BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

স্ট্র্যাটেজি না বদলালে ভুগতে হবে ইংল্যান্ডকে

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 21, 2016 10:12 am|    Updated: June 21, 2016 12:19 pm

An Images

ম্যাচের ফলাফল:
ইংল্যান্ড ০
স্লোভাকিয়া ০

debasish_webদেবাশিস মুখোপাধ্যায়: ম্যাচের দিনই বলেছিলাম, রুনিদের নিয়ে আমি খুব একটা আশাবাদী নই৷ একে তো দলটায় প্রচুর জুনিয়র ফুটবলার৷ তার উপর যে ফুটবলার দায়িত্ব ও নেতৃত্ব নিয়ে এই দলটাকে উতরে দিতে পারত, সেই রুনিকে প্রথম দু’ম্যাচে ওর নিজের পজিশনে খেলানো হল না৷ এদিন তো আবার প্রথম দলেই জায়গা পেল না ও৷ সবথেকে অবাক লাগল ইংল্যান্ডের প্রথম এগারো দেখে৷ আগের ম্যাচের দলে ছ’টা পরিবর্তন! সাধারনত ম্যাচ জিততে চাওয়া কোনও কোচ একসঙ্গে এতগুলো পরিবর্তন করে দু’টি কারণে৷ এক, যখন গ্রুপের শীর্ষস্থান নিশ্চিত থাকে, তখন দলের বাকিদের দেখে নিতে৷ দুই, দল সেট না হলে৷ গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে থাকা তো দূর, পরের রাউন্ডে যাওয়া নিশ্চিত ছিল না৷ স্লোভাকিয়ার বিরু‌দ্ধে অন্তত একটা পয়েণ্ট পেতেই হত৷ তার মানে প্রমাণ হয় যে, হজসন এখনও দলকে সেট করতে পারেনি৷
স্লোভাকিয়ার বিরু‌দ্ধে হজসনের স্ট্র্যাটেজিও আমায় অবাক করল৷ দলে প্রচুর পরিবর্তন আনলেও বদল নেই পরিকল্পনায়৷ কোনওরকমে ওপেন স্পেস তৈরি করে স্ট্রাইকারদের জন্য লম্বা বল ফেলার কথাই হয়তো প্রথম থেকে বলে রেখেছিল৷ যেটা স্লোভাকিয়া কোচ কোজাকের কাজ অনেকটা সহজ করে দেয়৷ এমনিতেই ওরা ম্যাচটা শুরু করেছিল আল্ট্রা ডিফেন্সিভ মানসিকতায়৷ যাতে কোনও ভুল ছিল না৷ দু’ ম্যাচে তিন পয়েন্ট পেয়েই ছিল ওরা৷ এই ম্যাচ থেকে একটা পয়েণ্ট নিশ্চিত করতে চেয়েছিল কোজাক৷ যাতে তৃতীয় স্থানাধিকারী দলের র‍্যাঙ্কিংয়ে উপরের দিকে থাকা যায়৷ কিন্তু তিন পয়েণ্ট নিশ্চিত করতে গিয়ে অহেতুক গোল হজম করে ম্যাচটা হেরে গেলে নক আউটে যাওয়ার পিছনের দরজায় তালা না ঝুললেও, খিল পড়তেই পারত৷
প্রতিপক্ষের এই ধরনের পায়ের জট ছাড়াতে গেলে দরকার হয় মেসি বা ইনিয়েস্তার মতো কাউকে৷ যে মাঝমাঠ থেকে খেলা তৈরি করতে পারবে৷ অথবা উইং থেকে ক্রমাগত আক্রমণ শানাতে হয়৷ শুরুর দিকে ডানদিক কিছুটা সক্রিয় থাকলেও বাঁদিক থেকে খুব একটা সাহায্য পাচ্ছিল না ভার্ডি, স্তরিজরা৷ এমন অবস্থায় স্ট্রাইকারদের অতিরিক্ত দায়িত্ব নিতে হয়৷ গোলের জন্য পাওয়া হাফ চান্সও নষ্ট করা যায় না৷ দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই পরপর দু’টো পরিবর্তন করল হজসন৷ মাঠে আনল রুনি আর আলিকে৷ কিছুক্ষণ পর কেনকেও৷ কিন্তু লাভের লাভ হল না৷ আলি নেমেই একটা সুযোগ পেয়েছল, কিন্তু গোল লাইন সেভ হয়ে যায়৷ এগুলো নিয়ে আফশোস করে লাভ নেই৷ খেলার অঙ্গ৷ ড্র করে রানার্স হয়ে পরের রাউন্ডে গেল ইংল্যান্ড৷ ততক্ষণে রাশিয়াকে ৩-০ গোলে হারিয়ে গ্রূপের শীর্ষে থাকা নিশ্চিত করে ফেলেছে ওয়েলস৷ স্লোভাকিয়ার সামনেও থাকল নক আউটে যাওয়ার সুযোগ৷
শুরুর কথাটা শেষে আরও একবার বলা উচিত৷ স্ট্র্যাটেজি না পাল্টালে এই ইংল্যান্ড খুব একটা এগোতে পারবে না৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement