘরের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করে। ডাইনিং টেবিলে একটা ছোট ইন্ডোর প্লান্ট বসাতে পারেন।
  • খাওয়ার ঘরের সিলিং-এ কারুকাজ করলে গোটা ঘরের চেহারাই বদলে যাবে।
  • সিলিং রং করা সম্ভব না হলে ঘরে লাইটিগুলোতে রদবদল আনুন। নজরকাড়া হ্যাঙ্গিং লাইট, শ্যান্ডেলিয়ার বা দেওয়ালে ছোট্ট ছোট্ট লাইট ঘর খুব উজ্জ্বল করে তুলবে।

  • ডাইনিং রুমে যদি একটু জায়গা বেশি থাকে, তবে একরকম সিটিং অ্যারেঞ্জমেন্ট না করে একটু মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ সিটিং অ্যারেঞ্জমেন্ট করুন। খাওয়ার টেবিল-চেয়ার ছাড়া কোনও একটা কোনায় একটা রাউন্ড টি টেবিল রাখতে পারেন।
  • ডাইনিং রুমে পর্দায় বদল আনতে পারেন। খুব গাঢ় রঙের প্রিন্টেড পর্দা ব্যবহার করুন। 
  • দেওয়াল বা গোটা ঘরে ডেকরেশনের সঙ্গে ডাইনিং চেয়ার-টেবিলের একটা কনট্রাস্ট রাখুন। ইক্কত মেটিরিয়াল বা প্রিন্ট বা ট্র‌্যাডিশনাল ডিজাইনের কাপড় দিয়ে চেয়ারের কভার করলে আর দেওয়ালে প্লেন গাঢ় একরং থাকলে দারুণ লাগবে।
  • এখন অনেকেই ডাইনিং রুমে ছোট্ট বার কাউন্টার বা ওয়াইন কাউন্টার রাখেন। কাউন্টারের ডিসপ্লে সুন্দর করুন। ছোট্ট কোজি একটা কাউন্টার রাখুন, খুব বড় নয়।
  • এখন টেবিল-চেয়ারে প্রচুর বৈচিত্র। মেটালিক ফিনিশ টেবিল রাখতে পারেন উইথ গ্লাস টপ। উডেন ফিনিশ টেবিলেও গ্লাস টপ দারুণ মানাবে।
  • ব্ল্যাক মেটালিক ফিনিশ টেবিল খুব স্টাইলিশ লাগবে দেখতে।
  • ট্র‌্যাডিশনাল ডিজাইনের টেবিল-চেয়ারও রাখতে পারেন। তবে এই ধরনের ডাইনিং টেবিল উড বা কুশন প্যাডিং—এর হয় অর্থাৎ চেয়ারে গদি দেওয়া থাকে, সেটা একটু ভারী হয়। চট করে জায়গা বদল ঘটানো যায় না।
  • ডাইনিং টেবিল-চেয়ারের জায়গা বদল ঘটালেও ঘরে একটা পরিবর্তন আসে। আবার চাইলে চেয়ারের মাথার কভার পাল্টেও নতুনত্ব আনতে পারেন।
  • ফোল্ডেব্‌ল ডাইনিং টেবিল এখন খুব চলনসই। এতে ডাইনিং রুমে দরকার মতো টেবিল তুলেও ফেলা যায়।
  • টি-পার্টি থাকলে ডাইনিং টেবিল তুলে টি-টেবিল অ্যারেঞ্জমেন্ট করে অ্যাম্বিয়েন্স বদলে ফেলতে পারেন।

এভাবে সহজেই সাজিয়ে তুলতে পারেন আপনার সাধের ব্যালকনি ]

  • ডাইনিং রুমে কোনও একটা দেওয়ালে কাচের বা সেরামিকের বাসনপত্র দিয়েও সাজানো যেতে পারে। স্লিক শেল্‌ফ তৈরি করে সাজিয়ে রাখুন।
  • একটা ছোট্ট বুক শেল্‌ফ ও চেয়ার রাখা যেতে পারে ঘরে যদি জায়গা থাকে। সঙ্গে ছোট টি-টেবিল।
  • এখন ডাইনিং টেবিলের সঙ্গে দুটো চেয়ার ও একটা বেঞ্চ কনট্রাস্ট করে রাখতে পারেন।
  • ডাইনিং রুমে গেস্ট এলে টেবিল অ্যারেঞ্জমেন্ট ক্যাজুয়াল করুন। যাতে অতিথিরা নিজেরা নিয়ে খেতে পারে। পারিবারিক স্টাইলে প্লেট, স্পুন, সার্ভিং বোলে খাবার রাখুন। এতে আপনার খেতে দিতে হিমশিম খেতে হবে না, আপনি সবার সঙ্গে ইন্টার‌্যাকশন করতে পারবেন, সবার খাবারে আলাদা করে নজরও দিতে পারবেন।
  • দু’-তিনটে করে ডিনার সেট আর টি-সেট রাখুন। কাচের, সেরামিকের বা ফাইবারের ডিনার সেট, টি-সেট থাকলে অতিথি বুঝে বের করুন। অনেক লোকজন হলে সহজে ধোয়ামোছা করে তুলে ফেলা যায় এমন টেবিলওয়্যার অ্যারেঞ্জ করুন।
  • কোস্টার, টেবিল ম্যাটগুলো লো মেন্টেনেন্স ওয়াশেব্‌ল হলে ভাল হয়।

বাড়িতে পোকামাকড়ের উপদ্রব? তাড়াবার এই ঘরোয়া উপায় জানা আছে? ]

  • রাউন্ড শেপ ডিনারওয়্যার না কিনে অন্য শেপ-এর নিতে পারেন। স্কোয়্যার, রেকট্যাঙ্গেল, ওভাল, ট্রায়াঙ্গেল শেপ-এর ডিনারওয়্যার নিতে পারেন।
  • পোর্সেলিন, বোনচায়না, সেরামিক উড, টেরাকোটা, স্লেট, ফাইবার ট্রান্সপারেন্ট গ্লাসের ডিনারওয়্যার সবসময়ই চাহিদা থাকে। এগুলোর মধ্যে প্রিন্ট, গাঢ় ও হালকা রঙের কনট্রাস্ট শেড, বা একটা কোনও সলিড কালারেও নিতে পারেন।
  • ফিগারেটিভ আর্টের ডিনারওয়্যার এখন বেশ চলছে। টেবিলে অন্যরকম লুক আসবে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং