৪ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ২০ জুলাই ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে আরও দুটি ম্যাচ বাকি। তবে তার আগেই ওয়ানডে সিরিজ পকেটে পুরে ফেলেছে টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু দলের জয়ের দিনই ভারতীয় শিবিরে এসে পৌঁছলো খারাপ খবরটা। নির্বাসিত আম্বাতি রায়ডু।

সোমবারই আইসিসি-র তরফে জানিয়ে দেওয়া হল, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বোলিং থেকে নির্বাসিত করা হল ভারতীয় ক্রিকেটারকে। অর্থাৎ তিনি দলে থাকলেও বোলিং করতে পারবেন না। যতদিন না পর্যন্ত বোলিং টেস্টে উত্তীর্ণ হয়ে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে পারছেন, ততদিন নির্বাসিতই থাকবেন তিনি। তবে, আন্তর্জাতিক ম্যাচে বোলিং করতে না পারলেও তাঁকে ঘরোয়া ক্রিকেটে বল করার অনুমতি দিতে পারে ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড (বিসিসিআই)।

[কিউয়ি ভূমিতেও বিরাট দাপট, ২ ম্যাচ বাকি থাকতেই সিরিজ ভারতের]

ঘটনার সূত্রপাত অস্ট্রেলিয়া সফরের ওয়ানডে সিরিজের প্রথম ম্যাচে। দিনটা ছিল ১৩ জানুয়ারি। আর সেটি আনলাকিই প্রমাণিত হল রায়ডুর জন্য। সিডনিতে সাত উইকেটে সে ম্যাচ জিতেছিল টিম ইন্ডিয়া। সেখানেই রায়ডুর বোলিং অ্যাকশন নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। তারপরই বিষয়টিকে কড়া হাতে সামলায় বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ামক সংস্থা। ভারতীয় ব্যাটসম্যানকে নির্দেশ দেওয়া হয়, ১৪ দিনের মধ্যে তাঁকে বোলিংয়ের পরীক্ষা দিতে হবে। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের মধ্যে বোলিং অ্যাকশন নিয়ে কোনও পরীক্ষা দেননি তিনি। সেই কারণেই বিলম্ব না করে আইসিসির ৪.২ নম্বর নিয়ম অনুযায়ী তাঁকে নির্বাসিত করা হয়। কিউয়িদের বিরুদ্ধে রায়ডু যখন ক্রিজে ব্যাটিং করছেন, তখনই ছড়িয়ে পড়ে এই খবর। এদিন ৪০ রানে অপরাজিত থেকে দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন রায়ডু। তাঁর সঙ্গে জুটি বেঁধেছিলেন দীনেশ কার্তিক। অপরাজিত ৩৮ রান তাঁর ঝুলিতে।তবে, রায়ডু বোলিং থেকে নির্বাসিত হলেও ভারতীয় দলের খুব একটা ক্ষতি হবে বলে মনে হয় না।কারণ, দলে তিনি মূলত ব্যাটসম্যান হিসেবেই খেলেন, কালেভদ্রে বোলিং করতে দেখা যায় তাঁকে।  

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং