BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

করোনাতঙ্কেও ঝুঁকি নিয়ে খেলেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ, ইংল্যান্ড বোর্ডের কাছে আর্থিক ‘পুরস্কার’ দাবি স্যামির

Published by: Sulaya Singha |    Posted: July 29, 2020 4:24 pm|    Updated: July 29, 2020 5:28 pm

An Images

ফাইল ছবি

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ ঐতিহাসিক টেস্ট সিরিজ দিয়েই ক্রিকেটের করোনা পরবর্তী যুগের সূচনা ঘটেছে। যে সিরিজে ক্যারিবিয়ান দল শুরুটা দুর্দান্ত করলেও শেষমেশ বাজিমাত করে হোম ফেভারিটরাই। তিন টেস্টের সিরিজ শেষ হয় ২-১-এ। তবে হারের থেকে ড্যারেন স্যামিদের বেশি চিন্তা ওয়েস্ট ইন্ডিজ বোর্ড ও ক্রিকেটারদের করুণ আর্থিক অবস্থা নিয়ে। তাই বিন্দুমাত্র দ্বিধা না করে ইংল্যান্ড বোর্ডের (ECB) কাছেই অর্থ সাহায্য চেয়ে ফেললেন স্যামি।

বিশ্বজুড়ে করোনার জেরে দীর্ঘদিন স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল ক্রিকেটের বাইশ গজ। তবে শেষমেশ মারণ ভাইরাসের (Coronavirus) চোখ রাঙানি উপেক্ষা করে ইংল্যান্ড উড়ে যান জ্যাসন হোল্ডাররা। দর্শকশূন্য স্টেডিয়াম হলেও ফের পুরনো ছন্দ ফিরে পায় বাইশ গজ। ফলে যে আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছিল ইংল্যান্ড, তা অনেকটাই সামাল দেওয়া গিয়েছে। এই গ্রীষ্মে ২৮০ মিলিয়ন পাউন্ড নিজেদের ঝুলিতে ভরতে পেরেছে ইংল্যান্ড। আর উলটোদিকে আর্থিক সংকটে ৫০ শতাংশ বেতন কমে গিয়েছে ক্যারিবিয়ান তারকাদের। আর ঠিক এমন পরিস্থিতিতে তাই কোনও রাখঢাক না রেখেই আর্থিক সমস্যার কথা বুঝিয়ে দিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রাক্তন অধিনায়ক। ইংল্যান্ড বোর্ডের কাছে তাঁর অনুরোধ, এই সিরিজের আয়ের অন্তত ১৫ শতাংশ যেন ক্যারিবিয়ান বোর্ডকে (CWI) দেওয়া হয়। এতে ক্রিকেটারদের অনেকটাই উপকার হবে বলে মত তাঁর।

[আরও পড়ুন: আইপিএলে ক্রিকেটারদের সঙ্গে থাকবেন স্ত্রী ও বান্ধবীরা? টানাপোড়েন বোর্ড ও ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলির]

মাঠের মধ্যে দুই দল পরস্পরকে সমানে-সমানে টক্কর দেয় ঠিকই, কিন্তু মাঠের বাইরের লড়াইয়ে ‘শক্তিধর’ ইংল্যান্ডের কাছে একেবারেই শিশু ক্যারিবিয়ান বোর্ড। ম্যাচ সম্প্রচারের জন্য প্রতি বছর যেখানে বেন স্টোকসদের বোর্ডের উপার্জন ২২০ মিলিয়ন পাউন্ড, সেখানে স্যামিদের বোর্ডের আয় মাত্র ১২ মিলিয়ন পাউন্ড। অর্থাৎ তফাতটা আকাশ-পাতাল। এর আগে একই সমস্যার কথা শোনা গিয়েছিল, হোল্ডারের গলাতেও। এমনকী, ইংল্যান্ড বোর্ডকে ওয়েস্ট ইন্ডিজে একটি সিরিজ করার অনুরোধও জানিয়েছিলেন তিনি। এবার মহামারীর মধ্যেও ঝুঁকি নিয়ে খেলতে আসায় ইসিবির থেকে আর্থিক পুরস্কারের দাবি জানালেন স্যামি।

উল্লেখ্য, ক্রিকেটের নিয়ম অনুযায়ী, ম্যাচ সম্প্রচার থেকে সমস্ত আয় আয়োজক বোর্ডেরই হয়ে থাকে। সফরকারীদের এর থেকে কিছুই দেওয়া হয় না। তবে এমন মহামারী পরিস্থিতিতে স্যামিদের পাশে দাঁড়াতে ইংল্যান্ড বোর্ড কোনও মানবিক সিদ্ধান্ত নেয় কি না, সেটাই দেখার।

[আরও পড়ুন: মোহনবাগান দিবসে টাইমস স্কোয়্যারের Nasdaq বিলবোর্ডের রং হল সবুজ-মেরুন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement