BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

স্বপ্না বর্মনের বাড়িতে বনদপ্তরের অভিযান নিয়ে কড়া মুখ্যমন্ত্রী, পদক্ষেপকে স্বাগত বিজেপির

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: July 19, 2020 10:33 am|    Updated: July 19, 2020 10:35 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সোনাজয়ী অ্যাথলিট স্বপ্না বর্মনের (Swapna Barman) জলপাইগুড়ির বাড়িতে কাঠ উদ্ধারের অভিযান চালিয়ে শাস্তির মুখে পড়েছিলেন বেলাকোবার রেঞ্জার সঞ্জয় দত্ত। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে তাঁকে বদলি করে দেওয়া হয়েছে অন্যত্র। এই ইস্যুতে রাজ্যবাসীকে কিছুটা চমকে দিয়েই মুখ্যমন্ত্রীর ভূমিকার প্রশংসা করে পাশে দাঁড়াল জেলা বিজেপি। গেরুয়া শিবিরের এই সমর্থন ব্যতিক্রমী ঘটনা বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

শনিবার রাজ্য বিজেপির অন্যতম সহ-সভাপতি তথা জলপাইগুড়ি জেলা বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি দীপেন প্রামাণিক জানালেন, স্বপ্না রাজবংশী সমাজের মেয়ে, বাংলার গর্ব। তার বাড়িতে এভাবে বনদপ্তরের হানা মোটেই কাম্য নয়। সোনার মেয়েকে ইচ্ছাকৃতভাবে কলঙ্কিত করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে মনে করেন দীপেনবাবু। এরপর তিনি বলেন, ”মুখ্যমন্ত্রী দেরিতে হলেও ব্যবস্থা নিয়েছেন। আমরা সন্তুষ্ট।” তবে তাঁর অভিযোগ যে স্বপ্নার বাড়িতে অভিযানের নেপথ্যে শুধু বদলি হওয়া রেঞ্জার সঞ্জয় দত্তই নন, রয়েছেন বনদপ্তরের আরও বেশ কয়েকজন কর্মী। তাঁদের বিরুদ্ধেও কড়া ব্যবস্থা নেওয়া উচিৎ বলে মনে করেন দীপেনবাবু।

[আরও পড়ুন: স্বপ্না বর্মনের বাড়িতে অভিযানকারী রেঞ্জারকে বদলির প্রতিবাদ, বনমন্ত্রীকে চিঠি স্থানীয়দের]

এশিয়াডে সোনাজয়ী অ্যাথলিট স্বপ্না বর্মন নিজের বাড়িতে অবৈধভাবে কাঠ মজুত করছেন, গোপন সূত্রে এই অভিযোগ পেয়ে গত সপ্তাহে তার জলপাইগুড়ির বাড়িতে অভিযান চালায় বনদপ্তর। নেতৃত্বে ছিলেন বেলাকোবা বনাঞ্চলের রেঞ্জার সঞ্জয় দত্ত। স্বপ্নার কাছে কাঠ মজুতের জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখতে চাইলে, তিনি তা দেখাতে পারেননি বলে অভিযোগ বন আধিকারিকদের। এরপর তাঁকে এক মাসের মধ্যে তা দেখানোর নির্দেশ দিয়ে নোটিস ধরানো হয় বনদপ্তরের তরফে।

[আরও পড়ুন: ইতিহাসে প্রথম, উচ্চমাধ্যমিকের গণ্ডি পেরল বিরহোড় কন্যা, শিক্ষার দায়িত্ব নিলেন বিধায়ক]

এরপর বৃহস্পতিবার মুখ্যমন্ত্রী নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে স্বপ্নার বাড়িতে এই অভিযান নিয়ে কার্যত ওই এলাকার বনদপ্তরের আধিকারিকদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন। তিনি স্পষ্ট বলেন, ”আমাদের না জানিয়ে ওর বাড়িতে অভিযান চালানো হয়েছিল। ওই অফিসারকে বদলি করে দেওয়া হবে।” মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) এই ঘোষণার পরই কার্যত এই ঘটনা নিয়ে দ্বিধাবিভক্ত হয়ে যান স্থানীয় বাসিন্দারা। একপক্ষ রেঞ্জারের বদলির বিরোধিতা জানিয়ে বনমন্ত্রীকে চিঠি লেখেন। আরেকপক্ষ তাঁর ভূমিকাকে সমর্থন করেন। এবার সেই সমর্থকদের তালিকায় যুক্ত হল জেলা বিজেপি নেতৃত্ব। সাম্প্রতিককালে যা বিরল। বোঝা গেল, স্বপ্না বর্মনের বাড়িতে বনদপ্তরের আচমকা অভিযানের মতো ইস্যু আপাতত ভুলিয়ে দিল সমস্ত রাজনীতি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement