BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কার্ডিফে ধোনি-রাহুল ধামাকা, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি ম্যাচে বড় জয় ভারতের

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: May 28, 2019 11:34 pm|    Updated: May 30, 2019 5:54 pm

An Images

ভারত- ৩৫৯/৭ (ধোনি ১১৩, রাহুল ১০৮)
বাংলাদেশ- ২৬৪ অলআউট (মুশফিকুর ৯০, কুলদীপ ৩/৪৭)

ভারত ৯৫ রানে জয়ী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ঝড়ের মধ্যেও শান্ত থেকে নিজের কাজটা করে যান। নিজের দিনে সেরা পারফরম্যান্সটাই রাখেন তিনি। এমনই বিশেষণ ব্যবহার করা হয় মহেন্দ্র সিং ধোনির সম্পর্কে। এবারের বিশ্বকাপই তাঁর শেষ বিশ্বকাপ কিনা সে নিয়ে বিস্তর জল্পনা। কিন্তু মঙ্গলবার কার্ডিফে ২০১৯ বিশ্বকাপের প্রস্তুতি ম্যাচে যে ইনিংসটা তিনি খেললেন, তা দেখে তাঁর অতি বড় সমালোচকও চাইবেন না তিনি এখনই অবসর নিন। এদিন বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ৭৮ বলে ১১৩ রানের যে ইনিংস তিনি খেললেন তাকে এককথায় ধোলাইও বলা যায়। প্রস্তুতি ম্যাচে ঝকঝকে সেঞ্চুরি।

তাঁকে যোগ্য সঙ্গত দিয়ে শতরান পেলেন কেএল রাহুলও। দুইয়ের মিশেলে রানের পাহাড় লক্ষ্যমাত্রা রাখল ভারত। আগেরদিন নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে শোচনীয় পরাজয়ের পর দুর্দান্ত কামব্যাক বিরাটদের। ভারতের ৩৫৯ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভাল করলেও শেষে খেই রাখতে পারল বাংলাদেশ। মিডল অর্ডারের ব্যর্থতায় ডুবলেন মাশরাফিরা।

এদিন টসে জিতে প্রথমে ভারতকে ব্যাট করতে পাঠায় বাংলাদেশ। মাথায় আগেরদিনের ব্যাটিং বিপর্যয়ের স্মৃতি নিয়ে ক্রিজে নামেন ধাওয়ান-রোহিতরা। দুজনেই ব্যর্থ এদিন। তিন নম্বরে অধিনায়ক বিরাট ইনিংসের হাল ধরেন। লোকেশ রাহুলের সঙ্গে ধীরে ধীরে স্কোরবোর্ড এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন। কিন্তু তাল কাটল কিছুক্ষণ পর। ৪৭ রান করে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান তিনি। চোট সারিয়ে এদিন ব্যাট করতে নেমে ব্যর্থ হন বিজয় শংকরও। ধোনি নামতেই ফের চাঙ্গা হয় রানরেট। রাহুল ও ধোনি রীতিমতো ছেলেখেলা করেন বাংলাদেশি বোলারদের নিয়ে। ৭টি ছক্কা হাঁকান ধোনি। কেন নিজের দিনে তিনিই সেরা এদিন ঠারেঠোরে বুঝিয়ে দিলেন তিনি। মাহি মার রহা হ্যায় স্টাইলে একের পর এক ডেলিভারি মাঠের বাইরে পাঠালেন আর দর্শকরা উচ্ছ্বাসে পেটে পড়ছিল। তাঁর খেলা দেখে অবসর জল্পনা দূরে রাখাই শ্রেয় মনে হল। শেষপর্যন্ত সাত উইকেট হারিয়ে ৩৫৯ রানের বিশাল স্কোর খাঁড়া করে ভারত।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের দুই ওপেনার লিটন দাস ও সৌম্য সরকার মোটামুটি ভাল শুরু করেছিলেন। সৌম্য আউট হয়ে গেলেও চালিয়ে খেলেন লিটন। চার নম্বরে নেমে মুশফিকুর রহিম লিটনের সঙ্গে একটা পার্টনারশিপ গড়ে তোলেন। পরে চাহালের বলে ৭৩ রানে আউট হন লিটন। অল্পের জন্য এদিন শতরান মিস করেন মুশফিকুর। ৯০ রান করে চায়নাম্যান বোলার কুলদীপের বলে আউট হন তিনি। এরপরই ব্যাটিং অর্ডারে ধস নামে বাংলাদেশের। কুলদীপ আর চাহালের স্পিনেই কাত হয়ে যায় বাংলাদেশিরা। দুজনেই নেন তিনটি করে উইকেট। বাংলাদেশের ইনিংস শেষ হয় ২৬৪ রানে। প্রস্তুতি ম্যাচে এই বিরাট জয় বিশ্বকাপের জন্য বাড়তি আত্মবিশ্বাস জোগাবে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement