৬ আশ্বিন  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুপ্রিয় মুখোপাধ্যায়: শনিবাসরীয় দুপুরে বেশ হতাশই লাগছিল মহেশ ভূপতিকে। ঘণ্টা দেড়েক আগেও যে রকম উজ্জীবিত লাগছিল তাঁকে, এখন সেসব উধাও। হয়তো ভেবেছিলেন রোহন বোপান্না-দ্বিবিজ শরন জুটি ডাবলস ম্যাচ জেতার পর সিঙ্গলসে লড়াই করবেন প্রজনেশ গুণেশ্বরণ। কিন্তু কোথায় কী? ডাবলসে বোপান্নারা যে লড়াইটা করলেন, তার বিন্দুমাত্র যদি সিঙ্গলসে থাকত, তাহলে হয়তো এত সহজে জেতে না ইতালি। অথচ বোপান্নারা ডাবলস জেতার পর সাউথ ক্লাব জুড়ে আলোচনা শুরু হয়ে গিয়েছে। ব্রাজিল-চিনের পর ইতিহাসের পুনরাবৃত্তি কি ইতালির ক্ষেত্রেও হবে?
২০১০-এ ব্রাজিল ও গত বছর চিনের কাছে পিছিয়েও জিতেছিল ভারত। এবারও ডাবলসে রোহন বোপান্না-দ্বিবিজ শরন ৪-৬, ৬-৩ ও ৬-৪ সেটে ইতালির সিমোনে বোলেলি-মাতেয়ো বেরেত্তিনিকে হারানো ২৪ ঘন্টা আগে ভারত দু’টো সিঙ্গলসে হেরে যায়। বোপান্নারা জেতার পর মনে হচ্ছিল কামব্যাক সম্ভব। ফিরতি সিঙ্গলসেও দাঁড়াতে পারলেন না গুণেশ্বরণ। হারলেন ৬-১, ৬-৪ এ।

[সাইরাজ বিদায় সিএবি-র, বাংলার নতুন কোচ অরুণ লাল]

শুক্রবার প্রথম সিঙ্গলসে হেরেছিলেন রামকুমার রমানাথন। দ্বিতীয় ম্যাচে ফের হারেন ভারতের সবচেয়ে আশা জাগানো খেলোয়াড় প্রজ্ঞেশ গুণেশ্বরণ। তখনই সকলে ধরে নিয়েছিলেন, ইতালির কাছ থেকে ভারতের বিদায় নেওয়া স্রেফ সময়ের অপেক্ষা মাত্র। মহেশ গতকাল বলেই দিয়েছিলেন, চিনের চেয়ে ইতালি অনেক বেশি শক্তিশালী দল। কিন্তু শনিবার ডাবলসে দুর্দান্ত শুরু করেন বোপান্না-শরন জুটি। এদিনও অনেক বেশি দর্শকও এসেছিলেন সাউথ ক্লাবে। চলছিল বিউগলের বিকট আওয়াজ। মাঝে মাঝে কিম্ভুতকিমাকার সব শব্দ ভেসে আসছিল গ্যালারি থেকে। তবু প্রথম সেট রোহনরা খুইয়ে বসেন। মনে হচ্ছিল সব শেষ। কিন্তু গতকাল যিনি ইতালিকে আশা-ভরসার প্রবল ঢেউ তুলে সাড়া জাগিয়ে ছিলেন আজ সেই ডেভিস কাপে অভিষেককারী বেরেত্তোনি ডুবিয়ে দিলেন।

[দীর্ঘদিনের গার্লফ্রেন্ডকেই বিয়ে করতে চলেছেন নাদাল]

ভারত প্রথম তাঁর সার্ভিস ব্রেক করল তৃতীয় ম্যাচের দ্বিতীয় সেটে। ব্যাস, ভাগ্যের চাকা ক্রমশ ঘুরতে শুরু করল ভারতের দিকে। সেই সার্ভিস ব্রেকের পরেই ভারত দ্বিতীয় সেট জিতে নিয়ে বেরিয়ে গেল। তখন সাউথ ক্লাব বোপান্নাদের হয়ে গিয়েছে। তৃতীয় সেটে পরপর বোলেলির দু’বার সার্ভিস ব্রেক করে ম্যাচ ছিনিয়ে নিল ভারত। টেনিসের ইতিহাসে ভারত বরাবর ডাবলসে শক্তিশালী। লি-হেশের পর বোপান্না-শরনও তা প্রমাণ করলেন। কিন্তু তাতে কোনও লাভ নেই। পরের সিঙ্গলসে প্রজনেশ হেরে যেতেই যাবতীয় আশা শেষ। ডেভিস কাপে হারে ভারতের। এই হারের ফলে পরের বছর আঞ্চলিক পর্বে খেলতে হবে ভারতীয় টিমকে। বহুবছর ফর এবার সাউথ ক্লাবে ডেভিস কাপের আসর বসেছিল। কিন্তু স্মৃতি মোটেই সুখকর হল না। ভারতীয় টেনিসে অবনমনের সাক্ষী হয়ে রইল কলকাতা

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং