২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  রবিবার ৮ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

দিব্যেন্দু মজুমদার, হুগলি: বয়সে ছোট হলে কি হবে মস্তিষ্ক চলে দুরন্ত গতিতে। সব সময় নতুন কিছু আবিষ্কারের নেশা তাকে তাড়িয়ে বেড়ায়। সেই নেশা থেকেই ফের সে বানিয়ে ফেলেছে এমন এক যন্ত্র যা দূষণ কমাতে সাহায্য করবে। সারা দেশে এর আগেও বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ক্ষেত্রে তার চিন্তাভাবনা রীতিমতো সাড়া ফেলে দিয়েছিল। এবার হুগলি কলেজিয়েট স্কুলের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ১২ বছরের অভিজ্ঞান কিশোর দাসের আবিষ্কার ‘সেফ পলিউট্যান্ট’।

কিন্তু কী এই ‘সেফ পলিউট্যান্ট’? অভিজ্ঞান জানিয়েছে, “প্রত্যেক গাড়ি থেকে নির্গত গ্যাসের দূষণমাত্রা ঠিক কতটা তা জানা যাবে খুব সহজেই। গ্যাসে দূষণের মাত্রা অত্যধিক হলে গাড়ির ইঞ্জিন সার্ভিসিংয়ের জন্য খোদ গাড়ির মালিকের মোবাইলে মেসেজের মাধ্যমে নির্দেশও চলে যাবে। নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে ইঞ্জিন সার্ভিসিং না করানো হলে গাড়ি সম্পর্কিত যাবতীয় তথ্য পুলিশের কাছে পৌঁছবে। একই সঙ্গে মালিকের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে আরটিও দপ্তর টাকা কাটা শুরু করে দেবে।” তাঁর দাবি, একটা সময়ের পর গাড়ির ইঞ্জিনও লক হয়ে যাবে।

[আরও পড়ুন : সৎ বাবার যৌন লালসার শিকার মেয়ে, লাগাতার ধর্ষণে গর্ভবতী নাবালিকা]

চুঁচুড়ার নারকেলতলার বাসিন্দা দম্পতি অনিন্দ্য কিশোর দাস ও প্রিয়াঙ্কা দাসের সন্তান অভিজ্ঞান। সে জানিয়েছে, “বর্তমান পৃথিবীতে দূষণ মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। মানুষের সুস্থভাবে জীবণ ধারণ করাও যেন বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই ভাবতে শুরু করলাম দূষণ ঠেকাতে কী করা যায়। তাই ভাবলাম যদি গাড়ির মধ্যেই একটা নতুন ডিভাইস যুক্ত করে দূষণ নিয়ন্ত্রণ করা যায়।”  ছেলের এই সাফল্যে খুশি বাবা-মা। চুঁচুড়া নারকেলতলার বাসিন্দারাও গর্বিত কিশোর অভিজ্ঞানকে নিয়ে। তাঁদের প্রার্থনা আগামী দিনে কিশোর যেন বিজ্ঞানের অগ্রগতিতে সাহায্য করে। ৫ নভেম্বর থেকে ৮ নভেম্বর পর্যন্ত কলকাতার বিশ্ববাংলা ভবনে অনুষ্ঠিত হয় পঞ্চম ইন্টারন্যাশানাল সায়েন্স ফেস্টিভ্যাল। ওই অনুষ্ঠানে অভিজ্ঞানের ‘সেফ পলিউট্যান্ট’ প্রজেক্টটি ছিনিয়ে নিয়েছে সেরার শিরোপা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং