BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বুধবার ২ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আপনি ধনী না গরিব? এবার হয়তো জানিয়ে দেবে ফেসবুক

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: February 4, 2018 2:57 pm|    Updated: July 11, 2018 4:18 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সামাজিক পরিচয়ের সঙ্গে কোনও ব্যক্তির অর্থনৈতিক অবস্থানও ওতপ্রোতভাবে মিশে থাকে। তবে ভারচুয়াল দুনিয়ায় এতদিন তার বালাই ছিল না। মূলত সাংস্কৃতিক পরিচয়টাই সেখানে মুখ্য। এবং অর্থনৈতিক অবস্থান সরিয়ে রেখেও যে কেউ নিজস্ব সোশ্যাল ইমেজ তৈরি করতে পারেন। তবে এবার থেকে সে ছবিটা বদলাবে। আপনি ধনী না গরিব, তা হয়তো জানিয়ে দেবে ফেসবুকই।

বিচ্ছেদের বদলা, প্রাক্তন প্রেমিকের বাড়ির সামনে দুঃখের গান চালিয়ে নাচ যুবতীর ]

নেহাত বন্ধুর সঙ্গে বন্ধু যোগাযোগের মাধ্যম হয়ে আর নেই ফেসবুক। বরং দিনে দিনে তা অন্যতম ব্যবসার কেন্দ্রে পরিণত হয়ে উঠেছে। ফলত সামাজিক এই মাধ্যমে বিজ্ঞাপনের বাড়বাড়ন্ত। কিন্তু কোন বিজ্ঞাপন কার কাছে পৌঁছবে? এই ধন্দে থাকেন বিজ্ঞাপনদাতারা। যত বেশি সংখ্যক মানুষের কাছে পৌঁছানো যাবে, ততই লাভ, বিষয়টা এমন নয়। বরং যত বেশি সংখ্যক টার্গেট অডিয়েন্সের কাছে পৌঁছানো যাবে ততই পণ্য বিক্রি বাড়বে। কিন্তু ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দেওয়ার ক্ষেত্রে সাংস্কৃতিক রুচি অনুসারে অডিয়েন্স চেনার একটা উপায় আছে। কিন্তু তাদের অর্থনৈতিক অবস্থান জানার কোনও সরাসরি উপায় নেই। এবার তা জানাতেই উদ্যোগী ফেসবুক। জানা যাচ্ছে, একটি বিশেষ প্রযুক্তির পেটেন্টের জন্য আবেদন জানিয়েছে সংস্থাটি। যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে ব্যবহারকারীদের তিনটি অংশে ভাগ করে নেবে। অর্থাৎ উচ্চবিত্ত, মধ্যবিত্ত ও শ্রমজীবী এইভাবে ব্যবহারকারীদের বিভিন্ন অংশে ভাগ করবে ফেসবুক।

শৌচকর্ম করতে গিয়েই ধর্ষিতা, নাবালিকার জন্য শৌচাগার তৈরির উদ্যোগ পুলিশের ]

তা কীভাবে চলবে এই প্রক্রিয়া? বহু তরুণ ফেসবুক ব্যবহারকারী আছেন, যাঁরা এখনও চাকরি করেন না। ফলত উপার্জনের নিরিখে এই ভাগ করতে গেলে হিতে বিপরীত হবে। তাছাড়া ফেসবুকের মতো সংস্থার কাছে কেউ কারও উপার্জনের সঠিক অঙ্ক বলতেও দ্বিধাগ্রস্ত হবেন। ফেসবুক তাই সে পথে হাঁটছে না। বরং শোনা যাচ্ছে, ব্যবহারকারীদের কিছু প্রশ্ন করা হতে পারে। যেমন, ২০-৩০ বছর বয়সিদের প্রশ্ন করা হতে পারে, মোট কতগুলি ইন্টারনেট ডিভাইস তাঁদের আছে। এর উপরের বয়সীদের জিজ্ঞাসা করা হতে পারে, তাঁদের নিজেদের বাড়ি আছে কিনা? এই ভিত্তিতেই গড়ে তোলা হবে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের আর্থ-সামাজিক পরিচয়। তার উপর জোর দিয়েই থার্ড পার্টি বা বিজ্ঞাপনদাতাদের সুবিধা করে দিতে চলেছে সংস্থা। এই শ্রেণি চিহ্নিত হলে অনেক কম সময়ে টার্গেট অডিয়েন্স নির্বাচন করতে পারবেন বিজ্ঞাপনদাতারা। প্রতিদিনই প্রায় নিত্যনতুন পরিবর্তন এনে ব্যবহারকারীদের মজিয়ে রেখেছে ফেসবুক। এই ব্যবস্থা ঠিক কবে থেকে চালু হচ্ছে তা অবশ্য এখনই স্পষ্ট নয়।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement