৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যাবতীয় ধর্ষণের অভিযোগ থেকে মুক্ত হতে চলেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। প্রাক্তন মডেল ক্যাথোরিন মায়োরগার অভিযোগ ভেস্তে যেতে চলেছে। কৌঁসুলিরা জানিয়ে দিয়েছেন, ক্যাথোরিনের আনা অভিযোগের কোনও ভিত্তি নেই।

২০০৯ সালের ঘটনা। অথচ মায়োরগা গত বছর অভিযোগ আনেন রোনাল্ডোর বিরুদ্ধে। তাঁর বক্তব্য ছিল, লাস ভেগাসের এক হোটেলে রোনাল্ডো দ্বারা ধর্ষিত হন। যথারীতি এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে লাস ভেগাসের প্রশাসন নেমে পড়েছিল তদন্ত করতে। কিন্তু দেখা গেল সেই তদন্তের কোনও সারবস্তু নেই। অর্থাৎ যে সমস্ত অভিযোগ রোনাল্ডোর বিরুদ্ধে আনা হয়েছিল, তার কোনও তথ্যপ্রমাণ পাওয়া যায়নি। ফলে, রোনাল্ডোকে আর ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত করা যাচ্ছে না।

জেলা কৌঁসুলির অফিস থেকে বলা হয়েছে, ১৩ জুন ২০০৯-এ ধর্ষণ করা হয়েছিল বলে জানিয়েছিলেন মায়োরগা। অথচ, পুলিশ তদন্ত করে দেখেছে, এই অভিযোগের যে সমস্ত প্রমাণ পাওয়া দরকার ছিল, তার কোনওটাই তাঁরা পাননি। আসলে মায়োরগার গত বছর মূল অভিযোগ ছিল, যখন এই ঘটনা ঘটে, তার পর স্বয়ং রোনাল্ডো নাকি তাঁর সঙ্গে আর্থিক চুক্তি করে ব্যাপারটার নিষ্পত্তি ঘটাতে চান। সেই ডাকে তিনি যথারীতি সাড়াও দিয়েছিলেন। কিন্তু পরবর্তীকালে বিবেক দংশন হওয়ায় ফের পুলিশের দ্বারস্থ হন মায়োরগা। গত বছর আগস্ট মাসে পুলিশের কাছে মায়োরগার অভিযোগ ছিল, জোর করে তাঁকে হোটেলে ধর্ষণ করেছিলেন রোনাল্ডো।

কৌঁসুলিদের বক্তব্য হল, ন’বছর আগেকার ঘটনা হওয়া সত্ত্বেও আমরা চেয়েছিলাম মামলাটাকে তুলে ধরতে। কিন্তু উপযুক্ত তথ্যপ্রমাণ আমরা পাইনি। যা নিয়ে এই মামলার কাজ নতুনভাবে এগোতে পারে। ফলে, রোনাল্ডোকে পুরোপুরি ধর্ষণ অভিযোগে অভিযুক্ত করা যাচ্ছে না। মায়োরগার আইনজীবী বলেছিলেন, কোর্টের বাইরে তাঁর মক্কেল ব্যাপারটার নিষ্পত্তি ঘটানোর জন্য আর্থিক চুক্তিতে সায় দিয়েছিলেন। যদিও মায়োরগা কিংবা রোনাল্ডোর আইনজীবীকে এ বিষয়ে জিজ্ঞাসা করেছিল সংবাদ সংস্থা। অথচ, দু’পক্ষ থেকেই বিষয়টাকে নিয়ে কেউ মুখ খুলতে চায়নি। এমনকী রোনাল্ডাকেও দেখা যায়নি সোশ্যাল মিডিয়ায় এ বিষয়ে কোনও বক্তব্য রাখতে।

এ বছর জানুয়ারিতে স্প্যানিশ আদালত রোনাল্ডোকে দু’বছরের বন্দিদশা থেকে মুক্তি দিয়েছিল। কারণ, তিনি আয়কর ফাঁকি দিয়েছিলেন। স্পেনের কোর্ট তাঁকে দু’বছর জেলে বন্দি থাকার নির্দেশ দিতে পারত কিন্তু সেই কড়া শাস্তি থেকে রেহাই দেয় স্পেনের কোর্ট। রোনাল্ডো যথারীতি তিন লাখ পঁয়ষট্টি হাজার ইউরো জরিমানা দিয়ে বিষয়টির নিষ্পত্তি ঘটান। পাঁচবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ বিজয়ী রোনাল্ডোকে নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। কখনও তিনি নারীঘটিত কেলেঙ্কারিতে জড়িয়েছেন, আবার কখনও আয়কর ফাঁকি দেওয়ার কাজেও তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে।

তবে, মায়োরগার আনা ধর্ষণের অভিযোগ ছিল মারাত্মক। রোনাল্ডো মাঝে আমেরিকা যাওয়ার সাহসও দেখাতে পারছিলেন না। যেহেতু, ওখানে গেলে স্থানীয় পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তার করতে পারে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং