১৪ চৈত্র  ১৪২৬  শনিবার ২৮ মার্চ ২০২০ 

Advertisement

সবুজ-মেরুনে আই লিগ ট্রফি আসছে ৪ এপ্রিল! যুবভারতী থেকে শোভাযাত্রার ভাবনা সমর্থকদের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: February 27, 2020 1:52 pm|    Updated: February 27, 2020 2:02 pm

An Images

দুলাল দে: প্রথমে ট্রাউ, তারপর যথাক্রমে চেন্নাই এবং আইজল। ডার্বির আগে এই তিনটে ম্যাচে খেলতে হবে মোহনবাগানকে (Mohun Bagan A.C.)। আপাতত লিগ টেবিলের যা অবস্থা, তাতে পর পর তিনটে ম্যাচ জিতে গেলে ডার্বি খেলার আগেই হয়তো চ্যাম্পিয়ন হয়ে যাবে মোহনবাগান। পর পর তিনটি ম্যাচে না জিতে ডার্বি ম্যাচ জিতে আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হলেও অবশ্য ফেডারেশনের তরফে মোহনবাগান নিয়ে পরিকল্পনা বদলাচ্ছে না। ৪ এপ্রিল ঘরের মাঠে রিয়াল কাশ্মীরের বিরুদ্ধে ম্যাচেই মোহনবাগানের হাতে আই লিগ জয়ী ট্রফি তুলে দেবে ফেডারেশন। তবে, ঘরের মাঠ বলতে অন্যান্য হোম ম্যাচের মতো কল্যাণী নয়। গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা হল, মোহনবাগানের তরফে ফেডারেশনকে অলিখিতভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, দ্বিতীয়বার আই লিগ জয়ী ট্রফি নিয়ে সবুজ মেরুন সমর্থকরা যাতে আনন্দ করতে পারেন, সেজন্য ৪ এপ্রিল রিয়াল কাশ্মীরের বিরুদ্ধে হোম ম্যাচটা কল্যাণীর বদলে যুবভারতীতে খেলবে মোহনবাগান।

Mohun-bagan

শুধু নিজেদের সমর্থকরাই নন। প্রতিপক্ষ দলের কোচ থেকে কর্তারা, প্রত্যেকই ধরে নিয়েছেন, এবারের আই লিগে মোহনবাগানের চ্যাম্পিয়ন হওয়াটা শুধু সময়ের অপেক্ষা। বাকি দলগুলি খেলতে হয়ে বলে খেলছে। তাই মোহনবাগান চ্যাম্পিয়ন হলে তা আর নতুন করে কোনও চমক হবে না। সমর্থকদের শুধু একটাই আগ্রহ, কবে কোন ম্যাচে দ্বিতীয়বারের জন্য আই লিগ চ্যাম্পিয় হবেন বেইতিয়ারা? আপাতত লিগ টেবিলের যা অবস্থা মোহনবাগান বাদে কোনও দলই ৪২-৪৩ পয়েন্টর বেশি উঠতে পারবে না। মোহনবাগানের সমসংখ্যক ম্যাচ খেলে পাঞ্জাব এফসি ১১ পয়েন্ট পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয় পজিশনে রয়েছে। আর একটা ম্যাচ কম খেলে ১৩ পয়েন্ট পিছিয়ে থেকে চার্চিল রয়েছে তৃতীয় স্থানে। মোহনবাগান পর পর তিনটে ম্যাচ জেতার পাশাপাশি চার্চিল বা পাঞ্জাব এফসি কোনও ম্যাচে পয়েন্ট হারালে ডার্বির অনেক আগেই লিগ চ্যাম্পিয়নশিপের পতাকা তুলে দিতে পারবে মোহনবাগান। কিন্তু ফেডারেশন কোনও ঝুঁকি নিতে চাইছে না। তাই ঠিক হয়েছে, ৪ এপ্রিল রিয়াল কাশ্মীরের বিরুদ্ধে শেষ হোম ম্যাচে আই লিগের চ্যাম্পিয়ন ট্রফি তুলে দেওয়া হবে মোহনবাগানের হাতে। এরপরেও মোহনবাগানের অ্যাওয়ে ম্যাচ আছে গোকুলামের বিরুদ্ধে। যা সম্ভবত হবে ১২ এপ্রিল। কিন্তু ফেডারেশন ততদিন আর অপেক্ষা করতে রাজি নয়।

[আরও পড়ুন: চার্চিলের বিরুদ্ধে যুবভারতীতে খেলবে ইস্টবেঙ্গল, নয়া বিদেশিতে মুগ্ধ কোচ মারিও]

ফেডারেশনের(All India Football Federation) ইচ্ছের কথা জেনেই মোহনবাগান কর্তারা ঠিক করে ফেলেছেন, অতিরিক্ত খরচ হলেও সমর্থকদের কথা ভেবেই ম্যাচটা কল্যাণীর বদলে যুবভারতীতে খেলবে। ফলে শোভাযাত্রা করে আই লিগ ট্রফি ক্লাব তাঁবুতে নিয়ে আসার জন্য মোহনবাগান সমর্থকদের আর বিমানবন্দরে যাওয়া হবে না। শোভাযাত্রা করে ট্রফি নিয়ে আসা হবে যুবভারতী থেকে। যেভাবে মোহনবাগান দৌড়চ্ছে, সবাই ধরেই নিয়েছেন, রিয়াল কাশ্মীর ম্যাচের আগেই মোহনবাগানের আই লিগ জয় নিশ্চিত হয়ে যাবে। তাই ৪ এপ্রিল যুবভারতী থেকে কীভাবে আই লিগ ট্রফি নিয়ে শোভাযাত্রা হবে, তার পরিকল্পনা অনেক আগেই ছকে ফেলা সম্ভব হবে।

Mohun-bagan

[আরও পড়ুন: পিছিয়ে থেকেও অ্যাওয়ে ম্যাচে বড় জয়, ছন্দে ফিরছে ইস্টবেঙ্গল]

এদিকে, চার্চিলের বিরুদ্ধে মোহনবাগানের টানা ২৩ পাসে গোল নিয়ে ফেডারেশনের অন্দরমহলে রীতিমতো আলোচনা। মোহনবাগান কোচ কিবু ভিকুনা যে গোল নিয়ে মন্তব্য করেছেন “নিজস্ব মডেল।” তিনি বলে, “ভারতে আসার পর থেকেই চেষ্টা করছিলাম নিজেদের একটা খেলার স্টাইল গড়ে তুলতে। আমাদের ফুটবলাররা যে খেলাটা খেলছে, তা আমাদের স্টাইল মেনেই। তবে আমাদের প্রত্যেকটা ট্রেনিং সেশনে ঠিক করি, আরও ভাল কী ভাবে খেলা যায়।” আর আই লিগের সিইও সুনন্দ ধর বলছেন, “মোহনবাগান ধারাবাহিক ভাবে যে ফুটবলটা খেলছে, তা ভারতীয় ফুটবল মানকে সমৃদ্ধ করছে। এরকম আকর্ষণীয় ফুটবলের জন্য ফুটবল সমর্থকরা ফুটবলের প্রতি আরও আকর্ষিত হন।” তবে কোচ কিবু ভিকুনা এদিনও ফুটবলারদের বলেছেন, “যে যাই বলুক, কিংবা ভাবুক এই মুহূর্তে চ্যাম্পিয়নশিপের চিন্তা কিছুতেই মাথায় আনা যাবে না। মাথায় শুধুই থাকবে পরের ট্রাউ ম্যাচ নিয়ে ভাবনা। একটা একটা ম্যাচ ধরে এগোতে হবে।” চ্যাম্পিয়নশিপ ট্রফি নিয়ে নানা পরিকল্পনা বেসরকারিভাবে ঠিক হয়ে গেলেও, মোহনবাগান কর্তারা কোচ কিংবা ফুটবলারদের কিছুই জানাচ্ছেন না। তাঁরাও চাইছেন, ফুটবলাররা এখন একটা একটা ম্যাচ ধরে পরিকল্পনা করুক। শেষ ল্যাপে যাতে সামান্য ভুলেও দ্বিতীয়বার আই লিগ ট্রফি ঘরে তোলার স্বপ্ন ব্যর্থ না হয়। তাই সব পরিকল্পনাই চলছে চুপিসারে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement