৪ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo দিল্লি ২০২০ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংগ্রাম সিংহরায়, শিলিগুড়ি: ভারতীয় মহিলা ক্রিকেট দলের হয়ে বিশ্বকাপ খেলবে শিলিগুড়ির মেয়ে রিচা ঘোষ। ঋদ্ধিমান সাহার পর প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে জাতীয় দলে খেলবে সে। তবে তার চেয়েও বড় বিষয়, বিশ্বকাপে প্রথম শিলিগুড়ি তো বটেই প্রথম বাঙালি হিসেবে নিজের নাম স্বর্ণাক্ষরে খোদাই করে নিল শিলিগুড়ির সুভাষপল্লির ১৬ বছরের রিচা। তার সাফল্যে অবশ্য শুধু শিলিগুড়ি নয়, গোটা বাংলা এখন উদ্বেলিত।

ঋদ্ধিমান অবশ্য দীর্ঘদিন ভারতীয় টেস্ট দলের অটোমেটিক চয়েস হলেও শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপে তার কপালে শিকে ছেঁড়েনি। অন্যদিকে রিচা দীর্ঘদিন বাংলা দলে খেললেও জাতীয় দলের মূল স্কোয়াডে তার জায়গা হয়নি। বছর দুয়েক আগে থেকেই জাতীয় দলের দরজায় কড়া নাড়া সত্ত্বেও তাকে আরও একটু সময় দেওয়ার পক্ষপাতী ছিলেন জাতীয় নির্বাচক থেকে শুরু করে ঝুলন গোস্বামী, দীপ্তি শর্মারা। যাকে হাতে গড়ে ভবিষ্যতের তারকা হিসেবে চিহ্নিত করেছেন সেই রিচার জন্য জাতীয় দলের হয়ে জার্সি গায়ে চাপানো ছিল শুধু সময়ের অপেক্ষা। কবে সেই মাহেন্দ্রক্ষণ আসবে সেই অপেক্ষায় ছিলেন রিচা নিজে। তার বাবা শিলিগুড়ি প্রাক্তন খেলোয়াড় মানবেন্দ্র ঘোষ আশা করেছিলেন, মেয়ে সুযোগ পাবে। এবারে বিশ্বকাপের আসরে সরাসরি দলে সুযোগ পাওয়ায় গোটা শহর  জুড়ে আলোড়ন। আত্মবিশ্বাসী  রিচা বলে, “আমি দীর্ঘদিন ধরেই জাতীয় অ্যাকাডেমিতে অনুশীলন করছিলাম। জানতাম সুযোগ আসবে। তবে সরাসরি বিশ্বকাপ খেলার সুযোগ পাব এতটা আশা করিনি। চ্যালেঞ্জারসে ভাল খেলা আমার পক্ষে গিয়েছে।”

[ আরও পড়ুন: নৌকা না মাঠ! বাংলাদেশের নির্মীয়মাণ এই স্টেডিয়াম সম্পর্কে জানলে অবাক হবেন ]

রিচার বাবা মানবেন্দ্রবাবু শিলিগুড়ি শহরের পরিচিত প্রাক্তন খেলোয়ার। পাশাপাশি সিএবির নথিভূক্ত আম্পায়ারও। ক্রিকেটের প্রাথমিক হাতেখড়ি বাবার হাতেই। পরে শিলিগুড়ি বাঘাযতীন অ্যাথলেটিক ক্লাবের অনুশীলন শিবিরের ছেলেদের সঙ্গে তার মাটির সঙ্গে পরিচিতি। পরবর্তীতে শিলিগুড়ি মহকুমা ক্রীড়া পরিষদ সরাসরি মহিলাদের কোচিং সেন্টার পরিচালনা করায় সেখানে নাম নথিভুক্ত করে রিচা। মহাকুমা ক্রীড়া পরিষদের হয়েও একাধিক টুর্নামেন্ট খেলায় সরাসরি বাংলা দলে নির্বাচিত হয়। জাতীয় স্তরের খেলোয়াড়দের নজরে আসতে সময় নেননি মারকুটে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান রিচা।

এদিকে রিচা বিশ্বকাপে নির্বাচিত হওয়ার খবর পাওয়ার পরই শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের সচিব অরূপ রতন ঘোষ উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে বলেন, “আমরা এতদিন ঋদ্ধিমানকে নিয়ে গর্ব করতাম। এখন আরও এক পালক জুড়ল। সরাসরি বিশ্বকাপ খেলার মত গর্ব এনে দিয়েছে রিচা। তাকে আমরা সুযোগ পেলে সংবর্ধিত করব।” শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের ক্রিকেট কোচ জয়ন্ত ভৌমিক ভূয়সী প্রশংসা করেন ষোড়শী ক্রিকেটারের। তিনি বলেন, “রিচা বরাবরই প্রতিভাবান। তবে সেই সঙ্গে তার অধ্যাবসায় এবং আক্রমণাত্মক ক্রিকেট তাকে জাতীয় দলের দরজা খুলে দিল। অনেক দূর এগোতে হবে। আশা করব শিলিগুড়ির পাশাপাশি বাংলার নাম উজ্জ্বল করবে তুমি।”

[ আরও পড়ুন: একটুর জন্য… বিশ্বকাপ সেমিফাইনালের সেই রান আউট নিয়ে অবশেষে মুখ খুললেন ধোনি ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং