২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

এবার চিনকে জোর ধাক্কা ‘বন্ধু’র, পাকিস্তানেও নিষিদ্ধ হচ্ছে চিনা অ্যাপ TikTok

Published by: Paramita Paul |    Posted: October 9, 2020 6:38 pm|    Updated: October 9, 2020 8:07 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারত, আমেরিকার পর পাকিস্তানেও নিষিদ্ধ হচ্ছে টিকটক (TikTok)। শুক্রবার পাকিস্তান টেলিকমিউনিকেশন মন্ত্রক থেকে এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়েছে। ইমরান খানের প্রশাসনের এই সিদ্ধান্ত ‘বন্ধু’ চিনের মাথাব্যথা আরও বাড়াবে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

পাকিস্তান (Pakistan) সংবামাধ্যম সূত্রের খবর, টিকটকের কনটেন্ট নিয়ে আপত্তি ছিল প্রশাসনের। এই অ্যাপে আপলাড হওয়া ভিডিও (Vulgar Video) নিয়ে আপত্তি জানিয়েছেন পাকিস্তানের বিভিন্ন স্তরের মানুষ। এরপর চিনা এই অ্যাপটিকে সতর্ক করে প্রশাসন। কিন্তু কোনও লাভ হয়নি। তারপরেও বিভিন্ন আপত্তিকর কনটেন্ট থাকছিল এই অ্যাপে। এরপরই এদিন বন্ধু চিনের এই অ্যাপ বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় পাকিস্তান টেলিকমিউনিকেশন মন্ত্রক।

[আরও পড়ুন : ট্রাম্পের মানসিক অবস্থা খতিয়ে দেখতে কমিশন গঠন করতে চান ন্যান্সি পেলোসি]

পাকিস্তান প্রশাসন তাঁদের সরকারি বিবৃতিতে জানিয়েছে, নিজস্ব প্ল্যটফর্মে আপত্তিকর কনটেন্ট আপলোড আটকানোর জন্য নতুন ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছিল। কিন্তু তা করতে ব্যর্থ হয়েছে তারা। তাই এই অ্যাপ নিষিদ্ধ করা হচ্ছে। প্রসঙ্গত, এ নিয়ে গত জুলাই মাসে টিকটক কর্তৃপক্ষকে সতর্ক করেছিল সংশ্লিষ্ট মন্ত্রক। তবে তাঁদের তরফে আরও জানানো হয়েছে, শর্ত মানলে ফের পাকিস্তানের বাজার ফিরে আসতে পারে টিকটক। কী সেই শর্ত?
অশ্লীল বা আপত্তিজনক কনটেন্ট আপলোড হওয়ার আগেই আটকে দেওয়ার মত মেকানিজম তৈরি করতে হবে তাদের। এ বিষয়ে টিকটকের তরফে কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি। চলতি বছরে ভারত, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়ায় এই অ্যাপটি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সেই তালিকায় এবার যুক্ত হল পাকিস্তানের নামও। 

[আরও পড়ুন : আফগানিস্তানে জঙ্গিদের মদত দিচ্ছে ভারত, FATF-এর নজর ঘোরাতে দাবি পাকিস্তানের]

আপত্তিকর কনটেন্ট নিয়ে পকিস্তানের আপত্তি অনেক আগেই উড়িয়েছিল টিকটক কর্তৃপক্ষ। তাঁরা জানিয়েছিল, ২০১৯ সালের দ্বিতীয়ভাগে এই ধরণের প্রায় ৩৭ লক্ষ ভিডিও তারা পাকিস্তানের টিকটক প্ল্যাটফর্ম থেকে সরিয়েছে। এর মধ্যে ৯৮ শতাংশ ভিডিও রিপোর্ট করার আগেই সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। ৮৯ শতাংশ ভিডিও একজনও দেখার আগে সরানো হয়েছে। কিন্তু সেসব দাবিতে আপাতত কান দিতে নারাজ ইমরান প্রশাসন। তবে ‘বন্ধু’র কছে এতবড় ধাক্কা খেয়ে চিন এবার কী করে, তাই দেখার। 

 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement