BREAKING NEWS

৩১ আশ্বিন  ১৪২৮  সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

হিন্দু দেবতাদের নিয়ে আপত্তিকর পোস্ট! ইনস্টাগ্রাম, ফেসবুককে নোটিস দিল্লি হাই কোর্টের

Published by: Suparna Majumder |    Posted: June 15, 2021 10:43 am|    Updated: June 15, 2021 6:40 pm

Delhi High court issues notice to Instagram, Facebook over objectionable posts | Sangbad Pratidin

ফেসবুকের সঙ্গে হাত মিলিয়েছিল ইনস্টাগ্রাম।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হিন্দু দেব-দেবীদের নিয়ে একাধিক আপত্তিকর পোস্ট রয়েছে ইনস্টাগ্রামে (Instagram) যা এখনও পর্যন্ত সাইট থেকে মোছা হয়নি। এই অভিযোগের ভিত্তিতে ইনস্টাগ্রাম এবং তার নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফেসবুককে (Facebook) নোটিস পাঠাল দিল্লি হাই কোর্ট (Delhi High Court)। নোটিসে কেন্দ্রের কাছেও জবাব চাওয়া হয়েছে।

গত ২৫ ফেব্রুয়ারি ডিজিটা‌ল কনটেন্ট সংক্রান্ত নয়া নির্দেশিকা জারি করেছিল ইলেকট্রনিক্স ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক। বিস্তর টানাপোড়েনের পর তা মেনে নিয়েছিল ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রামের মতো সংস্থাগুলি। এর মধ্যেই আবার দিল্লির উচ্চ আদালতে এক ব্যক্তি অভিযোগ করেন। ইনস্টাগ্রামে এখনও কিছু এমন পোস্ট রয়েছে, যার মাধ্যমে হিন্দু দেব-দেবীর সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করা হয়েছে। কিছু এমন স্টিকারও রয়েছে যার মাধ্যমে হিন্দুদের অপমান করা হয়েছে। এ বিষয়ে এখনও পর্যন্ত ইনস্টাগ্রামের পক্ষ থেকে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। পোস্ট মোছা হয়ইনি, যাঁরা পোস্টটি করেছিলেন বা শেয়ার করেছিলেন তাঁদের বিরুদ্ধেই কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ।

[আরও পড়ুন: বড়সড় স্বস্তি, দেশের দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা নামল ৬০ হাজারে, কমছে মৃত্যুও]

মামলাকারীর এই অভিযোগের ভিত্তিতেই ইনস্টাগ্রাম, তাঁর নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফেসবুক এবং কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে নোটিস জারি করে দিল্লি হাই কোর্ট। কেন এখনও এ বিষয়ে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি তা জানতে চাওয়া হয়। এমন পোস্টের বিরুদ্ধে কী কী ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে সেই সম্পর্কেও বিস্তারিত জানাতে বলা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারিতেই ডিজিটা‌ল কনটেন্ট সংক্রান্ত নয়া নির্দেশিকায় ইলেকট্রনিক্স ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক জানিয়ে দিয়েছিল, প্রতিটি সংস্থাকেই একটি কমিটি তৈরি করতে হবে নিয়ম ঠিকমতো মানা হচ্ছে কিনা তা দেখতে। সেই সঙ্গে কোনও কনটেন্ট ‘আপত্তিকর’ মনে হলে সেব্যাপারেও পদক্ষেপ করবে সংশ্লিষ্ট কমিটি। সেই সময় বাক স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপের অভিযোগ উঠেছিল। কিন্তু তা ধোপে টেকেনি। পরবর্তীকালে কেন্দ্রের নিয়ম মেনে নিয়েছিল ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রামের মতো সাইটগুলি।

[আরও পড়ুন: ১ লক্ষ ভুয়ো কোভিড রিপোর্ট, একই কিটে বহু মানুষের পরীক্ষা! কুম্ভমেলায় বড়সড় ‘বেনিয়ম’]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement