BREAKING NEWS

১৪ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ১ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

নিজের ব্যবহারের জন্য ক্ষমা চাইলেন স্টিভ স্মিথ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: March 28, 2017 9:14 am|    Updated: December 26, 2019 1:58 pm

I apologize for letting my emotions slip, says Australian skipper Steve Smith

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পুণেতে প্রথম টেস্ট শুরুর আগে থেকেই ভারত-অস্ট্রেলিয়া দু’দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে শুরু হয়েছিল বাগযুদ্ধ। যা ধরমশালায় শেষ টেস্ট পর্যন্তও চলে। কখনও স্মিথ-কোহলি, কখনও রবীন্দ্র জাদেজা-ম্যাথু ওয়েড। বারবার দু’দলের খেলোয়াড়রা তর্কাতর্কিতে জড়িয়েছিলেন। অবশেষে চতুর্থ টেস্টের পর নিজের ব্যবহারের জন্য ক্ষমা চাইলেন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ।

[২০ ফুট লম্বা, ওজনে ৭০০ কেজি; অতিকায় মাছকে ঘিরে চাঞ্চল্য তুঙ্গে]

ম্যাচ শেষে অধিনায়ক স্মিথ বলেন, ‘গোটা সিরিজে দু’দলই দুর্দান্ত লড়াই করেছে। আমি সবসময় দলের জন্য কিছু করার চেষ্টা করেছি। আর সেক্ষেত্রে মাঝে মধ্যেই খারাপ ব্যবহারও করে ফেলেছি। তাঁর জন্য আমি ক্ষমাপ্রার্থী।’ তবে সিরিজ হারলেও দলের খেলায় যে তিনি খুশি সেকথা বলতে ভুললেন না। পাশাপাশি ভারতীয় দলেরও প্রশংসা করেন অজি অধিনায়ক। বলেন, ‘সিরিজটি দুর্দান্ত ছিল। ভারতকেও অভিনন্দন। ওরা দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলেছে। আমাদের জন্য পরিবেশ-পরিস্থিতি খুব কঠিন ছিল। অনেক ক্রিকেট বিশেষজ্ঞরা সিরিজ শুরুর আগে বলেছিল অস্ট্রেলিয়া ৪-০ ব্যবধানে সিরিজ হারবে। কিন্তু ছেলেরা দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলেছে। লড়াই করেছে। তবে কিছু ক্ষেত্রে আমরা বিপক্ষকে সুযোগ দিয়ে ফেলেছি। যা আমাদের লড়াই থেকে হারিয়ে দিয়েছে। যেমন- ধরমশালা টেস্টের তৃতীয় দিনে ৭০ রানে পাঁচ উইকেট পড়ে যাওয়ার পর আমরা খেলা থেকে হারিয়ে যাই। ভারতীয় খেলোয়াড়রাও এই সুযোগ গুলিকে দুর্দান্তভাবে কাজে লাগিয়েছে। উমেশ যাদবও ভাল বল করেছে।’ ধরমশালা পিচেরও প্রশংসা শোনা যায় স্মিথের গলায়। বলেন, ‘পিচ খুব ভাল ছিল। পেস-বাউন্স থাকার পাশাপাশি স্পিনাররাও সাহায্য পেয়েছে। উল্টোদিকে, ক্রিজে টিকে থাকতে পারলে ব্যাটসম্যানরাও রান পেয়েছেন।’

[যোগীর পথে ঝাড়খণ্ড, বন্ধ হচ্ছে বেআইনি কসাইখানা]

প্রথম তিনটি টেস্টের মতো ধরমশালা টেস্টেও একাধিকবার বিতর্কে জড়িয়েছেন অজি ক্রিকেটাররা। ভারতের প্রথম ইনিংসের সময় রবীন্দ্র জাদেজা যখন ব্যাট করছিলেন, তখন তাঁর সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় ম্যাথু ওয়েডের। এইসময় জাদেজাও তাঁকে পাল্টা গালিগালাজ করেন। কিন্তু সেটি বুঝতে পারেননি ওয়েড। জিজ্ঞেস করে বসেন কথাটির অর্থ। জাদেজা ওয়েডকে জানিয়ে দেন কথাটির মানে, হ্যালো। আর এরপরেই সরগরম হয়ে ওঠে সোশ্যাল মিডিয়া। এই নিয়ে অনেকে ‘ট্রোল’ও করেন। শুধু এটাই নয়, অস্ট্রেলিয়ার দ্বিতীয় ইনিংসের শেষদিকে হেজেলউডের ক্যাচ নিয়ে তৈরি হয়েছিল বিতর্ক। বল মাটিতে ছুঁলেও ক্যাচের আবেদন করেছিলেন মুরলি বিজয়। আম্পায়ার প্রথমে আউট দিলেও পরে তৃতীয় আম্পায়ারের কাছে ক্যাচটি বৈধ কিনা জানতে চান। পরে দেখা যায়, হেজেলউড আউট নন। এরপরেই ক্যামেরায় দেখা যায়, ড্রেসিংরুম থেকে বিজয়ের উদ্দেশে কিছু বলছেন স্মিথ। যা নিয়েও চাঞ্চল্য ছড়িয়েছিল। তবে ক্রীড়া বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, নিজের ব্যবহারের জন্য ক্ষমা চেয়ে নেওয়ায় আগামীদিনে দু’দেশের সমর্থক থেকে শুরু করে ক্রিকেটারদের মধ্যে উত্তাপ কিছুটা হলেও কমবে।

[‘তিন তালাক রদ হলে অস্তিত্ব সংকটে পড়বে ইসলাম’]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে