×

৫ ফাল্গুন  ১৪২৫  সোমবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নিউজলেটার

৫ ফাল্গুন  ১৪২৫  সোমবার ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল: থাইল্যান্ডকে হারিয়ে দুরন্ত শুরু করেছিল ভারত। কিন্তু ইউএই ও বাহরিনের কাছে হারের পর এশিয়ান কাপ থেকে বিদায় নিতে হয়। কিন্তু তাতেও ভারতীয় ফুটবল মহল স্বপ্ন দেখা শুরু করেছে। তবে সুনীল ছেত্রী ব্য়তিক্রম।

বিশ্বের এক বহুল প্রচারিত ইংরেজি দৈনিকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন ভারতীয় দলের অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী। তিন কোচের অধীনে খেলেছেন তিনি। বব হাউটন, উইম কোয়েভারম্যান্স ও স্টিভেন কনস্ট্যানটাইন। কে সেরা? ভারতের ফুটবল দলের অধিনায়ক সেই তুলনায় গেলেন না। তবে তিনি ব্যাপারটা ব্যাখ্যা করলেন অন্যভাবে। আর প্রকারান্তরে যেন বুঝিয়ে দিতে চাইলেন, কোচ হিসেবে কাকে চাইছেন তিনি। সুনীল বলছিলেন, “ভারতীয় ফুটবলে এখন উইম কোয়েভারম্যান্সকে সবচেয়ে বেশি দরকার ছিল। এখন আই লিগ, আইএসএল থেকে নতুন ফুটবলার উঠে আসছে। আমরা বল ধরে খেলা শুরু করেছি। উইমও এটাই করতে চেয়েছিল। কিন্তু সেটা কাজে আসেনি। উইম যদি এখন থাকত তাহলে মনে হয় আমাদের উন্নতি আরও বেশি হত।”

[মিতালির সঙ্গে অদ্ভুত মিল রোহিতের, নিরাশ করলেন দুই তারকাই]

এশিয়ান কাপে ভাল শুরু করেও ছিটকে যেতে হয়েছে। ভারতীয় ফুটবল দল এখন কোন জায়গায় দাঁড়িয়ে? সুনীলের জবাব, “আগের ভারতীয় দলের সঙ্গে এই ভারতীয় দলের ফারাক অনেক। আমরা হয়তো বেশ কিছুটা উন্নতি করেছি। তবে এটাও মাথায় রাখতে হবে আমরা যতটুকু এগিয়েছি, সেটা এশিয়ার সেরা দলগুলোকে চ্যালেঞ্জ জানানোর মতো নয়। আমরা এখনও অনেক পিছিয়ে। মনে রাখতে হবে ভারত যতদিন না এশিয়ার সেরা ১২টা দলের মধ্য়ে থাকবে, আমরা বিশ্বকাপ খেলতে পারব না। তার জন্য আমাদের এখন এশিয়ার শক্তিশালী টিমগুলোর সঙ্গে খেলতে হবে। সাফ কাপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে উচ্ছ্বাসে ভেসে পড়লে আর হবে না।”

কথায় কথায় বাহরিনের বিরুদ্ধে ম্যাচের কথা উঠল। যে ম্যাচ হেরে এশিয়ান কাপ থেকে বিদায় নিয়েছিল ভারত। সুনীল এক্ষেত্রে স্টিভেন কনস্ট্যানটাইনকে রীতিমতো ধুয়ে দিলেন। “ওঁর পরিকল্পনায় গলদ ছিল। লম্বা বল মারো আর দৌড়ে যাও। এটা কখনও রেজাল্ট দেয়, কিন্তু বড় টিমের বিরুদ্ধে কাজে আসে না। ওই ম্যাচে আমরা টানা চারটে পাস খেলিনি। বল এলেই উড়িয়ে দিয়েছি।” সুনীল এরপর যোগ করলেন, “আমাকে দু’জন মার্ক করছিল। সেটা দেখার পর লম্বা বলই এল। ওদের ডিফেন্ডারদের সমস্যাই হয়নি। এই ম্যাচটাই যদি আমরা জমিতে বল রেখে খেলতাম, তাহলে অন্যরকম ম্যাচ হতে পারত। ৯০ মিনিট বল উড়িয়ে খেললে জেতা যায় না। একটা সময় আমাদের গোল খেতেই হত। আর তার জন্য প্রণয়কে দোষ দিয়ে লাভ নেই।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং