৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ‘সময় হয়েছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি ডিলিট করে ফেলুন।’ নাহ, যে সে নন, ফেসবুক ব্যবহারকারীদের এমন অনুরোধ করেছেন খোদ হোয়াটসঅ্যাপের অন্যতম কর্ণধার ব্রায়ান অ্যাকটন। যে মন্তব্য নিয়ে ইতিমধ্যেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

[ল্যাপটপে মুখ গুঁজে থাকা স্বভাব! জানেন কী বিপদ ডেকে আনছেন?]

বুধবার টুইট করে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের কাছে নিজেদের অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলার অনুরোধ জানালেন তিনি। ‘ডিলিট ফেসবুক’ হ্যাশট্যাগও তৈরি করে ফেলেছেন তিনি। কিন্তু কেন এমন কথা বলছেন তিনি? আসলে ডেটা প্রতিষ্ঠান কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা প্রায় পাঁচ কোটি ফেসবুক ইউজারের ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে। যার জন্য এর চিফ এগজিকিউটিভ অ্যালেকজান্ডার নিক্সকে ইতিমধ্যেই সাসপেন্ড করা হয়েছে। তারপর থেকেই জনপ্রিয় এই সোশ্যাল সাইটটি বর্জনের রব উঠেছে। অনেকেই বলছেন, যতদিন যাচ্ছে, বিশ্বাসযোগ্যতা হারাচ্ছে ফেসবুক। ইউজাররাও অভিযোগ তুলেছেন, থার্ড পার্টি অ্যাপের মাধ্যমে খুব সহজেই ব্যক্তিগত তথ্য পেয়ে যাচ্ছেন যে কেউ। আর সেখান থেকেই বিভিন্ন বেআইনি কার্যকলাপ করা যাচ্ছে।

২০১৪ সালে ১৯ বিলিয়ন ডলারে হোয়াটসঅ্যাপকে কিনে নেয় ফেসবুক। কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার কেলেঙ্কারি প্রকাশ পাওয়ার যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে চাপের মুখে পড়েছে ফেসবুক। এমনকি আর্থিক ক্ষতিরও সম্মুখীন হয়েছে মার্ক জুকারবার্গের এই প্রতিষ্ঠান। চলতি সপ্তাহে শেয়ার বাজারে প্রায় ৫০ বিলিয়ন ডলার খুইয়েছে ফেসবুক।

[মাত্র ২১ টাকায় আনলিমিটেড 3G/4G ডেটা দিচ্ছে Vodafone]

গত বছরের সেপ্টেম্বরে ফেসবুক থেকে বেরিয়ে যান অ্যাকটন। এবার তিনি যেভাবে ফেসবুকের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন, তাতে অস্তিত্বের সংকটে পড়তে পারে ফেসবুক। এমনটাই মনে করছেন বিশ্লেষকরা। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে ফেসবুকের ব্যবসায়িক সুনামও। তবে ফেসবুক ডিলিট করে দিলে হোয়াটসঅ্যাপ বা ইনস্টাগ্রামের ব্যবসায়িক সাফল্যের উপর প্রভাব পড়তে পারে। কারণ এই দুটি সোশ্যাল সাইটও ফেসবুকের মালিকানাধীন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং