৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

স্টাফ রিপোর্টার: পুজো উদ্বোধনের বিষয়টা একই রইল। শুধু বদলে গেল আয়োজক কমিটির নাম। সংঘশ্রীর বদলে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে পুজোর উদ্বোধন করতে অনুরোধ জানাল ফ্রেন্ডস ইউনিয়ন। দক্ষিণ কলকাতার ট্রায়াঙ্গুলার পার্ক এলাকার এই পুজো কমিটির পক্ষ থেকে শনিবার অমিত শাহকে চিঠি দেওয়া হয়েছে বলে রাজ্য বিজেপি সূত্রে খবর।

[আরও পড়ুন: বিজেপি দপ্তরে গিয়ে লকেটের সঙ্গে দেখা হাসিন জাহানের, তুঙ্গে যোগদান জল্পনা]

ফ্রেন্ডস ইউনিয়নের পাঠানো চিঠিতে বলা হয়েছে, এবছর এই ক্লাবের ৫৭ তম দুর্গোৎসব। সেই উপলক্ষে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ জানিয়েছে ক্লাব কর্তৃপক্ষ। উল্লেখ্য, চলতি বছরে রাজনৈতিক কৌশল হিসেবে শহরের কয়েকটি নামী দুর্গাপুজো নিজেদের দখলে আনতে উদ্যোগ নিয়েছিল রাজ্য বিজেপি। যা নিয়ে তাদের সঙ্গে বিরোধ তৈরি হয় শাসকদল তৃণমূলের।

কয়েকদিন আগে কালীঘাটের সংঘশ্রী ক্লাবের খুঁটিপুজোয় রাজ্য বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুকে প্রধান অতিথি করা নিয়ে ক্লাবের সদস্যদের মধ্যে ব্যাপক সংঘাত তৈরি হয়। পরবর্তীকালে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব ঝাঁপিয়ে পড়ে সেই পুজো কমিটি পুনর্দখল করে। একইভাবে রাসবিহারীর কাছে একটি পুজোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলতে গেলে বিজেপি নেতা অজয় অগ্নিহোত্রীকে শারীরিক নিগ্রহের শিকার হতে হয়।

[আরও পড়ুন: গণেশ পুজোর জলসায় গায়িকাকে ধর্ষণের চেষ্টা, কাঠগড়ায় মাণিকতলার তৃণমূল নেতা]

পরে গুরুতর আহত অবস্থায় অজয়কে একটি নার্সিংহোমে ভরতি করতে হয়েছিল। এরপরই বিজেপি নেতৃত্ব সিদ্ধান্ত নেয় তাঁদের কাউকে আমন্ত্রণ জানাতে হলে সেই ক্লাবের প্যাডে লিখিতভাবে আমন্ত্রণপত্র দলের রাজ্য দপ্তরে জমা দিতে হবে।

গত কয়েকমাস ধরে কালীঘাটের সংঘশ্রী ক্লাবের দুর্গাপুজোর রাশ কার হাতে থাকবে তা নিয়ে টানাপোড়েন চলছিল।বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু সংঘশ্রী ক্লাবে এসে বৈঠক করে যেতেই বিষয়টি জানাজানি হয়। সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ এই পুজো উদ্বোধন করতে আসবেন বলেও খবর ছড়ায়। তারপরই এই পুজো নিজেদের দখলে আনতে আসরে নামেন মুখ্যমন্ত্রীর ভাই কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়। সংঘশ্রী ক্লাবের সঙ্গে যুক্ত মানুষজনের সঙ্গে ধারাবাহিকভাবে বৈঠক করেন তিনি। এরপর বদলে যায় পুরো ছবি। সায়ন্তন বসুর পক্ষে থাকা লোকদের সরিয়ে নতুন কমিটি তৈরি হয়। 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং