×

৪ চৈত্র  ১৪২৫  বুধবার ২০ মার্চ ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও #IPL12 বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মোহালিতে প্রথমে ব্যাট করে যখন ৩৫৮ রানের বিরাট ইনিংস গড়ে টিম ইন্ডিয়া, তখন অনেকেই ধরে নিয়েছিলেন, এদিনই সিরিজ পকেটে পুরতে চলেছেন বিরাটরা। কিন্তু, পাটা উইকেটে অ্যাস্টন টার্নার একাই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেন। ভারতীয় বোলারদের সঙ্গে ছিনিমিনি খেলে খানিকটা অপ্রত্যাশিতভাবেই সিরিজে সমতায় ফেরে অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু কেন এমন রানের লক্ষ্যমাত্রা সত্ত্বেও হারতে হল দলকে? সাফাই দিতে গিয়ে বিরাট কোহলি কাঠগড়ায় তুললেন ডিসিশন রিভিউ সিস্টেমকেই (ডিআরএস)।

অজিদের বিরুদ্ধে চতুর্থ ওয়ানডে’র শুরুটা দুর্দান্ত করেছিলেন ভারতীয় ওপেনিং জুটি। ৯৫ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে ফেরেন রোহিত শর্মা। সেঞ্চুরি করে দলকে বড়সড় রানের দিকে এগিয়ে দেন দলের ‘গব্বর’ শিখর ধাওয়ান। তা সত্ত্বেও দিনের শেষে ৪ উইকেটে পরাস্ত হন বিরাটরা। ফলে পাঁচ ম্যাচের সিরিজ এখন দাঁড়িয়ে ২-২-এ। অর্থাৎ দিল্লিতে যে দল জিতবে, সিরিজ তার। উল্লেখ্য, ঘরের মাটিতে ইতিমধ্যেই টি-টোয়েন্টি সিরিজ খুইয়েছেন কোহলিরা। এমন পরিস্থিতিতে রবিবারের হারের পর স্বাভাবিকভাবেই চিন্তার ভাঁজ শিবিরে। কিন্তু কেন এমন পরিণতি হল? ব্যাটিং, বোলিং বা ফিল্ডিং নয়, দলের হারের জন্য ভারত অধিনায়ক দূষলেন ডিআরএস-কে।

[খুনের চেয়েও বড় অপরাধ ম্যাচ-ফিক্সিং, গড়াপেটা নিয়ে প্রথমবার মুখ খুললেন ধোনি]

৪৪ ওভার চলাকালীন ৪১ রানে ব্যাটিং করছিলেন অস্ট্রেলিয়ার টার্নার। বিরাটের মতে, টার্নারের ব্যাটের কোণা ছুঁয়ে বল পৌঁছায় উইকেটকিপার ঋষভ পন্থের হাতে। সঙ্গে সঙ্গে আউটের আবেদন জানান ভারতীয়রা। যদিও ফিল্ড আম্পায়ার তা নাকচ করে দেন। এরপরই রিভিউ দাবি করেন ক্যাপ্টেন কোহলি। রিপ্লে-তে স্নিকোমিটারে পরিষ্কার স্পাইক দেখা গেলেও তৃতীয় আম্পায়ার জানান, আউট দেওয়ার কোনও কারণ দেখছেন না তিনি। তাই ফিল্ড আম্পারের সিদ্ধান্তকেই চূড়ান্ত বলে ঘোষণা করা হয়। তারপরই ক্রিজে জাঁকিয়ে বসে ৪৩ বলে ৮৪ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন টার্নার। ডিআরএস-এর সিদ্ধান্তে যে খুশি নন কোহলি, ম্যাচ শেষে তা নিজমুখেই জানিয়ে দেন তিনি। সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, “ডিআরএস আমাদের অনেককেই অবাক করে। এটি একেবারেই ধারাবাহিক নয়। ওই মুহূর্তটাই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারত।” চলতি সিরিজের তৃতীয় ওয়ানডে-তেও শিরোনামে উঠে এসেছিল রিভিউ সিস্টেম। কুলদীপের বলে এলবিডব্লিউ হওয়ার পর রিভিউ চেয়েছিলেন ফিঞ্চ। কিন্তু তাতেও সিদ্ধান্তের পরিবর্তন হয়নি।

বিরাট রিভিউ সিস্টেমকে দায়ী করলেও শিখর ধাওয়ান কিন্তু অন্য কথা বলছেন। তাঁর মতে, মোহালিতে সন্ধের পর শিশির অনেকটা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়াবে বলেই ভেবেছিল দল। কিন্তু যতটা ভাবা হয়েছিল, মাঠ ততটা ভেজেনি। ফলে রান তাড়া করতে সমস্যায় পড়তে হয়নি প্রতিপক্ষকে।

[মোহালির পাটা উইকেটে বুমরাহদের নিয়ে ছিনিমিনি খেলল অজিরা]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং