৩০ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের কলঙ্কিত ক্রীড়াদুনিয়া। দুর্নীতির অভিযোগে স্পোর্ট অথরিটি অব ইন্ডিয়ার (সাই) ডিরেক্টর-সহ চার আধিকারিককে গ্রেপ্তার করা হল। গ্রেপ্তার করা হয়েছে বেসরকারি সংস্থার আরও দু’জনকে।

[থিম মোহনবাগান, সবুজ-মেরুন পোশাকেই বিয়ে সারলেন শান্তিপুরের সুমন]

বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টা নাগাদ দিল্লির জওহরলাল নেহরু স্টেডিয়ামে সাইয়ের হেডকোয়ার্টারে পৌঁছায় সিবিআইয়ের একটি দল। গোটা এলাকা সিল করে দেওয়া হয়। এরপর দফায় দফায় চলে তল্লাশি। কয়েকজন কর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়। সন্ধে সাড়ে সাতটা নাগাদ সাধারণ কর্মীদের নাম-ঠিকানা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়। তারপর মোট ছ’জনকে গ্রেপ্তার করে সিবিআই। সাইয়ের ডিরেক্টর এস কে শর্মার পাশাপাশি গ্রেপ্তার করা হয়েছে, জুনিয়র অ্যাকাউন্টস অফিসার হরিন্দর প্রসাদ, উপচেষ্টা ললিত জলি এবং ইউডিসি ভি কে শর্মাকেও। সিবিআইয়ের জালে প্রাইভেট কনট্রাক্টর মনদীপ আহুজা এবং তাঁর অধিনস্ত কর্মী ইউনুসও।

অভিযোগ, ১৯ লক্ষ টাকার বিল মেটানোর কথা ছিল সাইয়ের। যার মধ্যে তিন শতাংশ কাটমানি চেয়েছিলেন অভিযুক্ত আধিকারিকরা। সাইয়ের ওই ছ’জনের তাই বিরুদ্ধে আর্থিক কারচুপির পাশাপাশি ঘুষ নেওয়ার অভিযোগও উঠেছে। কেন্দ্রীয় ক্রীড়ামন্ত্রী রাজ্যবর্ধন সিং রাঠোর জানান, বিষয়টি তাঁর কানে পৌঁছতেই সিবিআইকে বিস্তারিত তথ্য দিয়ে সাহায্য করা হয়েছিল। সেই তথ্যের ভিত্তিতেই অভিযান চালায় সিবিআইয়ের একটি দল। সাইয়ের জেনারেল ডিরেক্টর নীলম কাপুর বলেন, “ক্রীড়ামন্ত্রী এবং আমরা সকলেই সাইকে দুর্নীতি মুক্ত রাখতে বদ্ধপরিকর। যাঁরা এর অংশ হয়েও দুর্নীতিতে জড়িয়েছেন, তাঁদের রেয়াত করা হবে না। সিবিআইয়ের তদন্তের উপর পূর্ণ সম্মতি এবং আস্থা রয়েছে আমাদের।”

[‘এত বাড়াবাড়ি ঠিক নয়’, হার্দিক-রাহুলের পাশে দাঁড়ালেন সৌরভ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং