Advertisement
Advertisement

ব্যাডমিন্টন-টেবল টেনিসে সোনা, কমনওয়েলথে সোনালি সফর ভারতের

গেমসের পঞ্চম দিনের শেষে সোনার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল দশ।

CWG 2018: India bags Table Tennis men’s gold and badminton mixed team gold
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:April 9, 2018 7:53 pm
  • Updated:July 11, 2018 12:20 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গোল্ড কোস্টে সোনা ফলছে ভারতীয় শিবিরে। রবিবারই মহিলাদের টেবল টেনিসের দলগত বিভাগে ইতিহাস গড়ে সোনা ঘরে তুলেছিলেন মৌমা দাসরা। ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতে সফল ভারতীয় পুরুষ প্যাডলাররাও। সোমবার নাইজেরিয়াকে ৩-০ ব্যবধানে হারিয়ে সোনা জিতে নিলেন ভারতীয় টেবল টেনিস তারকারা। একদিকে যখন টেবল টেনিসে ভারতীয় দলের জয়জয়কার, ঠিক তখনই ব্যাডমিন্টন কোর্টে নজর কাড়লেন সাইনা নেহওয়ালরা। কমনওয়েলথ গেমসের পঞ্চম দিন মালয়েশিয়াকে ৩-১-এ উড়িয়ে দিয়ে সোনা জিতল ভারতীয় মিক্সড ব্যাডমিন্টন টিম।

[‘মাঠে অঘটন ঘটলে আমরা দায়ী নই,’ ম্যাচের আগে হুমকির মুখে ধোনির চেন্নাই]

শুটার জিতু রাইয়ের হাত ধরে ভারতের ঝুলিতে এসেছিল অষ্টম সোনা। পঞ্চম দিনের শেষে সেই সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল দশে। এদিন পুরুষ টেবল টেনিসের দলগত বিভাগে দুর্দান্ত শুরু করেন শরৎ কামাল। নাইজেরিয়ার বোড়েকে হারান তিনি। জয়ের ধারা বজায় রেখে পরের ম্যাচে সেগুনকে মাটি ধরিয়ে ব্যবধান বাড়ান তারকা প্যাডলার সত্যেন গণশেখরণ। এরপর পুরুষ ডাবলসে বোড়ে ও ওমোতায়োকে হারিয়ে বাজিমাত করে সত্যেন ও হরমিত দেশাই জুটি। আর তারপরই শুরু হয়ে যায় জয়ের সেলিব্রেশন। কমনওয়েলথের মঞ্চে টেবল টেনিসে এর আগে কখনও সোনা জেতেনি ভারত। সেখানে এবারের গেমসে এই বিভাগে এল জোড়া সোনা। স্বাভাবিকভাবেই উচ্ছ্বসিত খেলোয়াড় ও কোচেরা।

টেবল টেনিসে সাফল্যের পর ফের ভারতীয়দের মুখে হাসি ফোটালেন সাইনা নেহওয়ালরা। কমনওয়েলথে প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন হল ভারতীয় মিক্সড দল। যে দলের অধিকাংশেরই কারিগর সেই দ্রোণাচার্য পুল্লেলা গোপীচাঁদ। গত কয়েক বছরে যিনি দেশের ব্যাডমিন্টনের চেহারাটাই বদলে দিয়েছেন। অশ্বিনি পোনাপ্পা, সত্বিক রণকিরেড্ডি, কিদাম্বি শ্রীকান্ত ও সাইনার হাত ধরে এল সেই বহু প্রতীক্ষিত সোনার পদক। যাঁদের মধ্যে সত্বিক, শ্রীকান্ত ও সাইনা তাঁরই শিষ্য। অর্থাৎ গোপীচাঁদের তত্ত্বাবধানেই রচিত হল নয়া ইতিহাস। জয়ের পর দ্রোণাচার্য বলেন, “মালয়েশিয়া অত্যন্ত কঠিন প্রতিপক্ষ। মিক্সড টিম ইভেন্টে তাদের হারানো মুখের কথা নয়। তাই দারুণ লাগছে। অশ্বিন ও সত্বিক দুর্দান্ত শুরু করেছিল। আর শেষটা করল শ্রীকান্ত ও সাইনা। কয়েক বছর আগেও কল্পনাই করা যেত না আমরা মালয়েশিয়াকেও হারাতে পারি। নিজেদের উন্নতি দেখে ভাল লাগছে।” পঞ্চম দিনের শেষে ভারতের পদক সংখ্যা ১৯। যার মধ্যে দশটি সোনা, চারটি রুপো ও পাঁচটি ব্রোঞ্জ পদক।

[ভারতের হয়ে অষ্টম সোনা জিতলেন জিতু রাই, রুপো আনল বাংলার মেহুলি]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ