৭  আশ্বিন  ১৪২৯  রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

এএফসি কাপে বেঙ্গালুরুর সামনে আজ ইতিহাস গড়ার হাতছানি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: November 5, 2016 1:02 pm|    Updated: November 5, 2016 10:25 pm

Iraq vs Bengaluru AFC cup 2016 Preview

স্টাফ রিপোর্টার: ভারতীয় ফুটবলে নতুন সূর্যোদয়৷’৬২-র এশিয়াড জয়, ২০১১ এশিয়া কাপে খেলা, মারডেকা জয়, ভারতীয় ফুটবলে এসব-ই লোকগাথা হয়ে আছে৷ এবার সেই তালিকায় এবার ঢুকে পড়তে চলেছে এএফসি কাপ৷ বেঙ্গালুরু এফসি আজ যদি ইরাকের এয়ারফোর্স ক্লাবকে হারিয়ে দিতে পারে, তা হলে ইতিহাসের পাতায় উঠে আসবে ভারতীয় ফুটবলের এক অন্য কাহিনি৷ যেখানে মরুভূমির বুকে দেখা দেবে মরুদ্যান৷

দোহার সুহায়িম বিন হামাদ স্টেডিয়ামে আজ সন্ধ্যায় খেলতে নামছেন সুনীল ছেত্রী, জনসনরা৷ হাজার হাজার সমর্থকের প্রত্যাশাকে কাঁধে করে বয়ে নিয়ে বেড়াচ্ছেন তাই নয়, কোটি কোটি ভারতবাসীর আশাকে বুকে নিয়ে তাঁরা পাড়ি দিয়েছেন দোহায়৷ প্রশ্ন, বেঙ্গালুরু কি পারবে শেষ হাসি হাসতে? ফুটবল বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কাজটা শুধু কঠিন নয়, প্রায় অসম্ভব৷ আসলে ইরাকের এই দলে এমন কয়েকজন আছেন যাঁরা আন্তর্জাতিক মানের৷ যেমন ফরোয়ার্ডে খেলা হামাদি আহমেদ৷ এই টুর্নামেন্টেই যিনি ইতিমধ্যে ১৫টা গোল করে ফেলেছেন৷ গোল্ডেন বুট পাওয়ার দৌড়ে তাঁর ধারে-কাছে কেউ নেই বললে চলে৷ তাঁর সঙ্গী হলেন আমজাদ রাধি৷ ইরাকি প্রিমিয়ার লিগে ইতিমধ্যে দু’বার গোল্ডেন বুট পেয়ে গিয়েছেন৷ শুধু ফরোয়ার্ড নয়, মাঝমাঠও যথেষ্ট শক্তিশালী৷ বাসার রিজান ও ওসামা আলি হলেন দলের মেরুদণ্ড৷ আবার বাঁদিকের উইং ধরে দৌড়ন হামাম তারিক৷ এই হামাম চার বছর আগে মাত্র ১৬ বছর বয়সে জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপিয়ে ছিলেন৷ তাঁর দৌড় থামানো সত্যিই খুব কঠিন৷ এই দিকটার জন্যই ইরাকিরা শুধু এগিয়ে নয়, শারীরিক দিক দিয়েও তারা ভারতীয়দের সব দিক দিয়ে টেক্কা দেবে৷ বেঙ্গালুরু এফসি-র সহকারী কোচ কার্লস কার্ডেট তো বলেই দিয়েছেন, “সবদিক দিয়ে ওরা এগিয়ে৷ শারীরিক তো বটেই, গতিতেও ওরা যে কোনও ভারতীয়-কে পেছনে ফেলে দেবে৷ একের বিরু‌দ্ধে একে অনেক এগিয়ে৷ আমাদের টেক্কা দিতে গেলে তাই নিজেদের দুশো শতাংশ উজাড় করে দিতে হবে৷ না হলে সফল হওয়া অসম্ভব৷” আসলে কোচ বাসিম কাসিম বাহিনীর খেলার কথা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে৷ এএফসি-র কিছু নিয়ম তারা মানতে পারেনি বলেই দ্বিতীয় টায়ারে নেমেছে৷ আর নেমেই বাজিমাত৷ উঠেছে ফাইনালে৷

বেঙ্গালুরুকে ভরসা দিচ্ছে চার বিদেশি৷ দু’জন ডিপ ডিফেন্ডার জুয়ানান-জনসন৷ আর দুই সেন্ট্রাল মিডফিল্ডার আলভারো রুবিও-ক্যামেরন ওয়াটসন৷ এই চারজন যদি নিজেদের ঠিকমতো মেলে ধরতে পারেন তা হলে ইরাকিরা সমস্যায় পড়তে বাধ্য৷ বেঙ্গালুরুর কোচ রোকা দায়িত্ব নেওয়ার পর চারটে ম্যাচ খেলেছে দল৷ সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ার দলের বিরু‌দ্ধে পাঁচটা গোল হয়েছে৷ যার মধ্যে দুটো গোলে সেটপিসের অবদান৷ সেই বিচারে ফরোয়ার্ডে সুনীল-বিনীতরা খুব সফল বলা যাবে না৷ শুধু পরিসংখ্যান দিয়ে বিচার করা ঠিক নয়৷ ফুটবলে অনেক অঘটন ঘটে৷ ইচ্ছাশক্তি অনেক সময় অনেক অঘটন ঘটায়৷ সেই অঘটনের দিকেই তাকিয়ে থাকবে গোটা ভারত৷ প্রত্যাশা নিয়ে৷

খেলা রাত ৯.৩০ থেকে দেখা যাবে সরাসরি স্টার স্পোর্টস-১-এ৷

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে