৩১ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ১৭ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পুজো চলে গিয়েছে। শরৎ-ও শেষের দিকে৷ আসছে কনকনে শীত৷ আর শীতকাল মানেই শুষ্ক আবহাওয়া৷ এই আবহাওয়ায় বিশেষ করে অসুবিধার মুখে পড়ে তারা, যাদের স্কিন প্রচণ্ড শুষ্ক৷ শীতকালে তাদের চামড়া রুক্ষ হয়ে যায়৷ অনেকের পরিস্থিতি এতটাই খারাপ হয়ে যায় যে, চামড়া ফেটে রক্তও পড়ে৷ এমত পরিস্থিতিতে সদ্যোজাতদের নিয়ে বেশি অসুবিধার মুখে পড়তে হয় মায়েদের৷ সন্তানের চামড়া শুষ্ক যাতে না হয়, সেজন্য নানান পন্থার সাহায্য নেন তাঁরা৷ তাঁদের মাথায় সর্বদা ওই একটাই চিন্তা ঘোরে৷ যাতে কোনও ভাবেই সন্তানের চামড়া যেন শুষ্ক না হয়ে যায়৷ সেই বিষয়ে সতর্ক থাকেন প্রতিটি মা৷ চিকিৎসকরা বলছেন, চিন্তা করার কিছু নেই একদম ঘরোয়া পদ্ধতিতেই এই কাজটা করা যায়৷ এর জন্য প্রয়োজন কেবল নির্দিষ্ট কিছু পদ্ধতির৷

[ভাইরাল ফিভারের মরশুমে সতর্ক থাকুন, জেনে নিন মুক্তির উপায়]

১) চিকিৎসকদের মতে, সদ্যোজাতের চামড়া শুষ্ক হওয়ার থেকে আটকাতে পারে ভাল তেল মালিস৷ ফলে স্নানের আগে সদ্যোজাতকে তেল মালিস করা আবশ্যক৷ সেই তেলের মধ্যে যদি থাকে অলিভ ও অশ্বগন্ধা তবে তা চামড়ার জন্য খুব ভাল বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসকরা৷ কারণ এই দুটি পদার্থ চামড়াকে নরম ও টোন করে৷

২) সদ্যোজাত সন্তানকে শীতকালে রোজ স্নান করানোর কোনও প্রয়োজন নেই বলেই পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা৷ তাদের মতে, দুইদিন অন্তর একবার স্নান করালেই ভাল৷ সেক্ষেত্রে অবশ্যই হালকা উষ্ণ জল ব্যবহার করা উচিত৷ কারণ, অতিরিক্ত উষ্ণ জল শিশুর চামড়ার উপরে থাকা পাতলা আস্তরণকে নষ্ট করে এবং অনেকক্ষণ ধরে কোনও শিশুকে স্নান করালে, ওই শরীরের আদ্রতা নষ্ট হয়৷

৩) স্নানের পর শিশুর জন্য বিশেষ ধরনের ক্রিম ব্যবহারের পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা৷ তাঁদের মতে, সেই ক্রিমে অবশ্যই অ্যালোভেরা, আমন্ড অয়েল ও দুধ থাকা প্রয়োজন৷ যা স্নানের পর শরীর শুষ্ক হওয়া থেকে রক্ষা করে৷

[জ্বর থেকে রেহাই পেতে এই অভ্যাসগুলি এখনই বদলান]

৪) বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রবল শীতেও শিশুদের উল, লেপ বা ব্ল্যাঙ্কেট জাতীয় বস্তু দিয়ে চাপা দেওয়া উচিত নয়৷ কারণ, এগুলি খসখসে প্রকৃতির হয়৷ যা শিশুর শরীরের নরম অংশে আঘাত করে৷ চোখে দেখা না গেলেও এটা হয়ে থাকে৷ শিশুকে ঢাকার জন্য শীতে নরম অথচ গরমদায়ক পোশাক বা ঢাকা ব্যবহার করাই ভাল বলে চিকিৎসকদের মত৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং