Advertisement
Advertisement
Naushad Khan

সরফরাজের বাবার সঙ্গে মন জিতলেন রোহিতও, তরুণের অভিষেকে মিলল ক্রিকেট-সংসার-পরিবার

সরফরাজের অভিষেকে দেখা গেল এক পারিবারিক আবেগের ফল্গুধারার স্রোত।

Naushad Khan, Father of Sarfaraz, wins heart । Sangbad Pratidin

সরফরাজ খান। অধিনায়ক রোহিতের সঙ্গে বাবা নওশাদ। ফাইল চিত্র

Published by: Krishanu Mazumder
  • Posted:February 17, 2024 9:34 am
  • Updated:February 17, 2024 1:17 pm

অরূপ কর: সত্যিই মুগ্ধ করলেন নওশাদ খান (Naushad Khan))। একজন গর্বিত বাবা। যদি বলি, অভিভাবক হিসাবে এক বাবা গোটা সমাজের সামনে উদাহরণ রাখলেন, অত্যুক্তি হবে কি? মনে হয় না। ভারতীয় ক্রিকেটের আঙিনায় নতুন তারকা তাঁর ছেলে। ভুল বললাম, নতুন নয়। তারকা হিসাবে নাম হয়েছে অনেকদিন আগেই। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট মূল সরণিতে পা রাখতে অনেকটা সময় লেগে গেল।
ভারতের হয়ে টেস্ট খেলার স্বপ্ন কোন ক্রিকেটারের না থাকে! সরফরাজেও ছিল। কিন্তু বুকের ভিতর জেগে থাকা স্বপ্নটা শেষ পর্যন্ত ডানা মেলতে লেগে গেল কতগুলি বছর! রঞ্জি খেলেছেন, আইপিএলে আবির্ভাব হয়েছিল মাত্র ১৭ বছরে, ২০১৪, ২০১৬-য় আইসিসি অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপেও ভারতের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেছেন। কিন্তু টেস্ট খেলার বাসনা অধরাই ছিল।
রাজকোটে অভিষেক হওয়া বহুচর্চিত নাম সরফরাজ খানের (Sarfaraz Khan) প্রতিভার যোগ্য মর্যাদা পেতে অনেকটা দেরি হয়ে গেল ঠিকই, কিন্তু ব্যাট হাতে ৬৬ বলে ৬২ রানের ঝকঝকে ইনিংস দেখিয়ে গেল, সরফরাজ যতদিন টেস্ট ক্রিকেট টিমে সুযোগ পাবেন, এমনই চোখ ঝলসানো ব্যাটিংয়ের স্বাক্ষর রেখে যাবেন।

[আরও পড়ুন: Exclusive: ‘কেরিয়ারে বঞ্চনার শিকার হয়েছি, আত্মজীবনীতে লিখতে চাই’, একান্ত সাক্ষাৎকারে অকপট মনোজ]

বেশি বয়সে টেস্টে সুযোগ পেয়ে পারফর্ম করতে পারবেন কিনা, সেই সংশয় কি ভিতরে ভিতরে ছিল না সরফরাজ বা তাঁর বাবা নওশাদের? একটু হলেও হয়তো ছিল। কিন্তু মাঠে তার বিন্দুমাত্র ছায়া দেখা যায়নি সরফরাজের ব্যাটে। অবলীলায় স্বাভাবিক ছন্দে ইংরেজ বোলিংকে শাসন করে গেলেন। যেভাবে খেলছিলেন, শতরান প্রাপ্য ছিলই। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা অপ্রাপ্তই থেকে গেল। রবীন্দ্র জাদেজার সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউট হয়ে গেলেন সরফরাজ। বিভ্রান্তি নিয়ে কিন্তু হা-হুতাশ করতে দেখা যায়নি তাঁকে। সাফল্য, ব্যর্থতায় লক্ষ্যে অবিচল থাকার শিক্ষা দেয় ক্রিকেট। সরফরাজ নিশ্চয়ই সেই শিক্ষাকে আত্মস্থ করেই এতগুলি বছর ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করে গিয়েছেন।
তাই হতাশার অন্ধকারে থেমে যায়নি তাঁর কেরিয়ার। শেষ পর্যন্ত টেস্ট টিমে ডাক তো এলই। নইলে মরসুমের পর মরসুম চলে যায়, ঘরোয়া ক্রিকেটে রানের বন্যা, অথচ টেস্ট টিমে জায়গা হচ্ছে না! সরফরাজের তো হতাশায় ভেঙে পড়ার কথা। কিন্তু তিনি যে জেদ, অধ্যবসায় আর কমিটমেন্টের ইস্পাতে নিজেকে তৈরি করা জাত ক্রিকেটার। সেঞ্চুরি, ডাবল সেঞ্চুরি—ভারতীয় ক্রিকেটকে নিশ্চয়ই আগামী দিনে অনেক কিছু দেবেন তিনি।
বৃহস্পতিবার সরফরাজের টেস্ট অভিষেক হয়েছে আনন্দের কান্নায়। ভারতের টুপি গ্রহণ করে তিনি ছুটে গিয়েছিলেন বাবা, স্ত্রীর কাছে। ক্রিকেটের ২২ গজের অদূরে দেখা গেল এক পারিবারিক আবেগের ফল্গুধারার স্রোত। টিভির পর্দায় আমরা অগনিত ক্রিকেটপ্রেমীও তাতে অবগাহন করলাম। একজন ভারতবাসী হিসাবে আমিও এই আবেগের শরিক।
কিন্তু মুগ্ধ হওয়ার আরও কিছু বাকি ছিল। ছেলের মাথায় ভারতীয় ক্রিকেটের ক্যাপ ওঠার আনন্দে আবেগে ভাসলেও তিনি যে কতটা বিনীত, দেখালেন নৌশাদ। ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মাকে একান্তে তিনি বলেছেন, ‘ধেয়ান রাখনা সরফরাজ কা স্যার।’ যেন বলে দিলেন, ‘আপনার হাতে ছেলেটাকে তুলে দিলাম। একটু নজরে রাখবেন।’
কয়েক প্রজন্ম আগে আমাদের অভিভাবকরা আমাদের স্কুলে ভর্তি করানোর সময় হেডস্যরের কাছে আন্তরিক নিবেদনের সুরে বলতেন, ছেলেটাকে দিয়ে গেলাম। ওকে দেখবেন স্যার। এমনই ঘটনার পুনরাবৃত্তি দেখল ক্রিকেট।
রোহিতকে ‘স্যার’ সম্বোধনে ভারতীয় ক্রিকেট টিমের অভিভাবকের আসনে বসাচ্ছেন কোটি কোটি ভারতবাসীর একজন। এমন স্বীকৃতি কী কম পাওয়া!
আবার ভবিষ্যতে ভারতীয় টিমে খেলার স্বপ্ন লালন পালন করে চলা ক্রিকেটারদেরও অভিভাবকসুলভ ভরসা দিয়েছেন নৌশাদ…’রাতটা শেষ হতে দাও, নিজের সময় মতোই সূর্য উঠবে।’
রোহিতও মন জিতে নিলেন প্রত্যুত্তরে। রোহিত তখন যেন শুধু ক্রিকেটার, ক্যাপ্টেন নন, আমাদের সংসার, পরিবারেরও একজন কর্তা। নৌশাদকেও সরফরাজের সাফল্যে তাঁর ভূমিকার জন্য কুর্ণিশ করলেন। আরে বিলকুল, বিলকুল। সরফরাজের জন্য আপনি যে কত কষ্ট, কঠিন পরিশ্রম করেছেন, সকলে তা জানে। আপনাকে অনেক অভিনন্দন, আপনার ছেলেকেও–বলতে শোনা গেল তাঁকে।
তখন মিলেমিশে একাকার ক্রিকেট, পরিবার, সংসার। পারস্পরিক শ্রদ্ধা, সম্মানে একই বন্ধনীতে চলে এলেন একজন বাবা, একজন ক্যাপ্টেন, একজন বহুদিন ক্রিকেট সাধনা করে স্বীকৃতি পাওয়া ক্রিকেটার।

Advertisement

 

Advertisement

[আরও পড়ুন: মহাকীর্তির দিনে মায়ের অসুস্থতা, রাজকোট টেস্টে আর নেই অশ্বিন]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ