২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৬ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

কেমন আছি আমরা? পুজোয় নিজেদের নতুন করে চিনতে শেখাবে বেহালার এই ক্লাব

Published by: Sulaya Singha |    Posted: October 17, 2020 3:31 pm|    Updated: October 17, 2020 3:35 pm

An Images

এবছর করোনা আবহেই পুজো। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্লাবগুলিতে চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি৷ কলকাতার বাছাই করা কিছু সেরা পুজোর সুলুকসন্ধান নিয়ে হাজির sangbadpratidin.in৷ আজ পড়ুন বেহালা নূতন সংঘে পুজোর প্রস্তুতি৷

সুলয়া সিংহ: বদলে যাওয়া এই পৃথিবীতে কেমন আছি আমরা? দিনের পর দিন আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে সেই একই প্রতিচ্ছবি দেখে যেন বিধ্বস্ত সকলে। অন্যের মুখ দেখার বালাই নেই। ভারচুয়াল দুনিয়া ব্যতীত যোগাযোগের উপায় নেই। সবমিলিয়ে এই দীর্ঘ ঘরবন্দি জীবন যেন শরীর-মনের বিকৃতি ঘটিয়েছে। তাই জানাটা খুব জরুরি যে কেমন আছি আমরা। উৎসবের অজুহাতে সেই ‘বিকৃতি’র বেড়াজাল ভেঙে বেরতে পেরে তাই নতুন করে নিজেকে চিনে নেওয়ার সুযোগ পাওয়া গিয়েছে। এ নগরের দর্পণ হয়ে মানুষকে তাঁদের নিজেদেরই সামনে দাঁড় করাচ্ছে বেহালা নূতন সংঘ।

Behala Nutan Sangha

পুজো পরিক্রমায় বেরিয়ে বেহালা (Behala) ১৪ নম্বর বাস স্ট্যান্ডের একেবারে কাছের এই প্যান্ডেলে যাঁরা যান, তাঁরা এবার প্রতিমা দর্শনে গেলে বেশ অবাকই হবেন। প্রথমত, সরকারি নিয়ম মেনে ভোল বদলেছে মণ্ডপের। কমেছে পরিসরও। রাজ্যের নির্দেশিকা মেনেই চারদিক খোলা প্যান্ডেল হয়েছে। কিন্তু তাতেও শিল্পীর শিল্প ভাবনায় ভাটা পড়েনি। দর্পণ অর্থাৎ আয়নার মধ্যে দিয়েই মানুষ তথা সমাজের এখনকার রূপটা তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন শিল্পী দেবজ্যোতি জানা। কর্মহীন-অর্থহীন জীবন যাপন যে তাদের মনে গভীর ছাপ ফেলেছে, বিকৃত করেছে চিন্তাশক্তিকে, সে ছবিই ফুটে উঠছে মণ্ডপজুড়ে। থিমের পোশাকি নাম ‘নগর দর্পণ’। আর আলো-আঁধারির খেলায় শিল্পীর সেই সৃষ্টি হয়ে উঠছে আরও মোহময়।

[আরও পড়ুন: ‘দেবীঘটে’ই পুজো, মহামারীতে মায়ের ভোগ বিতরণ বন্ধ কলকাতার এই নামজাদা বারোয়ারিতে]

Behala Nutan Sangha

তবে যদি ভাবেন এখানেই অবাক হওয়ার ইতি, তাহলে আপনি ভুল। মণ্ডপের আরও খানিকটা কাছাকাছি আসুন। এবার তাকান প্রতিমার দিকে। বিখ্যাত শিল্পী সনাতন দিন্দার হাতে গড়ে ওঠা প্রতিমা দেখতে একটু সময় নিন। কারণ একই অঙ্গে যেমন বিভিন্ন আর্টফর্মকে ফুটিয়ে তুলেছেন শিল্পী, ঠিক একইভাবে কঠিন সময়ে দেবী দুর্গা এখানে সমাজকে একসঙ্গে থাকার বার্তা দিচ্ছেন।

Behala Nutan Sangha

দেবজ্যোতি জানার কথায়, “ইন্দো-তিব্বতী ঢঙের প্রতিমার হাতের ভঙ্গিতে ইন্দোনেশিয়ান আর্টফর্মের ছোঁয়া রয়েছে। মায়ের চোখ আবার প্রথিতযশা শিল্পী যামিনী রায়ের অঙ্গনের আদলে। আবার রয়েছে পটচিত্রও।” সবমিলিয়ে এবার দর্শনার্থীদের নতুন শিল্প ভাবনা উপহার দিতে তৈরি নূতন সংঘ (Behala Nutan Sangha)। আয়নার মুখোমুখি হতে আপনি তৈরি তো?

Behala Nutan Sangha

[আরও পড়ুন: তৃতীয়া থেকে ২৪ ঘণ্টাই লাইভ দেখা যাবে সুরুচি সংঘের পুজো, কীভাবে জেনে নিন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement