Advertisement
Advertisement

Breaking News

Mohammedan Sporting

যুবভারতীতে আই লিগ পাবে মহামেডান, ঐতিহাসিক মুহূর্তের সাক্ষী হতে মুখিয়ে সমর্থকরা

দিল্লি এফসি-র বিরুদ্ধে নিয়মরক্ষার ম্যাচ। তবু জিতেই মরশুম শেষ করতে চায় আই লিগ চ্যাম্পিয়নরা।

Mohammedan Sporting will be crowned I League trophy at Salt Lake Stadium

আই লিগ চ্যাম্পিয়ন মহামেডান। ফাইল চিত্র

Published by: Arpan Das
  • Posted:April 13, 2024 1:45 pm
  • Updated:April 13, 2024 1:45 pm

প্রসূন বিশ্বাস: সন্ধ্যা হয় হয়, তখনও ক্লাব তাঁবুর বাইরে হাজার খানেক মহামেডান (Mohammedan Sporting) সমর্থক চিৎকার করে চলেছেন শনিবার দিল্লি ম্যাচের একটা টিকিটের জন্য। সবাই জানে এই ম্যাচটার ফলাফল নিয়ে এতটুকু মাথাব্যথা নেই সাদা-কালো সমর্থকদের। শনিবার যুবভারতীতে উপস্থিত থেকে সামাদ আলি মল্লিকদের আই লিগ ট্রফি নেওয়ার ঐতিহাসিক মুহূর্তের সাক্ষী হতে।
ক্লাব তাঁবুতে বসে বাইরের এই উচ্ছ্বাস, উন্মাদনা দেখছিলেন মহামেডানের কার্যকরী সভাপতি কামরুদ্দিন আহমেদ। অনেকক্ষণ চেয়ে থেকে স্বগতোক্তির সুরে বলতে লাগলেন, “তখন বোধহয় ২০০১-২০০২ মরশুম হবে। সুলতানদা ফুটবল দল গড়ার জন্য এদিকে ওদিকে অর্থের জোগাড় করতে ছুটে বেড়াতেন। কি সব দিন কাটিয়ে এসেছি আমরা। সুলতানদা স্বপ্ন দেখতেন একদিন সমর্থকরা এভাবেই ঘিরে থাকবে ক্লাবকে। আজ যেভাবে উচ্ছাস দেখাচ্ছে। ওঁর স্বপ্ন পূরণ হল। আমরা আই লিগ চ্যাম্পিয়ন হলাম, অথচ উনি দেখতে পেলেন না।”
ততক্ষণে ক্লাব লনে ইনভেস্টর কর্তা দীপক সিংকে ঘিরে ধরেছেন একঝাঁক সমর্থক। তাঁর সঙ্গে একটা সেলফি তোলার জন্য মহামেডান জনতার আবদার ছিল চোখে পড়ার মতো। হাসতে হাসতে দেদার সেলফির আবদার মেটাতে মেটাতেই তিনি বলেন, ‘‘তিন বছর আগে আমি এই দিনটার স্বপ্ন দেখেছিলাম। সেই সময় আমি টুইটও করেছিলাম। আজ আমার সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। এবার এই সাফল্য ধরে রাখতে হবে।”

[আরও পড়ুন: ময়ঙ্ককে নিয়ে ধীরে চলো নীতি লখনউয়ের, কবে মাঠে ফিরবেন এই পেস সেনশেসন?]

আপাতত দল গঠনের কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে মহমেডানের। ইনভেস্টর কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকও করেছেন আমিরুদ্দিন ববিরা। ঠিক হয়েছে আগামী মরশুমের জন্য আক্রমণভাগের জন্য লাতিন আমেরিকার এক স্ট্রাইকার নিতে পারে মহামেডান। একজন ডিফেন্সিভ মিডিওর খোঁজে রয়েছেন তাঁরা। আপাতত রেমসাঙ্গা অন্য দলে পা বাড়িয়ে থাকলেও তাঁকে বুঝিয়ে সুঝিয়ে আপাতত দলে থাকতে রাজি করিয়েছেন বলে দাবি দীপক সিংয়ের।
এদিন এই উৎসবের আবহে মহামেডান তাঁবুতে এসেছিলেন প্রাক্তন ফুটবলার মানস ভট্টাচার্য। বলছিলেন, “সাফল্য আসলে সমর্থকরা এভাবেই উৎসব পালন করবে। দেখেও ভালো লাগছে। এটা খুব প্রয়োজন ছিল।” শনিবার ফেডারেশন সভাপতি কল্যাণ চৌবে মাঠে উপস্থিত থাকবেন। ক্লাব থেকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে মহানাগরিক ফিরহাদ হাকিম, ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস ও দমকল মন্ত্রী সুজিত বসুকে। শেষ ম্যাচ দেখতে আসার জন্য আমন্ত্রণ গিয়েছে ইস্টবেঙ্গল ও মোহনবাগান ক্লাবের কর্তাদের কাছেও।

Advertisement

কর্তাদের আশা শনিবার পুরো স্টেডিয়াম ভর্তি থাকবে। শুক্রবার সারাদিন ধরেই টিকিটের জন্য ক্লাব তাঁবুতে ভিড় জমিয়েছেন সাদা-কালো সমর্থকরা। ইতিমধ্যেই শহরের কুড়িটি স্থানে “আই লিগ চ্যাম্পিয়ন মহামেডান” লেখা বিজ্ঞাপনের বোর্ড লেগে গিয়েছে। গড়িয়া, নিকো পার্ক, পিটিএস, কসবা, পার্ক সার্কাস, সল্টলেক, মা ফ্লাইওভারের মতো শহরের গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় থাকছে এই বোর্ড। এমনকী মেট্রো স্টেশনগুলোতেও এই বিজ্ঞাপন লেগে গিয়েছে। আই লিগ ট্রফি নেওয়ার সময় ফুটবলার, কোচ কর্তারা চ্যাম্পিয়ন মহামেডান লেখা টি-শার্ট পড়বেন। এই রকম ১২৫টি বিশেষ টি-শার্ট তৈরি করা হয়েছে ক্লাবের পক্ষ থেকে। পরবর্তী সময়ে এই টি-শার্ট সমর্থকরাও কিনতে পারবেন মহামেডান তাঁবু থেকেই।

[আরও পড়ুন: স্বপ্নের প্রত্যাবর্তন, আইপিএলের সেরা ডেলিভারিতে পুরান বধ কুলদীপের]

অন্যদিকে দিল্লি এফসি ম্যাচ জিতেই মরশুম শেষ করতে চান মহামেডান কোচ আন্দ্রে চেরনিশভ। এদিন তিনি বলেন, “আর একটি মাত্র ম্যাচ। যেভাবে আগের ম্যাচগুলো জয়ের জন্য ঝাঁপিয়েছি, সেভাবেই এই ম্যাচটাও জিততে চাই। ম্যাচের গুরুত্ব না থাকলেও সমর্থকদের জন্য এই ম্যাচটা জিততে চাই। একটা ঐতিহাসিক মুহূর্তের সাক্ষী হতে চলেছি আমরা।” ম্যাচের চব্বিশ ঘন্টা আগে অবশ্য মহামেডান শিবিরে চোটের তালিকা দীর্ঘ। চোট রয়েছে রেমসাঙ্গা, পদম ছেত্রী, অ্যালেক্সিস গোমেজ, লালরেনসাঙ্গা ফানাইয়ের মতো গুরুত্বপূর্ণ ফুটবলারদের। কার্ডের জন্য নেই জুইডিকা। যেহেতু আগেই চ্যাম্পিয়ন হয়ে গিয়েছে দল, পাশাপাশি ম্যাচের গুরুত্ব নেই, তাই এখন আর ফুটবলারদের চোট নিয়ে আর ভাবতে চান না মহামেডান কোচ। শনিবার ম্যাচ খেলে উঠেই শহর ছাড়ছেন চেরনিশভ। তাই ফুটবলারদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকতে পারবেন না তিনি।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ