BREAKING NEWS

২  ভাদ্র  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ১৮ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

এখন একটাই ভয়, খাড়া সিংয়ের সঙ্গে আবার গব্বর সিংয়ের না দেখা হয়ে যায়!!!

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 23, 2017 11:16 am|    Updated: December 30, 2019 2:16 pm

Dooars forest officials fear another showdown between rhino Khara Singh and Gabbar Singh

ব্রতীন দাস, শিলিগুড়ি: ক্ষত সারিয়ে সুস্থ হতেই ফের স্বমহিমায় খাড়া সিং৷ ডুয়ার্সের গরুমারার জঙ্গলে আবারও ধুন্ধুমারের আশঙ্কা৷ তটস্থ বনকর্তারা৷ শুধু গরুমারা নয়, জলদাপাড়া-সহ গোটা উত্তরবঙ্গের জঙ্গলে যত গন্ডার রয়েছে, তার মধ্যে অন্যতম ষন্ডা-গন্ডা এটি৷ এলাকা দখলের লড়াই ঘিরে খাড়া সিংয়ের দাপট এর আগে অনেকবারই দেখেছেন গরুমারার বনকর্মীরা৷ তাই ভয় পিছু ছাড়ছে না বনকর্তাদের৷

[ঠাকুরঘরের ক্ষেত্রে এগুলি মানেন তো? তাহলে নিশ্চিন্তে থাকুন]

মাসখানেক আগে ধূপঝোরার জঙ্গলে রহস্যজনকভাবে জখম হয় বছর পনেরোর এই পুরুষ গন্ডার৷ তার পিঠে একটি ক্ষতচিহ্ন দেখা যায়৷ মনে করা হয়, সেটি ছররা গুলির ক্ষত৷ বনবস্তির বাসিন্দারাও জানান, তাঁরা গুলির আওয়াজের মতো শব্দ শুনতে পেয়েছেন৷ এতেই আশঙ্কা তৈরি হয়, তা হলে কি খাড়া সিংয়ের উপর নজর পড়েছে চোরাশিকারিদের৷ শুরু হয় জঙ্গলে চিরুনি তল্লাশি৷ এসএসবি ও পুলিশ কুকুর দিয়ে তল্লাশি চালানোর পাশাপাশি বাড়ানো হয় জঙ্গলের নিরাপত্তা৷ কুনকি নামিয়ে জঙ্গলে খাড়া সিং-কে খুঁজে শুরু হয় চিকিৎসা৷ তৈরি করা হয় মেডিক্যাল টিম৷ তবে আদৌ ক্ষতটি গুলির কি না তা নিয়ে অবশ্য বনকর্তারা নিশ্চিত করতে পারেননি৷ মাসখানেকের চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে ফের স্বমহিমায় খাড়া সিং। গরুমারার ডিএফও নিশা গোস্বামী বলেছেন, “খাড়া সিং এখন সুস্থ হয়ে নিজের পুরনো মেজাজে৷ ধূপঝোরার জঙ্গলে দেখা গিয়েছে তাকে৷ ওর উপর নজর রাখা হচ্ছে৷”

[শ্রীজাতকে ত্রিশূল দিয়ে ‘সংহার’ করলে মিলবে ৫ লক্ষ, ঘোষণা ফেসবুকে]

ঝূপঝোরার কাছেই গরুমারা বিটের জঙ্গলে দেখা গিয়েছে ঘাড় মোটা, গব্বর সিং ও বোতল সিংয়ের মতো গন্ডারদের৷ দাপটে তারাও কম যায় না৷ এরা প্রত্যেকেই ‘মস্তান’ গন্ডার বলে পরিচিত৷ খাড়া সিংয়ের মুখোমুখি হলে এদের মধ্যে লড়াই অনিবার্য বলে মনে করছেন বনকর্মীরা৷ তাঁদের আশঙ্কার কারণ, গরুমারা ও ধূপঝোরা জঙ্গলে তিন-চারটি স্ত্রী গন্ডার ঘোরাফেরা করছে৷ তাই সঙ্গীনী দখলের লড়াই বাধতে পারে৷ এর আগে এই সঙ্গীনী দখলের লড়াইয়ের জেরেই বিবাগি হয়ে গরুমারা ছেড়ে চলে যায় কান কাটা ও কান হেলা নামে দু’টি গন্ডার৷ হাজারো চেষ্টায় তাদের ফেরাতে পারেননি বনকর্মীরা৷ শেষমেশ তিস্তার চরে মহানন্দার জঙ্গলে বিবাগি একটি গন্ডারের মৃত্যু হয় চোরাশিকারিদের হাতে৷ এর পর অন্য গন্ডারটিকে শিলিগুড়ির সাফারি পার্কে পাঠানো হয়৷ ফলে নিজেদের মধ্যে লড়াই ঘিরে যাতে আর কোনও গন্ডার গরুমারার জঙ্গল ছেড়ে চলে না যায়, তা নিয়ে সতর্ক বনকর্মীরা৷ তবে, গরুমারার বনকর্মীদের এখন একটাই চিন্তা, খাড়া সিংয়ের মেজাজ বিগড়ে গেলে জঙ্গলে আবার না ধুন্ধুমার বেধে যায়।

[চার বছর ধরে নিজেদের ঘরবন্দি করে রেখেছেন এই মা ও মেয়ে]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে