১৬ ফাল্গুন  ১৪২৭  সোমবার ১ মার্চ ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘ভবিষ্যতে আবারও এই ধরনের শট খেলব’, গাব্বায় নিজের আউট নিয়ে কোনও অনুশোচনা নেই রোহিতের

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: January 16, 2021 6:50 pm|    Updated: January 16, 2021 6:50 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গাব্বায় অস্ট্রেলীয় (Australia) অফস্পিনার নাথন লায়নের বিরুদ্ধে তাঁর আউটের ভঙ্গিমা নিয়ে তীব্র সমালোচনা চলছে। বলাবলি হচ্ছে, রোহিত শর্মা (Rohit Shrama) এত সিনিয়র ক্রিকেটার। দারুণ ছন্দে দেখাচ্ছিল তাঁকে। অস্ট্রেলিয়াকে পালটা চাপে ফেলতে পারতেন তিনি। তা হলে কোন যুক্তিতে লায়নকে মিড উইকেটের উপর দিয়ে মারতে গেলেন? বাউন্ডারি তো পেরোল না, উল্টে সোজা ক্যাচ গেল মিচেল স্টার্কের হাতে। নেটিজেনরা এমনও বলতে শুরু করেছেন, ‘রোহিতের সবচেয়ে বড় শত্রু তিনি নিজেই।’ রোহিত জানেন, তাঁকে নিয়ে তুমুল সমালোচনা চলছে। কিন্তু তাঁর কোনও অনুশোচনা নেই ওই শট খেলার জন্য। বরং বলছেন, ভবিষ্যতেও তিনি ও রকম শটই খেলবেন।

দিনের খেলা শেষের পর ভারচুয়াল সাংবাদিক সম্মেলনে রোহিত বলেন, “যেকোনও শট খেলার পিছনেই কোনও না কোনও প্ল্যান থাকে, পরিকল্পনা থাকে। আমার তাই কোনও অনুশোচনা নেই শটটা খেলেছি বলে। কারণ আমার খেলার স্টাইলটাই এ রকম। সব সময় বোলারকে চাপে ফেলতে ভালবাসি আমি। লায়ন স্মার্ট বোলার। আমি তাই যে ভাবে শটটা খেলতে চেয়েছিলাম, সেটা করতে পারিনি। ও-ই করতে দেয়নি।” ভারতীয় ক্রিকেটের ‘হিটম্যান’ আরও বলেন যে, কেন তাঁর শটের সমালোচনা চলছে, তিনি জানেন। জানেন যে, লোকে হতাশা থেকে বলছে। কিন্তু নিজের তরফ থেকে তিনি শটটা খেলার স্বপক্ষে যুক্তিও পেশ করেছেন। বলছেন, “আচমকা আকাশ থেকে এসে পড়েনি শটটা। ওটা এমন একটা শট, যা কি না অতীতে আমি বহুবার খেলেছি। এবং খেলতে সফলও হয়েছি। শটটা খেলে এবার আউট হয়েছি বলে ব্যাপারটা খারাপ লাগছে দেখতে। কিন্তু বিশ্বাস করুন, টিমে আমার ভূমিকাটাই এ রকম। বিপক্ষ টিমকে পাল্টা চাপে ফেলে দেওয়া।”

সঙ্গে রোহিতের সংযোজন, “সব কিছুর একটা নির্দিষ্ট পদ্ধতি আছে। আমি সব সময় পদ্ধতি মেনে চলতে চাই। কখনও কোনও একটা শট খেলতে গিয়ে আউট হয়ে যাই। কখনও আবার সেই শটই বাউন্ডারির বাইরে গিয়ে পড়ে। তবে যেভাবে আজ আউট হয়েছি, দুর্ভাগ্যজনক। কিন্তু ওই যে বললাম। আমার ওগুলো ট্রেডমার্ক শট। আমি ওই ধরনের শটই খেলতে পছন্দ করি।” একই সঙ্গে মুম্বইকর পরিষ্কার বলে দিয়েছেন যে, কে কী বলল, সে সব নিয়ে তিনি ভাবেনই না। তাঁকে যে ভূমিকাটা দেওয়া হয় টিমের পক্ষ থেকে, সেটা তিনি পালন করেন। “টিম আমার উপর ভরসা করেছে। বিশ্বাস দেখিয়েছে। এরপর লোকে কী বলল না বলল, তাতে আমার কিছু যায় আসে না।”

[আরও পড়ুন: হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যু হার্দিক ও ক্রুণাল পাণ্ডিয়ার বাবার, পিতৃহারা তারকাদের পাশে বিরাট-শচীনরা]

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে চলতি সিরিজে দু’টো টেস্ট মিলিয়ে এখনও পর্যন্ত তিনটে ইনিংস খেলেছেন রোহিত। করেছেন যথাক্রমে ২৭, ৫২ এবং ৪৪। রোহিত বলছেন, অস্ট্রেলিয়া সফরে কিছু টেকনিক্যাল অদলবদল এনেছেন। যা তাঁকে সাহায্য করেছে অস্ট্রেলীয় পেসারদের মোকাবিলা করতে। “সিডনিতে অত বাউন্স ছিল না। আমি লেগ স্টাম্প লাইনে থাকছিলাম। কিন্তু এখানে অফস্টাম্প লাইনে আমাদের যে পরীক্ষা নেবে অস্ট্রেলীয় পেসাররা, তা জানতাম। তাই ব্রিসবেনে আমি আর একটু অফস্টাম্পের দিকে সরে এসেছি।”

অস্ট্রেলীয় পেসারদের প্রথম স্পেল কী ভাবে খেলতে হবে না হবে, পুরোটাই দু’সপ্তাহের নিভৃতাবাসে থাকার সময় বসে বসে ঠিক করেছিলেন রোহিত। টিভিতে খেলা দেখে। “আমি দেখছিলাম, ওরা কী রকম শৃঙ্খলা রেখে বোলিংটা করে। অস্ট্রেলীয় বোলাররা সহজে আপনাকে রান করতে দেবে না। আমাকে তাই ওদের বিরুদ্ধে রান করার একটা রাস্তা বার করতে হত। প্রথম দিকে আমি চেষ্টা করেছি বলের কাছাকাছি থাকার। চেষ্টা করেছি, অফস্টাম্পের বাইরের সব কিছু ছেড়ে দিতে, আর সেটা কাজেও দিয়েছে।” বলেন তিনি। সব ঠিক আছে, সবই ঠিক চলছিল। শুধু ‘হিটম্যান’ যদি নিজের আক্রমণাত্মক ব্যাটিং মেজাজকে আর একটু নিয়ন্ত্রণ করতে পারতেন!

[আরও পড়ুন: বৃষ্টিতে পণ্ড ব্রিসবেনের দ্বিতীয় দিনের শেষ সেশন, উইকেট ছুঁড়ে দিয়ে ভারতকে চাপে ফেললেন রোহিত]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement