Advertisement
Advertisement

রাজীব গান্ধী খেলরত্নের জন্য সুপারিশ দীপার নাম

রাজীব খেলরত্ন পুরস্কারের জন্য দীপার নাম সুপারিশ করেছে ক্রীড়ামন্ত্রক৷

Dipa Karmakar recommended for Khel Ratna
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:August 17, 2016 4:52 pm
  • Updated:July 13, 2018 6:04 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রিওয় পদক খরা কাটিয়ে দেশের মুখ উজ্জ্বল করবেন তিনি৷ সানিয়া মির্জা, সাইনা নেহওয়ালরা ব্যর্থ হওয়ার পর ত্রিপুরার বাঙালিনীর দিকেই নজর ছিল ১৩০ কোটি দেশবাসীর৷ কিন্তু শেষমেশ বহু কাঙ্খিত সেই পদক অধরাই থেকে গিয়েছে৷ চতুর্থ স্থানে শেষ করে রিও ওলিম্পিককে বিদায় জানিয়েছেন ‘প্রোদুনোভা স্পেশালিস্ট’ দীপা কর্মকার৷

দেশবাসীর তাঁর প্রতি কোনও ক্ষোভ নেই৷ পদক না পাওয়ার জন্য দীপাকে কাঠগড়াতেও দাঁড় করানো হচ্ছে না৷ বরং এই অনন্য কৃতিত্বের জন্য গর্বিত গোটা দেশ৷ শচীন তেণ্ডুলকর থেকে বিগ বি, সকলেই তাঁকে অভিনন্দন জানিয়েছেন৷ তা সত্ত্বেও হতাশ দীপা৷ পদক হাতছাড়া করার জন্য দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চেয়েছেন তিনি৷ বলেছেন, “সবাই আমার জন্য প্রার্থনা করেছিলেন৷ আশা করেছিলেন আমি পদক নিয়ে ফিরব৷ তাঁদের কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি৷ স্বপ্নপূরণ করতে পারিনি বলে৷”

Advertisement

কিন্তু দীপার কি সত্যিই ক্ষমা চাওয়া সাজে? যে দীপা একের পর এক প্রতিকূলতা টপকে ওলিম্পিকের মঞ্চ পর্যন্ত পৌঁছেছিলেন, তিনি দেশের থেকে কী পেয়েছেন? অনুশীলনের জন্য উন্নত পরিকাঠামো, বিদেশে প্রশিক্ষণ, বিশ্বমানের কোচ, কিছুই তো জোটেনি তাঁর৷ যাঁরা কঠিন সময়ে তাঁর পাশে দাঁড়াননি, হিসেব মতো তাঁদেরই তো দীপার কাছে ক্ষমা চেয়ে নেওয়া উচিত৷ কিন্তু সাধারণ মধ্যবিত্ত বাড়ির দীপা মাটির মানুষ৷ তিনি বোঝেন, তাঁর মন খারাপ মানে গোটা দেশেরও মন খারাপ৷ আর এই জন্যই ক্ষমাপ্রার্থী তিনি৷ দীপার পাশাপাশি শেষ আট থেকে বিদায় নেওয়ায় ক্ষমা চেয়েছেন ভারতীয় পুরুষ হকি দলের অধিনায়ক শ্রীজেশও৷ বলছিলেন, “দুর্ভাগ্যবশত আমরা পারিনি৷ চেষ্টা করেছিলাম৷ কিন্তু প্রত্যাশার চাপের কাছে মাথা নোয়াতে হল আমাদের৷”

Advertisement

ফল যাই-ই হোক না কেন, দীপাকে নিয়ে গর্বিত গোটা দেশ৷ আর সেই কারণেই তাঁর দুর্দান্ত পারফরম্যান্সকে সম্মান জানাতে চলেছে দেশের ক্রীড়ামন্ত্রক৷ রাজীব গান্ধী খেলরত্ন পুরস্কারের জন্য দীপার নাম সুপারিশ করেছে ক্রীড়ামন্ত্রক৷ ২৯ আগস্ট জাতীয় ক্রীড়াদিবসে রাষ্ট্রপতির হাত থেকে পুরস্কার গ্রহণ করবেন তিনি৷ গত বছর অর্জুন সম্মানে ভূষিত করা হয়েছিল তাঁকে৷ দীপার পাশাপাশি শুটার জিতু রাইয়ের নামও সুপারিশ করা হয়েছে৷ পাশাপাশি ব্যাডমিন্টনে যদি কিদাম্বি শ্রীকান্ত ও পি ভি সিন্ধু পদক জিততে পারেন, তাহলে তাঁরাও সরাসরি সুপারিশের আওতায় চলে আসবেন৷ দ্রোণাচার্য হওয়ার দৌড়ে রয়েছেন দীপার কোচ বিশ্বেশ্বর নন্দী৷ ওই দিনই রাষ্ট্রপতির হাত থেকে একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে অর্জুন পুরস্কার নেবেন অজিঙ্ক রাহানে৷ ওলিম্পিকে পদক না পেলেও অর্জুন পুরস্কারের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে বেশ কিছু ওলিম্পিয়ানের নাম৷ তাঁরা হলেন, ভি আর রঘুনাথ (হকি), শিবা থাপা (বক্সিং), ললিতা বাবর (ট্র্যাক অ্যান্ড ফিল্ড), সৌরভ কোঠারি (বিলিয়া্র্ডস), রজত চৌহান (তিরন্দাজি), অপূর্বী চান্ডিলা (শুটিং)৷বাংলা থেকে অর্জুন পুরস্কারের জন্য সুপারিশ করা হয়েছে জাতীয় ফুটবল দলের প্রাক্তন অধিনায়ক সুব্রত পাল ও প্যাডলার সৌম্যজিত ঘোষের নাম৷

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ