BREAKING NEWS

২৩ আষাঢ়  ১৪২৭  বুধবার ৮ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

অতিথিদের চমকে দিতে চান? এভাবেই সাজিয়ে ফেলুন বাড়ির সদর দরজা

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: May 16, 2019 9:34 pm|    Updated: May 16, 2019 9:34 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঘরের মধ্যে প্রকৃতির ছোঁয়া এখন অনেকেই চাইছেন। ছোট-বড়, লতানো গাছ সাজিয়ে অন্দরসজ্জায় বৈচিত্র্য আনা এখন ট্রেন্ড। বাড়ির প্রবেশদ্বারের সামনেও অনেকে টবে গাছ লাগান বা গাছ  সাজান। বড় বাড়ি হোক ফ্ল্যাট, প্রবেশদ্বারে চমক থাকাটা মাস্ট! আচ্ছা, বাড়ির প্রবেশদ্বারটাই যদি মন ভাল করে দেয় আপনার?  ধরুন, অফিস থেকে ক্লান্তি নিয়ে বাড়ি ফিরছেন… দুয়ারের সামনে পা রাখতেই মুড এক্কেবারে চাঙ্গা হয়ে গেল। অবাক হওয়ার কিছু নেই। তবে, এরজন্য জরুরি বাড়ির প্রবেশদ্বারে নতুন লুক আনা। আর প্রবেশদ্বারে চমক থাকলে, সে বাড়ির কর্তা-গিন্নির উপর শ্রদ্ধা জাগতে বাধ্য। কীভাবে সাজাবেন? রইল টিপস।

[আরও পড়ুন :  OMG! গৃহসজ্জার পরিবর্তনে কমতে পারে আপনার ওজন]

প্রথমেই বলব, ঢোকার দরজায় উজ্জ্বল রঙের সামগ্রী ব্যবহার করুন। নজরে আসবেই আসবে। নীল, লাল, হলুদ কিংবা সবুজ রং ব্যবহার করতেই পারেন। তবে, দরজার কোনও অংশে ব্যবহৃত রং না পালটানো গেলে ওই রঙের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে রং করে ফেলুন।

রং না বদলাতে পারলে ওই রঙের সঙ্গে সামঞ্জস্য রাখুন বাকি সব সজ্জার। দরজার পাশের দেওয়ালে তাক বানিয়ে ছোট টবে গাছ সাজাতে পারেন। দরজার বাইরের দেয়ালসজ্জায় বৈচিত্র্য আনতে দেয়ালেই বাহারি টব কিংবা শোপিস রাখুন। দেয়ালের টবে মানি প্ল্যান্ট বা অন্যান্য ঘরে বেড়ে ওঠা প্রকৃতির গাছ রাখতে পারেন।

সাধারণত বাইরের দরজা সেগুন কাঠের হয়ে থাকে, দরজার রঙের সঙ্গে মিল রেখেও সাজানোর অন্যান্য উপকরণ বেছে নেওয়া যেতে পারে। প্রবেশদ্বারের সামনে কিংবা পাশের দেওয়ালে সামঞ্জস্য রেখে রং করুন। একটা আয়নাও রাখা যেতে পারে। আপনার বাড়িতে ঢোকার আগে অতিথি না-হয় আয়নায় একটু নিজেকে দেখে নেবেন। আয়নাটিও হতে পারে বৈচিত্র্যময়। আয়নার ফ্রেম হতে পারে বেত, কাঠ, রট আয়রন কিংবা টেরাকোটার তৈরি। এই ফ্রেমের মধ্যেই রাখতে পারেন ইমিটেশন ফুল কিংবা লতানো গাছ।

[আরও পড়ুন :  ঘরে আনুন বৈচিত্র্য, সিঁড়ি সাজান ট্রেন্ড অনুযায়ী]

নিজের বাড়ি হলে, প্রবেশদ্বারের সামনে একটা বড় ঘণ্টি রাখতে পারেন। লোহারও হতে পারে। আবার, টেরাকোটার কাজ করা ঘণ্টিও মন্দ লাগবে না। দরজার সামনেটায় জায়গা একটু বেশি থাকলে আরও ভালো। বন্ধ জুতোর ব়্যাকের পাশে একটি ছোট টুল বা বসার জায়গা রাখুন। যাতে, জুতো পড়তে অসুবিধে না হয়। একটি ছোট টেবিলের উপর ফুলদানি রেখে তার নীচেও ড্রয়ার সিস্টেম টুল দিব্যি লাগবে। জায়গাও বাঁচবে। সাজও হবে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement