৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মাত্রাতিরিক্ত দূষণে জেরবার দেশের রাজধানী। রবিবার দিনেদপুরে পুরু ধোঁয়াশার চাদরে ঢেকেছিল দিল্লির একাধিক অঞ্চল। শ্বাস নেওয়া দুষ্কর হয়ে পড়েছে আট থেকে আশির। শনিবার এবং আজ, রবিবার বাতাসের গুণমান সূচক (এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স) ৯৯৯ ছাড়িয়েছে বহু জায়গায়। যা পরিস্থিতি, অনেকেই এই মূহূর্তে দিল্লি ও এনসিআর এলাকা ছেড়ে পালাতে চাইছেন। এই অবস্থায় দোষারোপ-পালটা দোষারোপের রাস্তায় না হেঁটে সবাইকে মিলে সমস্যা সমাধানের জন্য আহ্বান জানালেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। সবার সঙ্গে বসে আলোচনার মাধ্যমে দূষণ থেকে মুক্তির উপায় খোঁজার আবেদন জানালেন কেজরি।

দিল্লির লাগামছাড়া দূষণের জন্য প্রথম থেকেই পড়শি রাজ্য পাঞ্জাব ও হরিয়ানাকে দায়ী করে আসছেন কেজরি। পাশের দুই রাজ্যে এই সময় খেত থেকে ফসল তোলার পর খড় জ্বালানো প্রক্রিয়ার প্রভাব পড়ছে রাজধানীতে। কিন্ত পাঞ্জাবের অমরিন্দর সরকার আবার দূষণের জন্য পালটা দিল্লির কোর্টে বল ঠেলে দিচ্ছেন। এই অবস্থায় রবিবার কেজরি একটি ভিডিও বার্তা টুইট করেছেন। সেখানে তিনি বলেছেন, ‘দোষারোপের খেলায় আম আদমি পার্টি বিশ্বাসী নয়। দিল্লির মানুষের হিতের জন্য এই সরকার সর্বতোভাবে কাজ করেছে। কেন কাউকে খামোখা দোষারোপ করব আমরা? কিন্তু আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম, শিশুদের জন্য দিল্লিকে বাসযোগ্য করতে হলে সবাইকে মিলে এই সমস্যার সমাধান বের করতে হবে।’

[আরও পড়ুন: দূষণের জেরে গ্যাস চেম্বার দিল্লি, সরকারি নির্দেশে বন্ধ সমস্ত স্কুল]

প্রসঙ্গত, সোমবার থেকেই রাজধানীতে ফের যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে জোড়-বিজোড় নীতি শুরু হচ্ছে। এই নীতির জন্য এর আগেও কেজরি সরকারকে সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে। কিন্তু এই নীতিতেই দূষণ কমানোর জন্য আস্থা রাখছেন কেজরিওয়াল। এদিকে, ধোঁয়াশায় কম দৃশ্যমানতার জেরে রবিবার ৩৭টি বিমান দিল্লি বিমানবন্দরে অবতরণ করতে পারেনি। সেগুলি ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং