১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

নিলামে বাদ পড়ার যন্ত্রণা মনোজের ব্যাটিংয়ে দেখছি: দীপ দাশগুপ্ত

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: April 26, 2017 4:58 am|    Updated: July 11, 2018 10:55 am

Manoj Tiwari's batting reflects the pain of not getting a team in IPL: Deep Dasgupta

সংবাদ প্রতিদিন-এর জন্য বিশেষ IPL – Indian Premier League কলম ধরেছেন প্রাক্তন ক্রিকেটার  দীপ দাশগুপ্ত

বাংলার যে ক’জন ক্রিকেটার আইপিএলে খেলছে, তাদের মধ্যে মনোজকে সবচেয়ে ভাল ফর্মে দেখাচ্ছে৷ দারুণ ব্যাট করছে৷ গোটা বছরই ভাল ফর্মে ছিল৷ কিন্তু এ সব সবাই জানে, সবাই দেখতে পাচ্ছে৷ আমি বরং একটা অন্য জিনিস দেখতে পাচ্ছি ওর ব্যাটিংয়ে৷ গত দু’একবছর নিলামে বাদ পড়ার জেদ৷ ভারতীয় ক্রিকেটকে দেখিয়ে দেওয়ার জেদ যে, মনোজ তিওয়ারি এখনও বেঁচে আছে!

নাটকীয় শোনাতে পারে৷ কিন্তু ব্যাপারটা তো তাই দাঁড়িয়েছিল৷ শ্রেয়স আইয়ার, ঋষভ পন্থ– এক-এক বছর এক-একটা নাম৷ নিলামে দেখতাম, এরা টিম পেয়ে যাচ্ছে৷ অথচ মনোজ পাচ্ছে না৷

আমাদের, ক্রিকেটারদের গর্ব বলে একটা জিনিস থাকে৷ কোনও ক্রিকেটার বারবার আঘাত পেতে থাকলে, সে পাল্টা দেওয়ার একটা সুযোগ খোঁজে৷ পুণে এ বার সেই সুযোগটা দেওয়ায়, মনোজ দেখাতে শুরু করেছে ও কী করতে পারে, না পারে৷ ভাল ব্যাটিং শুধু করছে না, গত দু’এক বছর নিলামে টিম না পাওয়ার যন্ত্রণাটাও বার করছে মনোজ৷

পুণের উচিত মনোজের এই জেদটাকে কাজে লাগানো৷ কেউ কেউ বলতে পারে, মনোজকে তো খেলাচ্ছে পুণে৷ তা হলে? ঘটনা হল খেলাচ্ছে ঠিকই৷ কিন্তু ঠিক জায়গায় খেলাচ্ছে না৷ কেন এত পরে নামানো হবে? যে ছেলেটা আমাকে হাফসেঞ্চুরি দিতে পারে, তাকে পরে নামিয়ে ১০ বলে ২২ পেয়ে আমার কী লাভ?

[গ্রামবাসীদের ঢাল করে জওয়ানদের উপর হামলা চালায় মাওবাদীরা]

আমি বলব, ধোনির পরেই পুণের উচিত মনোজকে নামানো৷ পুণের মিডল অর্ডারটা হাওয়া উচিত–ধোনি, মনোজ, স্টোকস৷ ইংরেজ অলরাউন্ডারের আগে আমি মনোজকে দেখতে চাইব৷ কারণ, ভারতীয় পরিবেশ মনোজ অনেক বেটার চেনে৷ তা ছাড়া আইপিএল এখন মাঝামাঝি পর্বে ঢুকে গিয়েছে৷ দেশের উইকেটগুলো এখন স্লো হবে, টার্ন ধরবে৷ স্টোকসের চেয়ে মনোজ সেটা ভাল ম্যানেজ করতে পারবে৷ কেকেআর ম্যাচ থেকেই মনোজকে উপরে পাঠানো হোক৷ কেকেআর বোলিংয়ে ভাল বিদেশির সঙ্গে দুর্দান্ত কিছু ভারতীয় বোলারও আছে৷ মনোজ জানে, উমেশ বা কুলদীপ যাদবকে কী ভাবে সামলাতে হবে৷

এমনিতে বুধবারের ম্যাচে কাকে এগিয়ে রাখা উচিত, বুঝতে পারছি না৷ আরসিবিকে ইডেনে উড়িয়ে দেওয়ায় মারাত্মক কনফিডেন্স পেয়ে গিয়েছে কেকেআর৷ গম্ভীরের টিমকে এমনিই আমার দুর্দান্ত লাগে৷ কেকেআরের টুয়েলফথ ম্যান কিন্তু গম্ভীরের ক্যাপ্টেন্সি৷ আরসিবি ম্যাচটা স্রেফ নিজের খুনে মনোভাবটা টিমের মধ্যে ঢুকিয়ে বার করে নিল৷ উল্টো দিকে পুণেও শেষ কয়েকটা ম্যাচে ভাল খেলতে শুরু করেছে৷ একটা ম্যাচ ধোনি একা শেষ করে দিল৷ মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে আবার পুণেকে জিতিয়ে দিল স্টোকসের বোলিং৷ প্লাস ধরুন শার্দুল ঠাকুর বা জয়দেব উনাদকটের মতো ভারতীয় পেসার৷ ওরাও কিন্তু ভাল করতে শুরু করে দিয়েছে৷ আসলে বহু দিন পর পুণেকে আবার একটা টিম দেখাতে শুরু করেছে৷ খেলাটা ইডেনে হলে বলতাম, কেকেআর অনেক এগিয়ে৷ কিন্তু পুণেয় খেলা বলে অতটা এগিয়ে রাখতে পারছি না৷ আমার মতে ম্যাচ কেকেআরের দিকে ৫১-৪৯৷

[আজই আদালতে তোলা হবে এআইএডিএমকে নেতা দিনাকরণকে]

শুধু একটা ব্যাপার মাথায় রাখতে হবে কেকেআরকে৷ মিডল অর্ডার ব্যাটিং৷ সূর্যকুমার যাদব টিমের ভাইস ক্যাপ্টেন৷ কিন্তু ওর খেলা দেখে এখনও সেটা বুঝতে পারছি না৷ ইউসুফ পাঠান একটা ম্যাচে ভাল খেলেছে এখনও পর্যন্ত৷ কিন্তু ওকে আরও ধারাবাহিক হতে হব৷ আসলে কেকেআর শেষ কয়েকটা ম্যাচে দারুণ স্টার্ট পেয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু যে গতিতে ইনিংস শুরু হয়েছে, সেই একই গতিতে ইনিংস শেষ হয়নি৷ নারিন রোজ-রোজ ওপেন করতে নেমে বিস্ফোরণ না ঘটাতেই পারে৷ এই একটা ব্যাপার নিয়েই গম্ভীরের একটু ভাবা দরকার৷

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে