BREAKING NEWS

১৪  আশ্বিন  ১৪২৯  বুধবার ৫ অক্টোবর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

সৎকারের দুদিন পর ফিরে এলেন ‘মৃত’ যুবক! আজব কাণ্ড উত্তরপ্রদেশে

Published by: Paramita Paul |    Posted: August 9, 2020 2:36 pm|    Updated: August 9, 2020 2:42 pm

Kanpur man returns home 2 days after being buried by family

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রবীন্দ্রনাথের কাদম্বিনী মরে প্রমাণ করেছিলেন, তিনি মরেননি। আর উত্তরপ্রদেশের (Uttar Pradesh) যুবককে কবর দেওয়ার দুদিন পরে ফিরে এসে প্রমাণ করলেন তিনি এখনও জীবিত। এদিকে সৎকারের দুদিন পর মৃত ব্যক্তিকে সশরীরে হেঁটে বাড়ি ফিরতে দেখে তাজ্জব প্রতিবেশীরা। কী করে ঘটল এমন ঘটনা?

উত্তরপ্রদেশের কানপুরের (Kanpur) কর্নেলগঞ্জ এলাকায় বউ নাগমার সঙ্গে ঝগড়া করে ২ আগস্ট ঘর ছেড়েছিলেন আহমেদ হাসান। দুদিন ধরে খোঁজ না পেয়ে পুলিশের কাছে নিখোঁজ ডাইরি করেছিলেন নাগমা ও পরিবারের অন্য সদস্যরা। ৫ আগস্ট একটি দেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তাঁকে হাসান বলে সনাক্ত করেন পরিবারের সদস্যরা। প্রতিবেশীদের সঙ্গে নিয়ে গিয়ে নিকটবর্তী গোরস্থানে তাঁকে সমাধিস্থ করা হয়। এ পর্যন্ত সব ঠিক ছিল। এরপর ৭ আগস্ট প্রতিবেশীরা দেখেন, রাস্তা দিয়ে গটগট করে হেঁটে আসছেন হাসান। তাঁকে দেখে তো সকলে তাজ্জব। এদিকে হাসান বাড়ি ফিরে দেখেন দরজায় তালা। প্রতিবেশীদের থেকে গোটা বিষয়টা শুনে তো তাঁরও মাথায় হাত। তড়িঘড়ি পুলিশ স্টেশনে ছোটেন স্বামী-স্ত্রী।

[আরও পড়ুন : OMG! বকেয়া না পেয়ে মালিকের নম্বর এসকর্ট সার্ভিসে দিল কর্মী! তারপর…]

ঘটনা প্রসঙ্গে হাসান জানান, “দু’তারিখ বউয়ের সঙ্গে ঝগড়া হয়েছিল। রাগের মাথায় বাড়ি ছেড়ে চলে গিয়েছিলাম। সেই সময় এক ভদ্রলোক আমাকে কাজ জোগার করে দেন। সেই কারখানাই কাজ করছিলাম। টাকা পেয়ে বাড়ি ফিরলাম। এসে দেখি এই অবস্থা!আমার নাকি সৎকার করা হয়ে গিয়েছে।” এদিকে নাগমার দাবি, “পুলিশ দেহটা নিয়ে এসেছিল। প্রথমে মুখ দেখে বুঝতে পারিনি। পরে ওঁর ভাই সনাক্ত করল। তাই সৎকার করেছিলাম।” পুরো বিষয়টা নিয়ে বেজায় ফাঁপরে পড়েছেন কানপুর পুলিশ। এসএসপি প্রীতন্দর সিং বলেন,” হাসানের পরিবার কার দেহ সৎকার করল, সেটাই খুঁজে দেখতে হবে এবার।”

[আরও পড়ুন : খনিতে কাজ করতে গিয়ে মিলল তিন টুকরো হিরে! রাতারাতি লাখপতি মধ্যপ্রদেশের শ্রমিক]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে