১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

বল বিকৃতি কাণ্ডে সিরিজের মাঝেই বাড়ি ফেরানো হল স্মিথদের, আজ শাস্তি ঘোষণা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 28, 2018 8:56 am|    Updated: July 20, 2019 1:31 pm

Ball tampering row: Smith, Warner, Bancroft sent home from South Africa

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: অভূতপূর্বভাবে একটা টেস্ট সিরিজের মাঝে ক্রিকেট অধিনায়ককে দেশে ফেরার নির্দেশ দিল অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট বোর্ড! অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট ইতিহাসে যা কোনও দিন কখনও হয়নি। মঙ্গলবার জোহানেসবার্গে ঠিক তাই হল।

জোহনেসবার্গে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে আগামী শুক্রবার থেকে শুরু হতে চলা টেস্টে খেলবেন না স্টিভ স্মিথ। তার আগেই বাড়ি ফিরবেন। ডেভিড ওয়ার্নার, ক্যামেরন ব্যানক্রফটও খেলবেন না। এককথায়, বল বিকৃতি কাণ্ডে অভিযুক্তদের অস্ট্রেলিয়ার জার্সিতে শেষ টেস্টে নামা আর হচ্ছে না। তবে কোচ হিসেবে নিজের কাজ চালিয়ে যাবেন লেহম্যান।

মঙ্গলবার ভারতীয় সময় রাত সাড়ে দশটা নাগাদ সাংবাদিক সম্মেলনে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান জেমস সাদারল্যান্ড বলেন, “এরা কেউ বাকি সিরিজ খেলবে না। স্মিথ-সহ তিনজনকেই দেশে ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আগামী চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে পরিবর্তরাও চলে আসবে। দলের নেতৃত্ব দেবে টিম পেইন।” স্মিথ ছাড়া বাকি দুইয়ের পরিবর্তও একই সঙ্গে ঘোষণা করে দেন সাদারল্যান্ড। তাঁরা যথাক্রমে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল এবং জো বার্নস।

[নিয়মরক্ষার ম্যাচে কিরঘিজদের কাছে হার ভারতের]

দিন কয়েক আগেই বল বিকৃতির অভিযোগে স্মিথদের এক টেস্ট নির্বাসিত করেছিল আইসিসি। স্মিথদের প্রতি বিশ্ব ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থার এমন নরম সুর দেখে অনেকেই সমালোচনা করেছিলেন। যদিও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া জানিয়েছিল, তারা এর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপই নিতে চলেছে। শাস্তি কতটা কঠোর হয়, তা বুধবারই স্পষ্ট হবে। তবে কোচ ডারেন লেহম্যান কিছু জানতেন না বলেই দাবি জেমস সাদারল্যান্ডের। তাই আপাতত কোচের পদ থেকে সরানো হচ্ছে না তাঁকে। তবে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট কর্তার এহেন ঘোষণার পর থেকেই সোশ্যাল মিডিয়া লেহম্যান এবং ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ট্রোলড হতে শুরু করেছে। কেভিন পিটারসেন যেমন ঠিক তার পরপরই টুইট করে লিখলেন, ‘লেহম্যান কিছু জানে না! হা হা হা!’ অস্ট্রেলীয় মিডিয়ার দাবি অনুযায়ী টিভিতে পরিষ্কার দেখা গিয়েছে, বল বিকৃতি ঘটানোর আগে লেহম্যান ওয়াকিটকিতে পিটার হ্যান্ডসকম্বের সঙ্গে কথা বলছেন। যিনি ডাগআউটে বসেছিলেন। মাঠে সে সময় ব্যানক্রফটের বলে শিরীষ কাগজ ঘষার ছবি গোটা বিশ্ব লাইভ দেখছে। ব্যানক্রফট সেটা বুঝতে পারেননি বলে লেহম্যান হ্যান্ডসকম্ব মারফত তাঁকে সতর্ক করে দিতে চাইছিলেন। ওয়াকিটকিতে সেই নির্দেশই নাকি গিয়েছিল। সেই লেহম্যানের এহেন মুক্তি দেখে সোশ্যাল মিডিয়ায় কেউ কেউ লিখলেন, “ওহে লেম্যান তুমি ওয়াকিটকিতে কী কথা বলছিলে? পকোড়া অর্ডার করছিলে?” যদিও ক্লিনচিট পাওয়ার পর লেহম্যান কোনও বিবৃতি দেননি।

এদিকে অস্ট্রেলীয় মিডিয়ামহলের ধারণা হল, বল বিকৃতি কাণ্ডের আসল কুচক্রী হলেন ওয়ার্নার! স্মিথ নন। বল বিকৃত করার বুদ্ধিটা ওয়ার্নারেরই ছিল। তিনি এমনিও তীব্র বিরাগভাজন হয়ে পড়েছেন টিমে। নাহলে এত অশান্তির মধ্যেও এক বন্ধুকে নিয়ে শ্যাম্পেন-পার্টি করা যায়! যা মেনে নিতে পারেননি টিমমেটরা। মুশকিল হল, টিম যতই স্মিথ ছেড়ে ওয়ার্নার নিয়ে অসূয়া দেখাক, যতই অস্ট্রেলিয় মিডিয়া মনে করুক, পুরো ঘটনার রিংমাস্টার ওয়ার্নারই ছিলেন। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার মহাকর্তা মনে করেন, দায়টা সবচেয়ে বেশি স্মিথের।

[মুখোমুখি সাক্ষাতেও গলল না বরফ, হাসিনের থেকে মুখ ঘুরিয়েই রইলেন শামি]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে